মাজারের চাঁদাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, গ্রেফতার ২

আপডেট: মার্চ ৬, ২০২১, ৯:২২ অপরাহ্ণ

পবা প্রতিনিধি:


রাজশাহী নগরীর ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কয়েরদাঁড়া খ্রিস্টানপাড়া মোড় এলাকায় চাঁদার টাকাকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। শুক্রবার ( ৫ মার্চ) রাত ৮ টায় ভাঙচুর, লুটপাট ও আওয়ামীলীগের দলীয় অফিসে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
জানা গেছে, প্রায় ১৫ দিন আগে নগরীর কয়েরদাঁড়া এলাকায় রাস্তা ছাড়াছাড়ি কে কেন্দ্র করে হট্টোগোল বাধে স্থানীয় ডিম বিক্রেতা ফিরোজের সাথে। পরে ফিরোজ ঝামেলা এড়াতে এলাকার ছেলেদের চাঁদাস্বরূপ বিশ হাজার টাকা দেয়। এই টাকার ভাগাভাগির দায়িত্ব পড়ে এলাকার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য রবিউল ইসলাম (৫০) এর উপর। ওই টাকার ভাগ নিতে ছুটে আসেপাশের এলাকার ( মালদাহ কলোনি) স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিলু ও তার বাহিনী।
উল্লেখ্য, ২১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যার পরে দুই গ্রুপের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় এবং রবিউলকে মারধর করে মিলু বাহিনী। এই ঘটনায় রবিউল গুরুতর আহত হলে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে রবিউলের স্ত্রী বাদি হয়ে অভিযোগ করে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায়। থানায় অভিযোগ করায় আরও হিংস্র হয়ে উঠে মিলু বাহিনী। পরবর্তীতে সেই ঘটনার জের ধরে মালদাহ কলোনি এলাকার মৃত সুজাউদ্দৌলার জমিতে অবৈধ মাজারের চাঁদার টাকা নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে ঝামেলা বাধে। ৪ মার্চ মিলু বাহিনী টাকা নিতে রবিউলের বাসায় হাজির হয়। টাকা দিতে অস্বীকার করলে ভাঙচুর করা হয় রবিউলের বাসা। আবারও রবিউলের স্ত্রী বাদি হয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানায় অভিযোগ দেয়। মিলু বাহিনী উত্তপ্ত হয়ে ৫ মার্চ রাত ৮ টায় দেশিও অস্ত্র, বোমা, দলবল নিয়ে হামলা ও লুটপাট করে রবিউলের বাড়ি সহ মোড়ের বেশ কয়েকটি দোকানপাট। এতে লক্ষ লক্ষ টাকা ক্ষতির মুখে পড়ে মোড়ের দোকানদার সহ রবিউল। এই হামলায় বাদ যায়নি ভাজা বিক্রেতাও। ঘটনার সময় পুলিশ নিরব ভূমিকা পালন করে এবং পুলিশের মোটর সাইকেল ভাঙচুর করা হয়। এরপর আরও পুলিশ ও মিডিয়াকর্মীরা আসলে ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আসে।
সরেজমিনে দেখা যায়, তিনটি মুদি দোকান, একটি টাইলস্ এর শো-রুমসহ আওয়ামী লীগের দলীয় অফিস আগুন ও ভাঙচুর করে মিলু বাহিনী।
এবিষয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন জানান, এ বিষয়ে মামলা হয়েছে। সেই সাথে দুই আসামি গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ