মানবিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় সাংস্কৃতিক আন্দোলনের বিকল্প নেই : লিটন

আপডেট: ডিসেম্বর ২৮, ২০১৬, ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, আমাদের মুক্তিযুদ্ধের লক্ষ্য ছিল বাংলাদেশকে একটি মানববিক রাষ্ট্র হিসাবে প্রতিষ্ঠা করা। কিন্তু বঙ্গবন্ধু হত্যার পর আমরা সে রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে পারিনি। বাংলাদেশকে মানবিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় সাংস্কৃতিক আন্দোলনের বিকল্প নেই। বাংলাদেশকে একটি মানবিক রাষ্ট্রে পরিণত করার আন্দোলনে নেতৃত্ব দিতে হবে রাজশাহী থিয়েটারকে। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে নগরীর আলুপট্টি বঙ্গবন্ধু চত্বরে রাজশাহী থিয়েটারের ৩১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সভায় সভাপতিত্ব করেন, কামারুল্লা সরকার কামাল। বক্তব্য দেন, রাজশাহী জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভাষাসৈনিক আবুল হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহীন আক্তার রেনী, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, কলামিষ্ট প্রশান্ত সাহা, মহিলা পরিষদের জেলা সভাপতি কল্পনা রায়, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার ঘোষ, দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হাসান মিল্লাত, ঋত্বিক ঘটক সোসাইটির সভাপতি ডা. এফএমএ জাহিদ, চলচ্চিত্র নির্মাতা আহসান কবীর লিটন, ঋত্বিক ঘটক সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হোসেন মাসুদ, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নগর সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল প্রমুখ।
আলোচনা সভার পূর্বে আলুপট্টি মোড় থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আলুপট্টি মোড়ে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। আলোচনা সভা শেষে রাজশাহী থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর ৩১ পাউন্ডের একটি কেক কাটা হয়।