মান্দায় চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে সম্ভাব্য ৭ প্রার্থীর গণসংযোগ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২৪, ৯:০৩ অপরাহ্ণ


মান্দা প্রতিনিধি:নওগাঁর মান্দা উপজেলার নুরুল্লাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনের তফসীল ঘোষণার পর থেকে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। এ নির্বাচনে সাতজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস দিয়ে গণসংযোগ করছেন পাড়া-মহল্লায়।

সম্ভাব্য এসব প্রার্থীদের চেয়ারম্যান পদে পদচারনায় সরগরম হয়েছে উঠেছে ভোটের মাঠ। পছন্দের প্রার্থী নিয়ে তর্ক-বির্তকে জড়িয়ে পড়ছেন ভোটাররা। আলোচনা আর সমালোচনায় জমে উঠেছে হাটবাজার ও চায়ের স্টল।
স্থানীয় একাধিক সূত্র বলছে, আওয়ামী লীগ ঘরোনার অন্তত চারজন প্রার্থী এ উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশ নেবেন। এ লক্ষ্য নিয়ে তাঁরা গণসংযোগ করছেন। বিগত নির্বাচনে ইচ্ছে থাকলেও দলীয় প্রতীকের কারণে তাঁর অংশ নিতে পারেননি। এবারে দলীয় প্রতীক থাকছে না। এ কারণে অনেকটা স্বাচ্ছ্যন্দেই তাঁরা লড়তে পারবেন ভোটের মাঠে।

তবে, বিএনপির কোনো প্রার্থী এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে কি না এখন পর্যন্ত তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। দলটির দু’একজন প্রার্থীর নাম শোনা গেলেও দলীয় সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছেন তাঁরা। জামায়াত সমর্থিত একজন প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বিতার বিষয়টি যাচাই করেছে দলটির একাধিক সূত্র।

সরেজমিনে ইউনিয়নের ভোটের মাঠ ঘুরে এখন পর্যন্ত সাতজন প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগ ঘরোনার সম্ভাব্য প্রার্থীরা হচ্ছেন নুরুল্লাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বাধীন কৃষ্ণ রায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহপ্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক কাজেম উদ্দিন মণ্ডল ও আওয়ামী লীগনেতা গোলাম মোস্তফা এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য আকবর হোসেন।
এছাড়া নুরুল্লাবাদ ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আল হেলাল সরদারজামায়াত সমর্থিত জাইদুর রহমান ও ইনডেক্স টেকনিক্যাল এণ্ড বিএম কলেজের অধ্যক্ষ মোজাফফর হোসেনের নাম শোনা যাচ্ছে।

উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অংশ নেওয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে নুরুল্লাবাদ ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য ফজলুল বারী সাফি বলেন, ‘বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের অধীনে কোনো নির্বাচনে অংশ নেবে না বিএনপি। আমরা এখনও এক দফা দাবি আদায়ের লক্ষে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে যদি কেউ নির্বাচনে অংশ নেয়, সেটি তাঁর ব্যক্তিগত বিষয়।’

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০২১ সালের ২৭ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে (বর্তমানে সম্ভাব্য প্রার্থী) স্বাধীন কৃষ্ণ রায়, গোলাম মোস্তফা ও মোজাফফর হোসেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। এ নির্বাচনে বিজয়ী হন জামায়াতনেতা ইয়াছিন আলী। জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে গতবছরের ২১ নভেম্বর তিনি মারা যান। এর পর পদটি শুন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটানিং অফিসার মাহবুবুল কবীর জানান, আগামি ১৩ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। যাচাই-বাছাই ১৫ ফেব্রুয়ারি ও প্রত্যাহারের শেষ দিন ২২ ফেব্রুয়ারি। আগামি ২৩ ফেব্রুয়ারি প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ৯ মার্চ। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ২৪,৭৬৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১২,৩৮৭ জন ও নারী ভোটার ১২,৩৭৭ জন।