মান্দায় বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি অবমাননার অভিযোগে প্রতিবাদ সমাবেশ

আপডেট: জুলাই ১৬, ২০১৭, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ

মান্দা প্রতিনিধি


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি অবমাননার অভিযোগে নওগাঁর মান্দা উপজেলার কাঁশোপাড়া ইউনিয়নের সিংগী বাজারে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেল ৫টার দিকে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান ও অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড কশব শাখা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে এ কর্মসূচি পালন করে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।
কাঁশোপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউনুস আলী মন্ডলের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন মুক্তিযোদ্ধা মোজাহার হোসেন মুল্লিক, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালেক, সহসভাপতি আমজাদ হোসেন ও হেমচন্দ্র প্রামানিক, আ’লীগ নেতা মোজাম্মেল হক ও তজিমুদ্দীন, মুক্তিযোদ্ধা সুরুত আলী মাস্টার ও সামসুদ্দীন, ইউনিয়ন কৃষকলীগ সভাপতি বজলুর রহমান মাস্টার, যুবলীগ নেতা আমজাদ হোসেন ও মামুনুর রশিদ আলম, ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আয়নাল হক ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক আসাদুজ্জামান বাবু।
প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, গত মঙ্গলবার আয়োজকরা ইচ্ছাকৃতভাবে আলোচনা সভার ব্যানার দিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ঢেকে দিয়ে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেছে। এতে তাঁদের প্রতি চরম অবমাননা করা হয়েছে উল্লেখ করে তদন্তপূর্বক ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি ও ইউপি চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবি করেন বক্তারা।
ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান জানান, ঋণ বিতরণ কার্যক্রম উপলক্ষে আলোচনা সভার জন্য পরিষদের হলরুম ব্যবহারের অনুমতি নিয়েছিলেন ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক মুহা. আকতারুজ্জামান। ব্যানার টাঙানোসহ অনুষ্ঠানের যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালনা করেছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। অনুষ্ঠানে অগ্রণী ব্যাংক কৃষি ঋণ বিভাগের ডিজিএম ও বাংলাদেশ ব্যাংক বগুড়ার সিআইপিসি আবদুুর রহমান প্রামানিক প্রধান অতিথি ছিলেন। কিন্তু হলরুমে টাঙানো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি আলোচনার সভার ব্যানার দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়েছিল কি-না বিষয়টি তিনি অবহিত নন। ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের উপস্থিতিতে কিভাবে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে সেটি তার বোধগম্য নয় বলে উল্লেখ করেন। তিনি দাবি করেন, এর দায়ভার সম্পূর্ণ ব্যাংক কর্তৃপক্ষের।
অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড কশব শাখা ব্যবস্থাপক মুহা. আকতারুজ্জামান জানান, ব্যাংকের দুইজন কর্মচারী দিয়ে ব্যানার টাঙানোর ব্যবস্থা করা হয়েছিল। তবে ওই ব্যানারে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ঢাকা পড়েছিল এমনটি তিনি লক্ষ্য করেন নি। বিষয়টি টের পেলে তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানিয়ে ব্যানারটি নামিয়ে অনুষ্ঠান পরিচালনা করা হতো। অনিচ্ছাকৃত এ ভুলের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ