মান্দায় চুল কেটে স্ত্রীকে নির্যাতন, স্বামী গ্রেফতার

আপডেট: ডিসেম্বর ১, ২০২২, ১:৩৬ পূর্বাহ্ণ

মান্দা প্রতিনিধি:


নওগাঁর মান্দায় মাথার চুল কেটে দিয়ে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে স্বামী আব্দুল কুদ্দুসকে (৩২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার (৩০ নভেম্বর) সকালে উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের ছোটমুল্লুক আদর্শ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার আব্দুল কুদ্দুস ছোটমুল্লুক গ্রামের মৃত বাবর আলী ভুট্টুর ছেলে। তাঁর স্ত্রীর নাম নুরজাহান বেগম (২৭)। তিনি নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার রামগাঁ গ্রামের জহির উদ্দিনের মেয়ে। এ দম্পতির দুটি শিশু সন্তান রয়েছে।

নির্যাতনের শিকার নুরজাহান বেগম জানান, স্বামী আব্দুল কুদ্দস রাজধানী ঢাকায় থেকে রিকসা চালিয়ে উপার্জন করেন। গত ২৫ নভেম্বর তিনি বাড়ি আসেন। ওইরাতে পরকীয়ায় ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে তাঁকে বেদম মারধর করা হয়। একই অভিযোগে পরদিন রাতে দ্বিতীয় দফায় মারধর করেন স্বামী আব্দুল কুদ্দুস। এসময় কাঁচি দিয়ে তাঁর মাথার চুল কেটে দেওয়া হয়।

ভুক্তভোগী নুরজাহান বেগম অভিযোগ করে বলেন, আজ বুধবার সকালে আবারও মারধর করে তাঁর গলায় ছুরি ঠেকিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এসময় মেয়ে কারিমা খাতুন বাবার পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি শুরু করে। এ সুযোগে বাড়ি থেকে পালিয়ে জয়বাংলা মোড়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য বিষ্ণুপদ সাহার দোকানঘরে আশ্রয় নিয়ে জীবন রক্ষা করেন।
অভিযুক্ত আব্দুল কুদ্দুস স্ত্রীকে নির্যাতন ও চুল কেটে দেওয়ার বিষয়টি অকপটে স্বীকার করেন।

কালিকাপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বিষ্ণুপদ সাহা বলেন, ঘটনার বিষয়ে অবহিত হয়ে গ্রামপুলিশের সহায়তায় আব্দুল কুদ্দুসকে আটক করে ভিকটিমসহ তাঁকে ইউনিয়ন পরিষদে নেওয়া হয়। পরে পুলিশ এসে আব্দুল কুদ্দুসকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, ঘটনায় ভিকটিম নুরজাহান বেগম বাদি হয়ে স্বামী আব্দুল কুদ্দুসের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আসামি কুদ্দুসকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।