মাদারের সেই শাড়ি এ বার পেটেন্টে

আপডেট: জুলাই ৭, ২০১৭, ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


নীল পেড়ে সাদা রঙের যে বিশেষ ধরনের শাড়ি মাদার টেরিজার হাত ধরে সারা বিশ্বে পরিচিত, এ বার তার পেটেন্ট নিল মিশনারিজ অব চ্যারিটি।
বুধবার ওই প্রতিষ্ঠানের তরফে এ কথা জানান আইনজীবী বিশ্বজিৎ সরকার। তিনি জানিয়েছেন, ওই শাড়ি এ বার থেকে মিশনারিজ অব চ্যারিটির প্রতীক হিসেবে গণ্য হবে। ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি আইন মেনে ওই পেটেন্ট নেয়া হয়েছে। এ দেশে এই প্রথম কোনও প্রতিষ্ঠান পোশাকের পেটেন্ট নিল বলে দাবি করেন বিশ্বজিৎবাবু।
সারা পৃথিবীতে গরিব, অসহায়, অসুস্থদের জন্য কাজ করে এই প্রতিষ্ঠান। যে বিশেষ নকশার নীল পেড়ে সাদা শাড়ি মাদার পরতেন, সেই শাড়িতে তাঁর অনুগামী সন্ন্যাসিনীদেরও দেখতে অভ্যস্ত বিশ্ববাসী। কিন্তু অনেকেই আবার সেই শাড়িকে অসাধু কাজে ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ।
জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে অসংখ্য মানুষ বিভিন্ন ভাবে মাদারের প্রতিষ্ঠান ও ভাবনাকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করেন। আর সেই বিশ্বাসের সুযোগ নিয়েই মাদারের নাম করে সমাজসেবার ভাঁওতা দিতে অনেক অসাধু চক্রও সক্রিয় বলে খবর পেয়েছে মাদারের প্রতিষ্ঠান। অনেকেই নীল-সাদা শাড়ি পরে মাদার বা তাঁর প্রতিষ্ঠানের নাম করে বিভিন্ন সংস্থার কাছ থেকে নানা রকম সুযোগ-সুবিধা নিচ্ছে বলে অভিযোগ। মাদারের নামে সব ধরনের অসাধু কাজ বন্ধ করতেই পেটেন্ট নেয়ার এই উদ্যোগ বলে জানান বিশ্বজিৎবাবু।
ভ্যাটিকান সিটিতে পোপ ২০১৬ সালে মাদারকে সন্ত ঘোষণা করেন। সেই অনুষ্ঠানে ওই নির্দিষ্ট ধরনের শাড়ি পরে মাদারের অনুগামী সন্ন্যাসিনীরাও উপস্থিত ছিলেন। বিশ্বের দরবারে ওই শাড়ি সে দিন আরও বেশি করে পরিচিত হয়। এর পরেই মিশনারিজ অব চ্যারিটি সিদ্ধান্ত নেয়, তারা ওই শাড়ির পেটেন্ট নেবে এবং তার অপব্যবহার বন্ধ করবে।
তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ