মুখ্যমন্ত্রীর কথাতেই ভরসা, পুকুর ভরাট রুখে দিলেন গ্রামের নারীরাই

আপডেট: জুন ২৫, ২০২৪, ৮:৫৭ অপরাহ্ণ

মুখ্যমন্ত্রীর কথাতেই ভরসা, পুকুর ভরাট রুখে দিলেন গ্রামের নারীরাই
সোনার দেশ ডেস্ক:


সরকারি জমি কোনওভাবেই দখল করা যাবে না। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির এই নির্দেশের পরেও বহরমপুরের কাছেই শিবপুর গ্রামে দিনে দুপুরে ভরাট হয়ে যাচ্ছে একটি বহু প্রাচীন পুকুর। গত ১৫ জুন আজকাল ডট ইনে এই বিষয়ে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর ওই পুকুর ভরাটের কাজ কয়েক দিনের জন্য বন্ধ হয়ে যায়। অভিযোগ ওঠে, মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকাল থেকে ট্রাক্টরে মাটি এনে ফের পুকুর ভরাটের কাজ শুরু হয়েছে।

পুকুরটি প্রকাশ্যে ভরাট হতে দেখেও এতদিন স্থানীয় বাসিন্দারা রাজনৈতিক নেতাদের ভয়ে চুপ করে বসে ছিলেন। কিন্তু সোমবার নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী কড়া বার্তা দেওয়ার পরেই এদিন পথে নামেন গ্রামের বাসিন্দারা। এদিন পুকুর ভরাটের জন্য মাটি আনা হলে গ্রামের নারীরা ট্রাক্টর আটকে দেন।

বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারী এক নারী বলেন, ‘পুকুর ভরাটের কাজে নেতৃত্ব দিচ্ছেন হাতিনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের এক সদস্যা পিংকি বিশ্বাস দাসের স্বামী সুদীপ দাস। উনি এবং আরও কয়েকজন জোর করে পুকুর ভরাটের কাজ করছেন।’ কয়েকদিন আগে প্রশাসন এবং বিএলআরও অফিসের কর্মকর্তারা এসে পুকুর ভরাটের কাজ বন্ধ করে দিয়ে যান। তারপরেও পুকুর ভরাটের কাজ থামেনি। গোটা বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার সুদীপ দাসের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

অন্যদিকে হাতিনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান কৃষ্ণ মাঝি বলেন, ‘বিএলআরও-কে গোটা ঘটনাটি জানানোর পর ওই পুকুর ভরাটের কাজ বন্ধ ছিল। কে বা কারা ওই পুকুর ভরাট’র কাজ আবার শুরু করেছিলো আমার জানা নায়।’
তথ্যসূত্র: আজকাল অনলাইন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ