মুম্বাই হামলায় দোষী সাব্যস্ত আবু সালেমসহ ৫ জন

আপডেট: জুন ১৭, ২০১৭, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ভারতের মুম্বাইয়ে চালানো ধারাবাহিক বোমা হামলার ঘটনায় ষড়যন্ত্র ও সন্ত্রাসী কর্মকা-ে যুক্ত থাকার দায়ে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন মামলার অন্যতম প্রধান দুই আসামি আবু সালেম ও মুস্তফা দোসা। ১৯৯৩ সালের মার্চে মুম্বাইয়ে চালানো এ বোমা হামলার ঘটনায় দায়ের মামলাগুলোর দ্বিতীয় ধাপের বিচার প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে টেরোরিস্ট অ্যান্ড ডিসরাপ্টিভ অ্যাকটিভিটিজ (প্রিভেনশন) অ্যাক্ট বা টাডা কোর্ট শুক্রবার মুম্বাইয়ে এ রায় ঘোষণা করে।
রায়ে তাদের দোষি সাব্যস্ত করা হলেও সাজা আগামী সোমবার ঘোষণা করা হবে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি।
এতে বলা হয়, আবু সালেম ও মুস্তফা দোসার পাশাপাশি আদালত মোহাম্মদ তাহির মার্চেন্ট ওরফে তাহির টাকলা, করিমুল্লাহ খান, রিয়াজ সিদ্দিকী এবং ফিরোজ আবদুল রশিদ খানও দোষি প্রমাণিত হয়েছেন।
১৯৯৩ সালের ১২ মার্চ মুম্বাইয়ের (তখন বোম্বে নামে পরিচিত ছিল) শেয়ার বাজার, একটি জনপ্রিয় সিনেমা হল ও দুটি মার্কেটে সিরিজ বোমা হামলা চালানো হয়, যাতে অন্তত ২৫৭ জন নিহত হয় এবং ৭১৩ জন আহত হন।
এ ঘটনায় ২০০৭ সালে প্রথম ধাপের বিচার প্রক্রিয়ায় ইয়াকুব মেননসহ সাতজনের মৃত্যদ-ের রায় হয়। এরপর উচ্চ আদালতে ঘুরে দ- বহাল থাকায় ২০১৫ সালে ইয়াকুব মেননের ফাঁসি কার্যকর করা হয়।
ইয়াকুবের ভাই ‘টাইগার’ মেমন এবং মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিম মুম্বাই হামলার মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন বলে পুলিশের ধারণা। এ দুইজন আরও কয়েক আসামিকে এখনও ধরতে পারেনি দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। দ্বিতীয় ধাপের বিচারে সালেম ও দোসা হামলার ষড়যন্ত্র ও সন্ত্রাসে জড়িত থাকার দায়ে দোষী সাব্যস্ত হলেন।
এনডিটিভি জানায়, সালেম ২০০২ সালে পর্তুগালে গ্রেপ্তার হওয়ার পর ২০০৫ সালে তাকে ভারতে ফিরিয়ে আনা হয়। আর দোসাকে ফিরিয়ে আনা হয় সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে। গুজরাট থেকে মুম্বাইয়ে অস্ত্র বহন করে নিয়ে যাওয়ায় অভিযুক্ত সালেমের বিরুদ্ধে বলিউড অভিনেতা সঞ্চয় দত্তকেও অস্ত্র দেয়ার অভিযোগ রয়েছে।
মুম্বাই হামলার মামলায় আদালত রাষ্ট্রপক্ষের ৭৫০ জনসহ আরও ৫০ জন প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষ্য নিয়ে এ রায় ঘোষণা করে বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়।
এতে বলা হয়, আবু সালেমসহ অভিযুক্ত তিনজন হামলার ঘটনায় ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো সিবিআইয়ের তদন্ত চলাকালে অপরাধ স্বীকার জবানবন্দিও দেন।
তথ্যসূত্র: বিবিসি বাংলা

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ