মাত্র চারবার শুনে কোনও শব্দ মনে রাখতে পারে কুকুর, অভাবনীয় আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের

আপডেট: জানুয়ারি ৩১, ২০২১, ৮:৪৪ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


একটা শব্দ মাত্র চারবার শুনতে হবে। তা হলেই সেই শব্দটি বরাবরের মতো মগজে ঢুকে যাবে কুকুরদের। সম্প্রতি একটি নতুন গবেষণায় আবিষ্কৃত হয়েছে এই তথ্য। জানা গিয়েছে, প্রতিভাবান কুকুর কেবল চারবার শোনার পরই নতুন শব্দ শিখতে পারে।
প্রাথমিক প্রমাণ থেকে দেখা গিয়েছে যে বেশিরভাগ কুকুর ভালো মতো প্রশিক্ষিত না হওয়া পর্যন্ত শব্দ (অর্থাৎ বস্তুর নাম) শেখে না। কিন্তু এর যে ব্যতিক্রম হয় কয়েক জন তা প্রমাণ করেছেন। তাঁরা মাত্র চার বার শোনার পরে নতুন শব্দ শিখিয়েছেন কুকুরকে। বুদাপেস্টের ইওটভাস লরানড বিশ্ববিদ্যালয়ের ইথোলজি বিভাগের ফ্যামিলি ডগ প্রজেক্ট রিসার্চ টিম এই ব্যতিক্রমী প্রতিভাবান কুকুরদের নিয়ে সমীক্ষা করছে। তাঁরা দেখিয়েছেন যে কোনও আনুষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ ছাড়াই শব্দ শিখতে পারে কুকুর। তবে সাধারণভাবে তাদের মালিকদের পরিবারের সঙ্গে খেলার সময় মালিকরা যা করেন, তা শেখে কুকুর।
‘সায়েন্টিফিক রিপোর্টস’ জার্নালে প্রকাশিত একটি নতুন গবেষণায় কুকুর কীভাবে নতুন শব্দ শিখতে পারে সে সম্পর্কে আশ্চর্যজনক ফলাফল প্রকাশ পেয়েছে। দু’জন প্রতিভাধর কুকুরের কথা এখানে বলা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের নাম হুইস্কি। জাতে এটি বর্ডার কলি। নরওয়ের এই কুকুরটি নিজের স্বতঃস্ফূর্ত দক্ষতার জন্য ইতিমধ্যে বিখ্যাত। দ্বিতীয় কুকুরটি হল ব্রাজিলের ভিকি নিনা। এটি একটি ইয়র্কশায়ার টেরিয়ার। সেও এই পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। একটি নতুন শব্দ মাত্র চারবার শোনার পরে এদের শেখার দক্ষতা পরীক্ষা করা হয়েছিল।
মানব শিশুদের মতো কুকুরগুলিও বেশিরভাগ সামাজিক প্রসঙ্গে শব্দগুলি শিখবে বলে মনে করা হয়। পূর্ববর্তী গবেষণায় দেখা গিয়েছিল যে কুকুর টাস্কের সময়ই কথা শেখে। এই সমীক্ষার এক বিজ্ঞানী ক্লোদিয়া ফুগাজা বলেন, “আমরা জানতে চেয়েছিলাম যে প্রতিভাধর কুকুর কোন শর্তে শব্দ শিখতে পারে। এটি পরীক্ষা করার জন্য, আমরা হুইস্কি এবং ভিকি নিনাকে দুটি ভিন্ন পরিস্থিতিতে নতুন কথা শেখালাম। ওদের মালিকদের সঙ্গে খেলাধুলা সময় এই সমীক্ষা করা হয়। গুরুত্বপূর্ণভাবে দেখা যায় উভয় অবস্থায় কুকুরই একটি নতুন খেলনাটির নাম মাত্র ৪ বার শুনে মনে রাখে।”
কুকুরগুলি এও প্রমাণ করে যে যখন তাদের মালিক নতুন খেলনার নাম বলে তখন তারা সেই নতুন খেলনা নির্বাচন করতে পারে। তারা অন্যান্য খেলনা বাদ দিয়ে ওটাই বাছে কারণ তারা অন্যগুলোর নাম জানে। কিন্তু ওই খেলনার নাম জানে না। স্বাভাবিকভাবেই ওটাই বেছে নেয় তারা। কিন্তু যখন খেলনাটিকে শনাক্ত করার কথা আসে, তখন কুকুর দুটি অকৃতকার্য হয়। এছাড়া দেখা যায় তাদের কোনও খেলনার নাম শেখাবার সময় তাদের নামের পরে ওই বস্তুর নাম নেওয়া হয়। তাই হুইস্কি ও ভিকি নীনা ঠিক সেভাবেই যখন ওই বস্তুর নাম শোনে তখন সেটা তারা চিনতে পারে। মানুষ ২-৩ বছরে যেভাবে জিনিস চিনতে শেখে, এটিও ঠিক তেমনই।
বেশিরভাগ কুকুর এইভাবে শব্দ শিখবে কিনা তা পরীক্ষা করার জন্য, অন্যান্য ২০টি কুকুরকে একই অবস্থায় পরীক্ষা করা হয়েছিল। তবে তাদের কোনওটিই খেলনার নাম শেখার কোনও প্রমাণ দেখায়নি। তাই প্রমাণিত হয় যে, আনুষ্ঠানিক প্রশিক্ষণের অভাবে দ্রুত শব্দ শেখার ক্ষমতা রয়েছে এমন খুব বিরল এবং কেবল কিছু প্রতিভাধর কুকুরেই এভাবে বস্তু চিনতে সক্ষম।
তথ্যসূত্র: kolkata24x7

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ