মাটির প্রতিমার বদলে নিজের মেয়েকেই চিন্ময়ী লক্ষ্মীরূপে পুজো, নজির গড়লেন দম্পতি

আপডেট: অক্টোবর ২০, ২০২১, ৬:৪৪ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক:


উমার কৈলাশ যাত্রার পর বাংলার ঘরে ঘরে শুরু হয় লক্ষ্মীদেবীর আরাধনা। মাটির প্রতিমায় ছেয়ে যায় বাজার। তবে মূর্তির বদলে নিজের মেয়েকে আসনে বসিয়ে কোজাগরী লক্ষ্মীদেবীর রূপে পুজো করলেন কৃষ্ণগঞ্জের বিশ্বাস দম্পতি। লক্ষ্য একটাই, সমাজে মেয়েদের প্রতি অবহেলার প্রতিবাদ।

বিশ্বাস বাড়ির ‘লক্ষ্মী’র মা মিতালি বনগাঁ গ্রাম পঞ্চায়েতে এগজিকিউটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট পদে কর্মরতা। বাবা দেবাশিসবাবু হিজুলি-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের এগজিকিউটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট। তাঁদের পুত্র দেবাপ্রিয়ান ও কন্যা দেবাদৃতা। লক্ষ্মীরূপে দেবাদৃতাকে আসনে বসিয়ে পুজো করেন তাঁরা। দেবীর মতোই লাল শাড়ি পরিয়ে, হাতে পদ্মফুল রেখে পুজো করা হয়। শাস্ত্র মেনে কোজাগরী লক্ষ্মীদেবীর মন্ত্র উচ্চারণ করে পুরোহিত শ্যামল মুখোপাধ্যায় পুজো করেন বিশ্বাস বাড়িতে।

দেবাদৃতার মা, বাবার কথায়, সে গর্ভে থাকাকালীন বাড়ির সকলের সৌভাগ্য বৃদ্ধি পায়। সংসারের উন্নতির পাশাপাশি ধনসম্পদও বৃদ্ধি পায়। তাঁদের মতে, দেবাদৃতা যেন জীবন্ত লক্ষ্মী। বাড়ির মেয়ে যখন অন্যের বাড়িতে যান, তখনও সেই বাড়ির শ্রীবৃদ্ধি হয়। তাই মেয়েদের প্রতি সকল বৈষম্যমূলক আচরণ দূর করতেই নিজের মেয়েকে পুজো করলেন এই দম্পতি। তবে বছরের একটা দিন নয়। বাংলার ঘরে ঘরে প্রতিটা দিন যেন মাতৃরূপী মেয়েরা পুজো পান, এমনটাই ইচ্ছে বিশ্বাস দম্পতির।
তথ্যসূত্র: আজকাল

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ