বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

‘মুসলিমদের কেন নাগরিকত্ব দেবো?’

আপডেট: December 13, 2019, 1:26 am

সোনার দেশ ডেস্ক


নাগরিকত্ব বিল নিয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন, গোটা পৃথিবী থেকে যদি মুসলমানেরা এসে এ দেশের নাগরিকত্ব চান, তাহলে সেটি দেওয়া সম্ভব নয়। এভাবে চলতে পারে না। আর আমরা মুসলিমদের কেন নাগরিকত্ব দেবো?
রাজ্যসভার অধিবেশনে নাগরিকত্ব বিলের ব্যাপারে সরাসরি এভাবেই কথা বলেন অমিত শাহ। বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) এমন তথ্যই জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।
এর আগে গত সোমবার (৯ ডিসেম্বর) ভারতজুড়ে তুমুল বিতর্কের মধ্যেই লোকসভায় পাস হয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি)। এদিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বিল উত্থাপন করলে এর পক্ষে ভোট পড়ে ৩৩৪টি। আর বিপক্ষে পড়ে ১০৬টি।
পরে বুধবার (১১ ডিসেম্বর) বিলটি রাজ্যসভাতেও পাস হয়। এদিন বিলের পক্ষে ১২৫টি ও বিপক্ষে ৯৯টি ভোট পড়ে। এখন বাকি শুধু রাষ্ট্রপতির সই। তিনি সই করলেই এটি কার্যকর হয়ে যাবে।
বিলটি নিয়ে বিরোধীরা বলছে, এটি সরকারের আগ্রাসী হিন্দুত্ব নীতির পরিচায়ক। যদিও বিজেপির বলছে, দলের ইশতেহার বিলটি আনার কথা ছিল। সেই প্রতিশ্রুতিই রক্ষা করা হয়েছে। অমিত শাহের দাবি, কোনোভাবেই মুসলিম মুক্ত হবে না ভারত।
এদিকে বিলটি ঘিরে ইতোমধ্যেই উত্তপ্ত দেশের উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলো। বিলের ইস্যুতে বিক্ষোভ করছে ভারতের আসাম ও ত্রিপুরা রাজ্যের মানুষ। যার জেরে বুধবার সেখানে বিপুল পরিমাণ সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।
ইতোমধ্যে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি) প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে মোদী সরকারকে একাধিক খোলা চিঠি দিয়েছেন ভারত ও অন্য দেশের লেখক, বিজ্ঞানী, সমাজকর্মী, শিক্ষাবিদ, অভিনয় শিল্পীসহ সব পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।
বিলটিতে ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন সংশোধন করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আফগানিস্তান, বাংলাদেশ ও পাকিস্তান থেকে যাওয়া হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পারসি ও খ্রিস্টান অবৈধ অভিবাসীদের যাতে ভারতের নাগরিকত্ব দেয়া যায়, এ হিসেবেই এ সংশোধনী।
তথ্যসূত্র: বাংলানিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ