মৃত্যুদন্ড দিতে বিষাক্ত ইঞ্জেকশন প্রয়োগ, তারপরেও বেঁচে গেলেন অভিযুক্ত আসামি

আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০২২, ৭:৫৫ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


তিনটি হত্যাকান্ডের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা অ্যালান ইউজিন মিলারকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছিল আদালত।

জেল কর্তৃপক্ষের আদেশ অনুযায়ী, অ্যালানকে মৃত্যুদন্ড দেওয়ার কথা ছিল বিষাক্ত ইনজেকশন প্রয়োগের মাধ্যমে । কিন্তু অবাক হওয়ার বিষয় ইঞ্জেকশন আসামির শরীরে প্রবেশ করলেও তাঁর মৃত্যু হয়নি। জানা গিয়েছে আসামি অ্যালান স্বাভাবিকের থেকে অনেকটাই মোটা। তাঁর শরীরে শিরা খুঁজে বের করতে বেশ নাকাল হতে হয়েছিল জেল কর্মকর্তাদের। অনেক কষ্টে শিরা খুঁজে ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে শরীরে বিষ প্রবেশ করিয়ে কর্মকর্তারা অ্যালানের মৃত্যুর অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু সেই বিষ শরীরে প্রবেশ করতেই যন্ত্রণায় কাতরাতে শুরু করেন অ্যালান। যন্ত্রণাহীন মৃত্যু নিশ্চিত করতে আরও দুটি ইঞ্জেকশন অপরাধীর শরীরে প্রবেশ করানো হয়। কিন্তু সেটা কাজ না করায় যন্ত্রণায় কাতরাতে থাকেন অ্যালান।

অ্যালানের আইনজীবীর অভিযোগ, ইনজেকশন প্রয়োগের কারণে অ্যালান প্রচন্ডমানসিক এবং শারীরিক যন্ত্রণা অনুভব করেছেন। আর তাই কোনোভাবেই আর ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে বিষ প্রয়োগ করে তাকে মৃত্যুদন্ড দেওয়া যাবে না।আদালতের পক্ষ থেকে জানানো এরপর জানানো হয়, অ্যালানকে আর বিষ প্রয়োগ করে মৃত্যুদন্ডদেওয়া হবে না। অ্যালানকে নতুন উপায়ে মৃত্যুদন্ডদেওয়ার কথা ভাবছেন জেল কর্তৃপক্ষ। তাদের তরফে জানানো হয়েছে, বিষাক্ত নাইট্রোজেন হাইপোক্সিয়া গ্যাস প্রয়োগ করে তাঁকে শাস্তি দেওয়া হবে।
তথ্যসূত্র: আজকাল

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ