মোস্তাফিজের কাছে এই ম্যাচে জয় অসম্ভব না

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৭, ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


দিন বাকি আর দুটি। মাথার ওপর বৃষ্টির শঙ্কা। বুধবার চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম সেশনটা খেয়েছে ওই বৃষ্টি। তবে এরপরই বাকি দুই সেশনে আঘাতের পর আঘাতে অস্ট্রেলিয়াকে বিপর্যস্ত করে ছেড়েছেন টাইগাররা। আগের দিন ম্যাট রেনশর উইকেট নিয়েছিলেন। আর এদিন আইপিএল অধিনায়ক ও এই সিরিজে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া আইপিএল অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে শিকার করেছেন। অফ ফর্মের ম্যাথু ওয়েডকেও স্বস্তায় তুলে নিয়েছেন। সকালেই মোস্তাফিজুর রহমান চান শুরুতে শেষ হেয় যাক অস্ট্রেলিয়া। ৩৭৭/৯ থেকে অল আউট হোক দেখতে না দেখতে। তারপর? বাকি দুই দিনে জয় তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ২ ম্যাচের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করাও ‘অসম্ভব না’।
তৃতীয় দিন শেষে যেখানে দাঁড়িয়ে আছে ম্যাচ, তাতে বাংলাদেশ কি জিততে পারবে বা ড্র করতে পারবে? এমন প্রশ্নে বুধবার তৃতীয় দিনের শেষে বার্থ ডে বয় ফিজের উচ্চারণ, ‘এখনো দুই দিন আছে। যদি আমরা খুব ভালো করতে পারি, তাহলে অসম্ভব কিছু না।’
ফিজ কথা বলেন কমই। ছোটো খাটো জবাবে কাজ সেরে ফেলেন। তবে এই ম্যাচে তার যে একটা প্রভাব পড়েছে বেশ তা তো সবারই জানা। এটি কি বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের সাথে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ব্যক্তিগত ব্যর্থতার পর নিয়মিত কাজ করার ফল? মানে এই ৩ উইকেট? নতুন শেখা ব্যাপারগুলোই কি ২২তম জন্মদিনে আরো বেশি কাজে লাগালেন জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে? ‘আমি অল্প কয়েকদিন প্র্যাক্টিস করেছি। এখনো ওইভাবে পুরোটা করা হয়নি। ফিফটি-ফিফটি।’
তবে আরে একটি কথায় পরিষ্কার বিস্ময় বোলারের মনে নিজেকে আবারো বিস্ময়কর করে তোলার পণটা আছে, তাই পরিকল্পনা পাল্টেই হাঁটছেন, ‘এখন আমার চেষ্টা থাকবে নতুন একটা ভেরিয়েশন নিয়ে কাজ করতে হবে। আগে কাটার ছিলো। এখন নতুন কিছু করতে হবে।’ সেই নতুনটা কি? রহস্যটা থাকুক না মোস্তাফিজেরই কাছে।