মান্দায় নৈশ্যপ্রহরী হত্যার ঘটনায় বাবা-মাসহ আটক সাত

আপডেট: জুলাই ৭, ২০১৭, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ

মান্দা প্রতিনিধি


নওগাঁর মান্দা উপজেলার ভালাইন দারুল উলুম কওমি ও হাফেজিয়া মাদরাসার নৈশ্যপ্রহরী মনসুর রহমান (৩৮) হত্যার ঘটনায় সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ। জিজ্ঞাসবাদের জন্য নিহতের স্বজনদের গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে হেফাজতে নেয় থানা পুলিশ।
এরা হলেন- নিহতের বাবা আবদুল মালেক, মা আলোজান বিবি, বোন মাসুদা বিবি, ভগ্নিপতি ফারুক হোসেন, ভাগ্নে মাহবুব আলম। অন্যদিকে গতকাল বুধবার সকালে অভিযান চালিয়ে ভালাইন গ্রামের ছবের আলীর দুই ছেলে ছইবুর রহমান (৪৮) ও খয়বর রহমান ওরফে বাদলকে (৪৫) বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে। তারা দুই জনই মাদরাসা সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা।
থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনিছুর রহমান জানান, সন্দেহের সূত্র ধরে নিহত মনসুর রহমানের স্বজনদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এদের মধ্যে নিহতের বোন মাসুদা বিবির কথাবার্তা অসংলগ্ন হওয়ায় আটক করা হয়েছে তার ছেলে মাহবুব আলমকে (১৮)। এছাড়া আটক ছইবুর রহমান ও বাদলকেও আলাদা রেখে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। অচিরেই এ হত্যাকা-ের রহস্য উদঘাটন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
নওগাঁর মান্দা উপজেলার ভালাইন দারুল উলুম কওমি ও হাফেজিয়া মাদরাসায় নৈশ্যপ্রহরীর দায়িত্ব পালনকালে মনসুর রহমানকে গত সোমবার রাত ১১টার দিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে দুর্বৃত্তরা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। নিহত মনসুর রহমান ভালাইন গ্রামের আবদুল মালেক সরদারের ছেলে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ