মানুষের দুর্দিনে চিকিৎসা পেশায় ফিরলেন আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

আপডেট: এপ্রিল ৬, ২০২০, ২:৩৮ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


চিকিৎসক হিসেবে নিজের নাম পুনরায় নিবন্ধিত করেছেন আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকার। মহামারি করোনাভাইরাস সংকটের এই মুহূর্তে প্রতি সপ্তাহে তিনি এক শিফটে করোনা রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেয়ার কাজ করবেন। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এ তথ্য জানিয়েছে।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, রাজনীতিতে যোগ দেয়ার আগে সাত বছর চিকিৎসা পেশায় ছিলেন প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকার। এরপর ২০১৩ সালে চিকিৎসক হিসেবে নিবন্ধিত তালিকা থেকে তার নাম মুছে দেয়া হয়। এমন সিদ্ধান্তে তাকে বাহবা দিচ্ছেন দেশটির মানুষ।
আইরিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, প্রধামন্ত্রী লিও গত মার্চে চিকিৎসক হিসেবে নিজের নাম পুনরায় নিবন্ধিত করেছেন। তিনি যেসব এলাকায় সহজেই যেতে পারবেন এখন থেকে সপ্তাহে এক শিফটে তিনি সেসব এলাকায় দেশটির স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অধীনে কাজ করবেন।
মুখপাত্র বলেন, ‘তার (প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকার) পরিবারের অনেক সদস্য ছাড়াও তার বন্ধুরা আয়ারল্যান্ডের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগে কাজ করেন। তিনি খুব সামান্য হলেও মহামারি এই সংকটকালে দেশের মানুষের সেবা করার জন্যই এমন পদক্ষেপ নিয়েছেন।’
করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এবং এই দুর্যোগ মোকাবিলায় গত মাসে আইরিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী সিমন হ্যারিস দেশটির স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের জন্য একটি নিয়োগ প্রক্রিয়ার শুরু করেন। তিনি অভিজ্ঞ স্বাস্থ্য কর্মীদের তাতে অংশ নিতে একটি বার্তা দেন। বার্তাটি হলো, ‘তোমার দেশের এখন তোমাকে প্রয়োজন।’
দেশটির স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ জানিয়েছে, এমন নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর দেশের ৭০ হাজারের বেশি স্বাস্থ্যকর্মী তাদের কাজে পুনরায় ফের আসার জন্য নাম নিবন্ধিত করেছেন। আইরিশ টাইমস বলছে, প্রধানমন্ত্রী ভারাদকার ইতোমধ্যে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিতে শুরু করেছেন।
আইরিশ টাইমসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকার দেশটির একটি স্বনামধ্যন্য চিকিৎসক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা হলেন একজন চিকিৎসক এবং মা ছিলেন নার্স। তার স্ত্রীও চিকিৎসক। এছাড়া তার দুই বোন এবং তাদের স্বামীও চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ