মে মাসেও অনিশ্চিত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ

আপডেট: জুলাই ১১, ২০১৭, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


এ বছরের ডিসেম্বরে ঢাকায় হওয়ার কথা ছিল সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। ইন্ডিয়া সুপার লিগের (আইএসএল) কারণে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় এই ফুটবল টুর্নামেন্ট পিছিয়ে চলে গেছে পরের বছর। সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন (সাফ) চ্যাম্পিয়নশিপের নতুন তারিখ নির্ধারণ করেছিল আগামী বছর, ১ থেকে ১২ মে। কিন্তু ওই সময়েও টুর্নামেন্ট আয়োজন নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। সাফের মার্কেটিং এজেন্ট লাগারদের স্পোর্টস মে মাসে এ টুর্নামেন্ট আয়োজনে তেমন আগ্রহী নয়। টুর্নামেন্টের তারিখ এবং অন্যান্য বিষয়ে আলোচনা করতে সোমবার রাতে ঢাকায় আসার কথা ওই প্রতিষ্ঠানের ৪ সদস্যের প্রতিনিধি দল।
সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক হেলাল বলেছেন, ‘ওই সময় এএফসি কাপের খেলা আছে। লাগারদের মনে করছে, মে মাসে টুর্নামেন্ট হলে কোনো কোনো দেশ পূর্ণশক্তির দল নাও পাঠাতে পারে। তাতে টুর্নামেন্টের মান কিছুটা কমতে পারে আশঙ্কা করে মার্কেটিং এজেন্ট মে মাসের বিকল্প ভাবছে।’
মে মাসে না হলে টুর্নামেন্ট কোন মাসে মাঠে গড়াতে পারে? আনোয়ারুল হক হেলাল নিশ্চিত কিছু বলতে পারেন নি ‘আসলে মার্কেটিং এজেন্টের কিছু পর্যবেক্ষণ আছে। মে মাসের আগেতো সম্ভব নয়। আবার পরের মাসে রমজান শুরু। রমজানের পর আবার জুন-জুলাইয়ে বিশ্বকাপ। সব কিছু বিবেচনা করেই একটা সময় বের করা হবে। আগস্টে নেপালে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপের সময় সাফের নির্বাহী কমিটির সভা করব। ওই সভায় ঠিক করা হবে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের তারিখ।’
এ সময় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম ও চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজনের পরিকল্পনা ছিল। তবে দুই ভেন্যুতে টুর্নামেন্ট করতে অনাগ্রহী লাগারদের। ঢাকা হোক কিংবা চট্টগ্রামে-তারা এক জায়গায় টুর্নামেন্ট করতে চায় বলে জানিয়েছেন আনোয়ারুল হক হেলাল। সেক্ষেত্রে চট্টগ্রামে খেলা হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।
লাগারদের যে চার কর্মকর্তা আসছেন ঢাকায় তারা বুধবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম পরিদর্শন করবেন। সাফের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এবং বাফুফের সঙ্গে সভা করবেন তারা। এর পাশপাশি ঢাকায় কয়েকটি স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও তাদের আলোচনা করার কথা রয়েছে মার্কেটিং এজেন্টের কর্মকর্তাদের।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ