‘মেসিকে জখম করাটাই থাকে রিয়ালের চেষ্টা’

আপডেট: এপ্রিল ২৬, ২০১৭, ১২:৪০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



কাসিমিরো খুব চেষ্টা চালিয়ে গেছেন বদলি হয়ে মাঠ ছাড়ার আগ পর্যন্ত। কড়া ট্যাকলও করেছেন বেশ কয়েকবার। বল নিয়ে এগোতে গেলেই লিওনেল মেসিকে আটকাতে চেয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদ মিডফিল্ডার। আর্জেন্টাইন খুদে জাদুকরের জাদুতে খেই হারিয়ে ফেললে আবার শারীরিক শক্তি প্রয়োগ করেছেন তিনি।
তবে সের্হিয়ো রামোস ছাড়িয়ে গেলেন সবকিছুকে! যেভাবে পা চালিয়েছিলেন মেসির ওপর, সেটা রেফারির কাছে ছিল গুরুতর ‘অপরাধ’। তাই সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় রিয়াল অধিনায়ককে। আর রেফারির সিদ্ধান্ত যে সঠিক ছিল, তাতে পূর্ণ সমর্থণ আছে ফাবিও ক্যাপেলোর। ওই ফাউলের দৃশ্যটি সামনে ইতালিয়ান কোচের মন্তব্য, ‘‘সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর ‘এল ক্লাসিকো’তে রিয়ালের চেষ্টাই থাকে মেসিকে জখম করার।”
‘ফক্স স্পোর্টস ইতালি’র ধারাভাষ্যকার হিসেবে ‘এল ক্লাসিকো’র পুরো ম্যাচ দেখেছেন ক্যাপেলো। তাই রামোসের লাল কার্ড ও মেসির ফাউল শিকারের বিষয়ে কথা বলতে পারলেন সাবলীলভাবে। তার মতে, ‘সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর প্রত্যেকটা ক্লাসিকোতে মাদ্রিদের খেলোয়াড়রা চেষ্টা করে মেসিকে জখম করার। এই ধরনের ফাউলে লাল কার্ড হওয়াই উচিত।’ রামোসের ফাউলকে ‘গুরুতর অপরাধ’ হিসেবে উল্লেখ করলেন রিয়ালকে দুটি লা লিগা জেতানো এই কোচ, ‘আপনি ফাউলটা দেখুন না, দেখুন কিভাবে ট্যাকল করেছে। এটা গুরুতর অপরাধ, এই খেলোয়াড়ের (রামোস) অবশ্যই লাল কার্ড পাওয়া উচিত।’
পেপেকে নিঃসন্দেহে খুব মিস করেছে রিয়াল। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার বিপক্ষে খেলা হলেই যে পর্তুগিজ ডিফেন্ডারের ওপর দায়িত্ব থাকে মেসিকে সামলানোর। আর সেটা যতটা না ডিফেন্সের চাতুরতায়, তার চেয়ে বেশি শারীরিক শক্তি প্রয়োগ করে। তবে তিনি না থাকলেও তার সতীর্থরা মেসিকে আটকানোর জন্য সব ধরনের চেষ্টাই চালিয়ে গেছেন। কনুই দিয়ে আঘাত করে মেসির রক্ত ঝরিয়েছেন মার্সেলো। কড়া ট্যাকলে হলুদ কার্ড দেখেছেন কাসিমিরো ও মাতেও কোভাচিচ। আর রামোস তো লাল কার্ডই দেখেছেন মারাত্মকভাবে ফাউল করায়। মার্কা,বাংলা ট্রিবিউন