মোহনপুরে জমজমাট কবুতরের হাট

আপডেট: জুলাই ২৯, ২০২১, ১০:১৮ অপরাহ্ণ

মোস্তফা কামাল, মোহনপুর:


মোহনপুরের কেশরহাটে জমে উঠেছে বিভিন্ন প্রজাতির কবুতরের হাট। সৌখিন ও সখের পেশা হিসেবে কবুতর পালনে উৎসাহি হয়ে উঠছেন যুব সমাজ। হাত খরচের অর্থ সংকুলান করতে লেখাপড়ার পাশাপাশি তারা কবুতর পালনে আগ্রহী ওঠার কথা জানিয়েছেন একাধিক শিক্ষার্থীরা।
সরেজমিন বুধবার (২৮ জুলাই) দুপুরে কেশরহাটের কবুতর হাটায় গিয়ে দেখা গেছে, ক্রেতাবিক্রেতাদের উপস্থিতিতে জমজমাট হয়ে উঠেছে কবুতরের হাট। নানা রং ও নানা প্রজাতির কবুতরের খাঁচায় পসরা সাজিয়ে বসেছেন ব্যবসায়ীরা। অনেকে চাহিদা অনুযায়ি এ খাঁচা ওখাঁচা ঘুরে কিনছেন পছন্দের কবুতর। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন জালালি, গোলা, গিরিবাজ, লোটন, গোবিন্দ নামের স্থানীয় জাতের চাহিদা বেশি। এর পাশাপাশি উন্নত জাতগুলোর অনেক দামের কারণে বেচাকেনা অনেকটা কম হয়। ছোট বাচ্চা ছাড়া অন্য কবুতরের দাম রয়েছে ১০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত। লকডাউনের কারণে মানুষ বেকার থাকার কারণে অনেক মানুষ কবুতর পালনে বেশি আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। এর প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।
এ হাটের আনিস নামের একজন কবুতর ব্যবসায়ি জানান, কেশরহাট অত্র অঞ্চলের মধ্যে অন্যতম কবুতরের হাট। তবে এখানে অনেক বেশি দামের কবুতর বিক্রি হয় কম। ৫শ টাকা থেকে ১০০০ টাকা জোড়ার কবুতর বেচাকেনা খুব বেশি। আমি প্রায় ২০ বছর ধরে কবুতরের ব্যবসা করে আসছি। সম্প্রতি অনেকটায় বেড়েছে কবুতর পালন।
নুর আলম নামে একজন কবুতর ক্রেতার সঙ্গে কথা হলে তিনি জানিয়েছেন, আমি দীর্ঘ দিন ধরে কবুতর পালন করছি। পড়া লেখা শেষ করেছি। এখনও হয়নি চাকরি। বাপের কাছ থেকে টাকা চাইতে পারিনা তাই বাড়িতে কবুতর পালন করি। অনায়াসে চলতে পারি। কবুতর পালন একটি লাভজনক ও জনপ্রিয় পেশা হিসেবে মনে করেন তিনি।