মান্দায় প্রতিপক্ষের মারধরে আহত যুবকের মৃত্যু

আপডেট: এপ্রিল ১৬, ২০২৪, ৮:৫৬ অপরাহ্ণ

মান্দা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:


নওগাঁর মান্দায় চায়ের দোকানঘর ভাঙচুরে বাধা দেওয়ায় প্রতিপক্ষের মারধরে আহত যুবকের হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (১৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান।

ময়নাতদন্তের পর মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) তার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ইদের পরের দিন শুক্রবার মাগরিবের আজানের সময় প্রতিপক্ষের মারধরে আহত হয়ে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

নিহত যুবকের নাম সাদেকুল ইসলাম ছোটন (২৩)। তিনি উপজেলার মান্দা সদর ইউনিয়নের বাদলঘাটা দক্ষিণপাড়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত একই এলাকার অনিক মাহমুদ সাগর (৩০) ও মাইনুল ইসলাম (২৫) পলাতক আছেন।

নিহত ছোটনের চাচাতো ভাই প্রত্যক্ষদর্শী মোশারফ হোসেন জানায়, গ্রামের মোড়ে ছোটনের বাবা আব্দুর রাজ্জাক’র একটি চায়ের স্টল রয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যালগ্নে একই এলাকার অভিযুক্ত অনিক মাহমুদ সাগর এবং মাইনুল ইসলাম মাঠ থেকে মোড়ে আসে। এরপর কোনও কারণ ছাড়াই আব্দুর রাজ্জাক’র চায়ের দোকানটিতে তারা ভাঙচুর শুরু করে।

প্রত্যক্ষদর্শী গ্রামের একাধিক বাসিন্দা জানান, এসময় নিহত ছোটন বাবার চায়ের দোকান ভাঙচুরের প্রতিবাদ করলে অভিযুক্ত সাগর বাঁশ দিয়ে ছোটনের মাথায় আঘাতসহ এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। এতে ঘটনাস্থলেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলে ছোটন। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
নিহত ছোটনের বাবা আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বিনা অপরাধে আমার ছেলেকে যারা পিটিয়ে হত্যা করেছেন তাদের ফাঁসির দাবি করছি।

এ ঘটনায় মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত-কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক-কাজী বলেন, ঘটনায় নিহতের বাবা আব্দুর রাজ্জাক বাদী হয়ে সোমবার রাতে থানায় মামলা করে। আসামি গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।