মেয়রের ত্রাণ তহবিলে মাটির ব্যাংকে জমানো ও প্রজেক্ট শোকেজিংয়ের পুরস্কারের অর্থ দিয়েছে তিন ভাই-বোন

আপডেট: June 1, 2020, 10:05 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:


সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের হাতে অনুদানের অর্থ তুলে দেয় তিন ভাই-বোন- সোনার দেশ

করোনা নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কর্মহীন ও নিম্ন আয়ের মানুষের সহায়তায় রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের আহ্বান সাড়া দিয়ে এবার একটি প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জনের পুরস্কার ও দীর্ঘদিন মাটির ব্যাংকে জমানো অর্থ দিয়েছে তিন ভাই-বোন। সোমবার (০১ জুন) রাত আটটায় নগর ভবনে মেয়রের হাতে নিজেদের অনুদানের অর্থ তুলে দেয় তারা।
তারা হলো রাজশাহী ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড স্কুল এন্ড কলেজের ৮ম শ্রেণির ছাত্র সাদমান সাকিব, বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজির ২য় বর্ষের ছাত্রী নোশিন আতিয়া (জেসিন) ও নিশাত শামা (ফারিন)। তারা উশহর নিবাসী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মেহেদী হাসান (হাসান) ও খোদেজা খাতুন দম্পতির সন্তান। সাদমান সাকিব দীর্ঘ ৫ বছর যাবৎ নিজের মাটির ব্যাংকে জমানো অর্থ এবং জেসিন ও ফারিন কুয়েটের হার্ডওয়ার এর উপর প্রজেক্ট শোকেজিং এর প্রথম পুরস্কারের অর্থ মেয়রের তহবিলে জমা দেন। অসহায় মানুষের সহায়তায় এই তিন শিক্ষার্থীর এগিয়ে আসার ঘটনায় অভিভূত মেয়র। এটিকে মানবিকতার দৃষ্টান্ত ও উদাহরণ উল্লেখ করেছেন তিনি।
বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মেহেদী হাসান বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে কর্মহীন ও নিম্ন আয়ের অসহায় মানুষকে অব্যাহতভাবে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন মাননীয় মেয়র মহোদয়। ত্রাণ তহবিল গঠন করে নগরবাসীকে সহযোগিতার আহ্বানও জানিয়েছেন। মেয়র মহোদয়ের আহ্বান সাড়া দিয়ে তার ছেলে-মেয়েরা ত্রাণ তহবিলে তাদের অর্থ জমা দিয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ১৪ এপ্রিল এক বিবৃতিতে কর্মহীন ও নিম্ন আয়ের মানুষদের জন্যে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ত্রাণ তহবিলে নগদ অর্থ/ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য প্রদানের আহ্বান জানান মেয়র। এরপর মেয়রের আহ্বান সাড়া দিয়ে এগিয়ে আসছেন অনেক ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ