মিরাজের মূল লক্ষ্য অভিজ্ঞতা অর্জন

আপডেট: জুলাই ১৯, ২০১৭, ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস মেহেদী হাসান মিরাজকে বলছিলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ বেশ কিন্তু লম্বা জার্নি। প্রস্তুতি নিয়ে যেও।’ মিরাজ উত্তর দিলেন, ‘স্যার আমি গিয়েছি তো। গ্যাটউইক বিমানবন্দর থেকে মনে হয় আট ঘন্টার মতো লাগে। অনূর্ধ্ব-১৯ দলে থাকার সময় একবার গেলাম না… আমরা সিরিজ জিতে আসলাম, মনে নেই?’
পাশ থেকে এক সাংবাদিক মিরাজকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘বিমানের টিকিট কি ওরা দিয়েছে না! বিজনেস ক্লাস না ইকোনোমি।’ মিরাজের বেশ মজার উত্তর, ‘আরে না। শাহরুখ খানের টিমের প্লেয়ার আমি। ইকোনোমি ক্লাস কি দিতে পারে! পাশ থেকে আরেক সাংবাদিক, ‘যাক তাহলে ঘুমাতে ঘুমাতে যেতে পারবেন।’
পাঠকরা হয়তো বুঝতেই পারছেন কি নিয়ে এতো আলোচনা। আগামী ২৭ জুলাই জাতীয় দলের অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ উড়াল দিচ্ছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজে। সেখানে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগ ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) অংশ নিবেন মিরাজ। জাতীয় দলের ক্যাম্পে পুরো মনোযোগ থাকলেও মিরাজ এখন রয়েছে সিপিএলের রোমাঞ্চে। সিপিএলে তার দল বলিউড কিং খান শাহরুখ খানের ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স।
তৃতীয় বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে সিপিএলে খেলতে যাচ্ছেন মিরাজ। সাকিব আল হাসান সিপিএলের নিয়মিত মুখ। তামিম ইকবালও খেলেছিলেন একবার। তবে এবার যাচ্ছেন শুধু মিরাজ ও সাকিব। মিরাজের একদিন পর সাকিব ধরবেন ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের বিমান। প্রথমবারের মতো দেশের বাইরে কোনো লিগে অংশ নিতে পেরে মিরাজ বেশ উচ্ছ্বসিত।
রাইজিংবিডির সঙ্গে আলাপকালে নিজের উচ্ছ্বাস ব্যক্ত করেছেন এভাবে, ‘এটা বড় একটা প্রাপ্তি আমার জন্য। ওখানে অনেক বড় বড় ক্রিকেটার থাকবে। তাদের সঙ্গে থাকতে পারা সত্যিই বড় কিছু। আমি এখন ওখানে গিয়ে খেলার অপেক্ষায় আছি।’ মিরাজকে ১৫ আগস্ট পর্যন্ত সিপিএল খেলার অনুমতি দিয়েছে বিসিবি। এ হিসেবে পাঁচ ম্যাচ খেলার সময় পাবেন মিরাজ। সব মিলিয়ে ১৬-১৭ দিন ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের ক্যাম্পে থাকার সুযোগ পাবেন তরুণ তারকা। এ পুরোটা সময় উপভোগ করতে চান মিরাজ।
তার ভাষ্য, ‘বড় বড় ক্রিকেটাররা ম্যাচের আগে-পরে কি করে সেটা দেখার খুব ইচ্ছে। আমি মনে করি এগুলো এখন থেকেই আয়ত্বে আনতে পারলে আমার ক্যারিয়ার আরও বিল্ড আপ হবে। আমাদের মাশরাফি ভাই, সাকিব ভাই, তামিম ভাই, মুশফিক ভাই, রিয়াদ ভাই ওনাদেরটা দেখে জাতীয় দলে থাকার চেষ্টা করি। এবার বাইরের পরিবেশটা সম্পর্কে জানতে চাচ্ছি।’ সিপিএলের তারকা ক্রিকেটাররা যেখানে অনেক অর্থ পাচ্ছেন সেখানে মিরাজের পারিশ্রমিক খুবই সামান্য। তবে এ নিয়ে মাথাব্যাথা নেই। সাকিব আল হাসান মিরাজকে বলেছেন, ‘ওখানে গিয়ে খেলে আয়। বাকিটা পরে দেখা যাবে।’ সাকিবের সঙ্গে অনেকটাই সুর মিলিয়েছেন মিরাজ, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আমার পথ চলা বেশিদিনের নয়। এরই মধ্যে ভালো একটি সুযোগ এসেছে। এখানে টাকা-পয়সা আমি বড় করে দেখছি না। আমার সিপিএলে অংশগ্রহণের মূল লক্ষ্য অভিজ্ঞতা অর্জন। ম্যাচ খেলে কিংবা বাইরে থেকেও আমি সেই অভিজ্ঞতা অর্জন করতে চাই।’ অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড় ব্র্যাড হজের বদলি হিসেবে মিরাজকে দলে ভিড়িয়েছে ত্রিনবাগো। এ দলটিতে মিরাজ সতীর্থ হিসেবে পাচ্ছেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, হাশিম আমলা, ডোয়াইন ব্রাভো, ড্যারেন ব্রাভো, কেভিন কুপার, সুনীল নারিনকে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মিরাজের এ অভিজ্ঞতা দারুণ কাজে আসবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। রাইজিংবিডি

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ