মান্দায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গাছ বিক্রি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

আপডেট: মার্চ ২২, ২০১৭, ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ

মান্দা প্রতিনিধি


নওগাঁর মান্দা উপজেলার তেঁতুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস আরার বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠানের গাছ বিক্রি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগপত্র উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সংশ্লিস্ট বিভিন্ন দফতরে প্রেরণ করেছে স্থানীয়রা।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার বেলা ১০টার দিকে কয়েকজন লোক বিদ্যালয়ের জমিতে থাকা তাজা একটি জাম গাছের ডালপালা হঠাৎ করেই কাটতে শুরু করে। এসময় গাছ কাটার সঙ্গে যুক্ত লোকজনদের জিজ্ঞাসাবাদে স্থানীয়রা জানতে পারেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস আরা গাছটি বিক্রি করে দিয়েছেন। তবে, কতো টাকায় গাছটি কেনা হয়েছে সেটা জানাতে অস্বীকৃতি জানান তারা। পরে স্থানীয়দের বাধার মুখে গাছ কাটা বন্ধ রেখে লোকজন সটকে পড়েন।
অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস আরা নিজের ইচ্ছেমতো বিদ্যালয়ে যাতায়াত করেন। বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে প্রায়ই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকেন। এছাড়া ২০১৫-১৬ অর্থবছরে স্লিপের টাকার সঠিক কাজ না করে আত্মসাত করেছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।
স্থানীয় বাসিন্দা নজিবর রহমান মোল্লা, অভিযোগকারী সুলতান আলীসহ আরো অনেকে জানান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোপনে ২৫-৩০ হাজার টাকা মূল্যের তাজা একটি জাম গাছ বিক্রি করে দিয়েছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সঠিক ব্যাখ্যা না দিয়ে পাল্টা তাদের হেনস্থা করা হয়। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দফতরে অভিযোগপত্র পাঠানো হয়েছে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস আরা গোপনে গাছ বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত ও রেজুলেশনে গাছটি বিক্রি করা হয়েছে। বিদ্যালয়ের বারান্দা মেরামত কাজে টাকার প্রয়োজনে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।
এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শুধুমাত্র রেজুলেশনের মাধ্যমে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ গাছ বিক্রি কিংবা কর্তন করতে পারেন না। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ