মিষ্টি খান সুগার কমান!

আপডেট: মার্চ ১৬, ২০১৭, ১২:৪১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



ডায়াবেটিক রোগিদের জন্য সুখবর। মিষ্টি খান, সুগার কমান। শুনে চমকে উঠছেন তো? কিন্তু পুরোটাই সত্যি। আধুনিক গবেষণায় বেরিয়ে গেছে চিনির বিকল্প। নারকেলের রস থেকে তৈরি এই চিনি বা গুড়ের নাম নীরা। নারকেল মুচির রস থেকেই তৈরি হচ্ছে সম্পূর্ণ হার্বাল এই প্রোডাক্ট।
আখের গুড়, খেজুর গুড় বা তালগুড়ের সঙ্গে কমবেশি আমরা সকলেই পরিচিত। কিন্তু নারকেল গুড়ের নাম শুনেছেন কখনও? আসুন দেখা যাক কীভাবে তৈরি হচ্ছে এই নারকেল গুড়-
লম্বা মত সবুজ অংশটি নারকেল গাছের ফুল বা নারকেল মুচি। নারকেল মুচির মাথা কাটলেই বেরিয়ে আসে রস। সেই রস জমিয়ে জাল দিয়েই তৈরি হচ্ছে নারকেল গুড়। তৈরি হচ্ছে চিনি। স্বাদেও তোফা।
খেজুর বা আখের গুড় বা চিনি সুগার রোগিদের খাওয়া বারণ থাকলেও , কৃষি বিজ্ঞানীরা বলছেন নারকেল গুড় নীরা কিন্তু নির্ভয়ে খেতে পারবেন সুগার রোগিরা। কারণ নীরায় গ্লাইসেমিক কনটেন্ট থাকে বিপদসীমার অনেকটাই নীচে।
এনার্জি বুস্টার হিসাবেও কাজ করে নীরা।
এবার একটু বুঝে নেওয়া কী এই গ্লাইসেমিক ইনডেক্স?
যে খাবারের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স যত বেশি সে খাবার খেলে ততবেশি রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বাড়বে। রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বেড়ে যাওয়াই সুগার রোগিদের পক্ষে বিপজ্জনক।
গ্লুকোজের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স ১০০
চিনির ৬৮, খেজুর/আখের গুড় ৮৫, আলু ৮৭, নীরা ৩৫।
চিনির বিকল্প বলতে যে স্যাকারিন তাও সম্পূর্ণ নিরাপদ নয়। নীরার গ্লাইসেমিক ইনডেক্স অন্যদের অর্ধেকেরও কম। তাই তাই চিনি বা গুড়ের বদলে নীরাকেই নির্ভয়ে ব্যবহার করতে পারেন সুগার রোগিরা। সুগার থাকবে আপনার কব্জায়।- ২৪ঘণ্টাডটকম