মার্কিন ফৌজের হয়ে দোভাষীর কাজ, ‘কাফের’ আফগান যুবকের গলা কাটল তালিবান

আপডেট: জুলাই ২৪, ২০২১, ২:৩২ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


প্রায় দু’দশকের লড়াই শেষে আফগানিস্তান থেকে ফিরে যাচ্ছে মার্কিন ফৌজ। আমেরিকার প্রস্থানে স্বাভাবিকভাবেই চাঙ্গা হয়ে দুর্বার গতিতে এগিয়ে আসছে তালিবান। আর মার্কিন সেনার সংস্রবে থাকা আফগানদের উপর নেমে এসেছে খাঁড়া। তবে সবথেকে বেশি জঙ্গিদের রোষানলে পড়েছেন আফগান দোভাষীরা। মার্কিন ফৌজের হয়ে ‘চরবৃত্তি’র অভিযোগ এবার এক আফগান দোভাষীকে গলা কেটে হত্যা করল তালিবান জঙ্গিরা।
সিএনএন সূত্রে খবর, গত মে মাসে ইদ উপলক্ষে কাবুল থেকে বোনের সঙ্গে দেখা করার জন্য খোস্ত প্রদেশের উদ্দেশে রওনা দেন সোহেল পারদিস। তিনি আমেরিকার হয়ে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে দোভাষীর কাজ করছিলেন। কিন্তু সেদিন তাঁর আর বোনের সঙ্গে দেখা করা হয়নি। স্থানীয়রা জানান, মাঝরাস্তায় গুলি করে তাঁর গাড়ি থামায় তালিবান জঙ্গিরা। এবং ‘কাফের’ আমেরিকানদের হয়ে চরবৃত্তির অভিযোগে অত্যন্ত নৃশংসভাবে তাঁর মাথা কেটে ফেলে সন্ত্রাসবাদীরা। ওই ঘটনার কয়েকদিন আগেই নিজের বন্ধুদের কাছে প্রাণহানির আশঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন পারদিস। ওই নিহত দোভাষীর বন্ধু ও সহকর্মী আবদুলহক আয়ুবির কথায়, “সে বলেছিল, তালিবান থেকে হুমকি আসছে। আমাকে মেরে ফেলবে। তারা বলে আমি নাকি আমেরিকার চর। বিধর্মীদের হয়ে কাজ করছি তাই আমি কাফের।” বলে রাখা ভাল, কয়েকদিন আগে এক বিবৃতিতে তালিবান জানিয়েছিল বিদেশি বাহিনীর হয়ে যে আফগানরা কাজ করেছেন তাঁদের কোনও ক্ষতি করা হবে না। তবে তালিবানের প্রতিশ্রুতির যে কোনও দাম নেই তা আগেও বহুবার প্রমাণিত হয়েছে। এদিকে, এই ঘটনায় সিএনএন-কে দেওয়া বিবৃতিতে তালিবান জানিয়েছে, ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে তারা।
উল্লেখ্য, আফগানিস্তানে আমেরিকা ও ন্যাটো ফৌজের হয়ে কাজ করেছেন প্রায় ২০ হাজার আফগান নাগরিক। দোভাষী, ড্রাইভার, কেরানি-সহ একাধিক পদে রয়েছেন তাঁরা। এই কর্মীদের বাঁচাতে তাঁদের বিমানে আফগানিস্তান থেকে বের করে নিরাপদ জায়গায় নিয়ে যাওয়ার জন্য ‘peration Allies Refuge ’ শুরু করার কথা ঘোষণা করে আমেরিকা। কিন্তু তার আগেই তালিবানের হামলায় বহু আফগান নাগরিক প্রাণ হারাবেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন