মোহনপুরে আউশ চাষে ব্যস্ত কৃষক

আপডেট: জুলাই ৬, ২০১৭, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ

মোস্তফা কামাল, কেশরহাট


মোহনপুরে নতুন রোপণকৃত আউশ ধান -সোনার দেশ

একাধিক ফসলের জন্য প্রসিদ্ধ রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলা। এ উপজেলায় বিভিন্ন রকমের ফসলের মতো আউশ ধানের চাষ হয়ে থাকে। এখন আউশ ধান রোপণের উপযুক্ত মৌসুম। আষাঢ়ের বৃষ্টির পাশাপাশি সেচ পাম্পের মাধ্যমে আউশ চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন এখানকার কৃষকরা। চলতি মৌসুমে প্রায় ছয় হাজার হেক্টর জমিতে আউশচাষের সম্ভাব্য লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানায় উপজেলা কৃষিসম্প্রসারণ অধিদফতর।
সরোজমিন জানা গেছে, ছোট আয়তনের মোহনপুর উপজেলার প্রায় সবস্থানেই আউশধানের চাষ করা হয়ে থাকে। এসব এলাকার মধ্যে কেশরহাট পৌর এলাকার মগরা বিল, পশ্চিম বিল, রায়ঘাটি ইউনিয়নের হাটরা কালতলা বিল, শরমইল বিল, ঘাসিগ্রাম ইউনিয়নের গোছা ও শ্যামপুর বিলসহ জাহানাবাদ, মৌগাছি, ধুরইল ইউনিয়নের বেশকিছু এলাকায় বিভিন্ন জাতের আউশ ধানের চাষ করা হয়ে থাকে। ২০১০ সালে এখানে প্রায় সাড়ে ৮ হাজার হেক্টর জমিতে আউশ ধানের চাষ হলেও সম্প্রতি কিছু প্রতিবন্ধকতার কারণে এর পরিমাণ কমে দাঁড়িয়েছে প্রায় ছয় হাজার হেক্টর। আউশ চাষের পরিমাণ কমে আসার কারণ হিসেবে স্থানীয় কৃষকরা জানায় বিভিন্নস্থানে অপরিকল্পিতভাবে ফসলি জমিতে পুকুর খনন, গোখাদ্যের যোগান বাড়াতে আউশ চাষের পরিমাণ কমিয়ে আমন ধানের চাষ বৃদ্ধি, অধিক বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা ও উজানী পানিতে বন্যায় অনেক সময় আউশ ধান তলিয়ে যায়।
কৃষিবান্ধব সরকারের কৃষিতে নজরদারি বাড়ানো, কৃষিক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের সহয়তা প্রদানসহ বাজারে ধানের ন্যায্য দাম থাকায় অতন্ত গুরুত্বের সঙ্গে আউশ ধান চাষে কৃষকরা আগ্রহ হারা হয়ে পড়ে নি। এক দিকে বাজারে রয়েছে সার-কীটনাশের ব্যাপক সরবরাহ অন্যদিকে ধানের বাজার মূল্য ভালো থাকায় ফসলের মাঠে মাঠে চলছে আউশ চাষের উৎসব। অন্যদিকে উপসহকারী কৃষি অফিসারদের মাঠে মাঠে ঘুরে দিক নির্দেশনা দেয়ায় অনেক কৃষকরা আন্তরিকভাবে আউশ ধান রোপণ করছেন।
আউশ চাষ সম্পর্কে জানতে চাইলে উপজেলার কেশরহাট পৌর এলাকার বাকশৈল গ্রামের কৃষক রেজাউল ইসলাম বলেন, ধানের দাম ভালো, সার কীটনাশক সহজেই মিলছে সেজন্য আউশধানের চাষ করছেন তিনি। চলতি মৌসুমে প্রায় পাঁচ বিঘা জমিতে আউশ ধান রোপণ করবেন ইতোমধ্যে প্রায় তিন বিঘা জমিতে চারা রোপণের কাজ শেষ করেছেন তিনি। গোপইল গ্রামের কৃষক মুনারুল ইসলাম জানিয়েছেন, তিনি প্রায় দুই বিঘা জমিতে আউশধানের চাষ করছেন। বাজারের ব্যাপক সারের সরবরাহ ও কৃষি অফিসারদের নজরদারি থাকায় আমরা আনন্দের সঙ্গে আউশ ধান রোপণের কাজ করছি।
জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রহিমা খাতুন বলেন, মোহনপুর একটি শষ্যভান্ডার এখানে কমবেশি প্রায় সব ফসলের চাষ হয়ে থাকে। অন্যান্য ফসরের মতো আউশ ধান ভালো হয়ে থাকে। প্রতিটি মাঠে মাঠে আউশ ধানের চাষ শুরু হয়েছে। আউশ চাষে অনুকূল আবহাওয়া থাকায় কৃষকরা আগ্রহের সঙ্গে আউশ চাষ করছেন। ফসল ভালো ফলবে বলে আশাবাদী তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ