মাঙ্কিপক্স নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

আপডেট: মে ২১, ২০২২, ১২:১৯ অপরাহ্ণ

মাক্সিপক্স সংক্রমিত হওয়া রোগীর হাতের তালু। ছবি: রয়টার্স

সোনার দেশ ডেস্ক :


ইউরোপের দেশগুলোতে একশর বেশি মানুষের দেহে মাঙ্কিপক্স ভাইরাসের নিশ্চিত সংক্রমণ কিংবা রোগের উপসর্গ দেখা যাওয়ায় শুক্রবার জরুরি বৈঠকে বসতে যাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

সাধারণত পশ্চিম ও মধ্য আফ্রিকার দেশগুলোতে এর প্রাদুর্ভাব দেখা যায়। সর্বপ্রথম বানরের দেহে শনাক্ত হওয়া এ রোগটি ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শের মাধ্যমে ছড়ায় এবং এর আগে আফ্রিকার বাইরে দেখা যায়নি।

বার্তাসংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, স¤প্রতি ইউরোপে ধারাবাহিকভাবে এর সংক্রমণ ধরা পড়ায় উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। ইউরোপে এযাবৎকালের মধ্যে এটাই সবচেয়ে বড় প্রাদুর্ভাব বলে জানিয়েছে জার্মানি।

ইউরোপের অন্তত পাঁচটি দেশে এ রোগের সংক্রমণ নিশ্চিত হওয়া গেছে। দেশগুলো হচ্ছে- যুক্তরাজ্য, স্পেন, পর্তুগাল, জার্মানি এবং ইতালি। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, এবং অস্ট্রলিয়াতেও রোগী শনাক্ত হয়েছে।

সংক্রমণের ঝুঁকির উল্লেখ করে বিশ্ববাসীর স্বাস্থ্যের জন্য এ ভাইরাস হুমকি হয়ে উঠতে পারে বলে জানিয়েছিল ‘স্ট্র্যাটেজিক অ্যান্ড টেকনিক্যাল অ্যাডভাইসরি গ্রæপ অনন ইনফেকশাস হ্যাজার্ডস উইত প্যানডেমিক অ্যান্ড এপিডেমিক পোটেনশিয়াল (এসটিএজি-আইএইচ)’।

রয়টার্স জানায় এ বিষয়ে ওই গ্রæপটির সঙ্গে বৈঠকে বসবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একটি কমিটি।
মাঙ্কিপক্স একটি বিরল ভাইরাস সংক্রমণজনিত রোগ। সাধারণত এ রোগে শরীরে মৃদু জ্বরের উপসর্গ দেখা দেয় এবং অধিকাংশ মানুষ কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সুস্থ হয়ে ওঠেন বলে জানায় যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেল্থ সার্ভিস।

এ ভাইরাস সহজে মানুষ থেকে মানুষে ছড়ায় না। গণ সংক্রমণের ঝুঁকিও খুব কম।
সার্স-সিওভি-২ ভাইরাসের মতো এ ভাইরাস ছড়ায় না জানিয়ে বিজ্ঞানীরা এ রোগের প্রাদুর্ভাব কোভিড- ১৯ মহামারীর মতো হয়ে উঠবে না বলে মনে করছেন।

জার্মানির রবার্ট কখ ইন্সটিটিউটের গবেষক ফাবিয়ান লিনদার্তজ মাঙ্কিপক্সের প্রাদুর্ভাবকে আঞ্চলিক মহামারী হিসেবে বর্ণনা করেছেন।
তিনি বলেন, “এই মহামারী দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। কারণ, কন্টাক্ট ট্রেসিংয়ের মাধ্যমে রোগীকে খুব ভালভাবেই আলাদা করা সম্ভব এবং এ রোগের কার্যকর ওষুধ এবং টিকাও আছে।

শুক্রবার জার্মানির সশস্ত্র বাহিনীর মেডিকেল সার্ভিস সেদেশে প্রথম মাঙ্কিপক্স রোগী শনাক্ত করেছে। তারা বলছে, “যুক্তরাজ্য, স্পেন এবং পর্তুগালে মাঙ্কিপক্সের যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, তা ইউরোপ অঞ্চলে এ রোগের সবচেয়ে ব্যাপক এবং বড় ধরনের সংক্রমণ।”

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছেন মাঙ্কিপক্সের সুনির্দিষ্ট কোনো টিকা নেই, কিন্তু স্মলপক্সের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা টিকা এ রোগ ঠেকাতে ৮৫ শতাংশ কার্যকর।
বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্য জানিয়েছে মাঙ্কিপক্স সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে এমন স্বাস্থ্যকর্মীদের স্মলপক্সের টিকা দেওয়া হয়েছে।
সংক্রমণের ভিন্নরকম তথ্য