মাশরাফির অবসর গুঞ্জন বলে উড়িয়ে দিলেন পাপন

আপডেট: জানুয়ারি ১০, ২০১৭, ১২:০১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



বিসিবি সভাপতি গত রোববার ভিন্ন ভিন্ন দুটি চ্যানেলে মাশরাফি মর্তুজার অবসর নিয়ে দুই ধরনের মন্তব্য করেছেন। মাশরাফির অবসর নিয়ে প্রথম খবরটি প্রকাশ হওয়ার পর তার ভক্তদের মধ্যে হতাশা নেমে পড়ে। প্রথম বক্তব্যের ঘণ্টাখানেক পর অন্য আরেক টেলিভিশনে তিনি আগের বক্তব্য উড়িয়ে দিয়ে মাশরাফির অবসরকে গুঞ্জন বলে আখ্যায়িত করেছেন।
গতকাল সোমবার বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন তার বাসভবনে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন। এদিন অনেক ধরনের ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি বোঝানোর চেষ্টা করেছেন মাশরাফির অবসরের খবরটি আসলে গুঞ্জন, ‘মাশরাফি আমাকে এমন কিছু বলে নি। সাধারণত ম্যাচ শুরুর আগে আমি মাশরাফিসহ অন্য সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলি। মাশরাফি আমার সঙ্গে এটা নিয়ে কোনও আলাপ করেনি। আমি নিশ্চিত- এমন একটি সিদ্ধান্ত মাশরাফি আমার সঙ্গে আলাপ ছাড়া নেবে না।’
তিনি আরো যোগ করেন, ‘ওখানে (নিউজিল্যান্ডে) গিয়ে সে এমন সিদ্ধান্ত নেবে কেন? যদি অবসরের সিদ্ধান্ত নিতেই হয়, দেশে এসে আমার সঙ্গে আলাপ করুক, এরপর নেবে। এটাই ছিল টেলিভিশনের সঙ্গে আমার বক্তব্য!’
গতকাল সোমবার সকালে মাশরাফির সঙ্গে কথা হয়েছে বলে জানালেন পাপন, ‘আজকে সকালে মাশরাফির সঙ্গে আবার কথা হয়। মাশরাফি বলেছে এই রকম যদি কিছু করি তাহলে কি আমি আপনার সঙ্গে আলাপ না করে করব। সুতরাং মাশরাফিকে নিয়ে যা আলোচনা হচ্ছে- এটা কেবলমাত্র গুঞ্জন। আমাকে কখনোই মাশরাফি কিংবা অন্য কেউ বলেনি অবসরে যাওয়ার কথা। এই তথ্যটা আসলেই ঠিক নয়।’
মাশরাফি যতদিন ফিট থাকবে ততদিনই অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করবে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন পাপন, ‘মাশরাফি যতদিন ফিট থাকবে, ততদিন আমাদের দলের অধিনায়ক থাকবে! মাশরাফি তার গুরুত্বপূর্ণ দুটি দায়িত্ব ঠিকভাবেই পালন করছে।’
মুস্তাফিজকে নিয়ে বিসিবি প্রধানের করা একটি মন্তব্য সমালোচনার জন্ম দেয়। রোববার এক টেলিভিশনে তিনি বলেছিলেন দলের অনেক খেলোয়াড় চায় না মুস্তাফিজ ম্যাচ খেলুক! সোমবার অবশ্য এই বক্তব্যে স্থির থাকলেও ভিন্নভাবে ব্যাখা দিলেন পাপন, ‘মুস্তাফিজ বাংলাদেশে চলে আসতে চাচ্ছে। আমি ধারণা করছি, ওর চলে আসার কারণ এটা হতে পারে। যদিও মুস্তাফিজের সঙ্গে আমার নিয়মিত কথা হয়। তৃতীয় ম্যাচে তার খেলার কথা ছিল। যখন দেখলাম সে খেলল না, তখন আমার মাথায় এই চিন্তা এসেছিল..! হয়তো এমন কিছু হতে পারে। সবাইকে নিয়ে বসে বের করতে হবে কোথায় সমস্যা।’
তিনি আরো যোগ করেন, ‘ওখান (নিউজিল্যান্ড) থেকে এসেছিল প্রশ্নটা। অন্য জায়গা থেকেও এসেছিল। একজন অভিযোগ করলেই তো আর হবে না। আমাদের ভালো করে জানতে হবে। সবার সঙ্গে কথা বলে এর সত্যতা যাচাই করতে হবে। যদি এমন কিছু হয় তাহলে অবশ্যই পদক্ষেপ নিতে হবে। তবে এখন পর্যন্ত কোনও প্রমাণ পাই নি।’-বাংলা ট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ