মোহনপুরে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার এক

আপডেট: জুলাই ৩, ২০১৭, ১:০২ পূর্বাহ্ণ

মোহনপুর প্রতিনিধি


রাজশাহী মোহনপুর উপজেলার এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে ধর্ষিত ওই তরুণীর বড় ভাই বাদি হয়ে মোহনপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ১ জনকে আসামি মামলা দায়ের করেন।
পুলিশ ভিকটিমকে গত শনিবার উদ্ধার করে রোববার সকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পরীক্ষার জন্য ভর্তি করে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ধূরইল ইউনিয়নের তরুণী (১৮)-এর সাথে নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলার কটকতলি গ্রামের আতাউর রহমানের ছেলে শরিয়ত হোসেন (২৫) সাথে ৯ মাস পূর্বে মোবাইল ফোনে মাধ্যমে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। প্রেমের সুবাদে গত ১৬ জুন মোবাইল ফোনে ওই তরুণীকে কেশরহাট বাজারে আসতে বলে শরিয়ত হোসেন। শরিয়ত বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ওই তরুণীকে পার্শ্ববর্তী গোড়াগাড়ী উপজেলা খালার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে গিয়ে সে ওই তরুণীকে স্ত্রী পরিচয় দিয়ে খালাতো ভাইয়ের শয়ন কক্ষে একাধিকবার ধর্ষণ করে। সকালে ওই তরুণী বিয়ের জন্য চাপ দিলে শরিয়ত কৌশলে বলে তোমাকে বাড়ি পৌঁছে দিয়ে টাকা পয়সা জোগাড় করে বিয়ে করবো। ওই আশ্বাসের ভিত্তিতে তরুণীকে বাড়িতে রেখে চলে যায়। গত ৩০ জুন শরিয়ত পুনরায় বিয়ের আশ্বাস দিয়ে উপজেলার হাটরা মোড়ে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে ওই তরুণীকে ডেকে নেয় এবং বলে তাকে ঢাকায় নিয়ে বিয়ে রেজিস্ট্র্রি করবে। বিয়ের আশ্বাসে তরুণীকে নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়দের মনে সন্দেহ হয়। তারা শরিয়ত ও ওই তরুণীকে আটক করে মোহনপুর থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করে।
মোহনপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ(ওসি) এমএম মাসুদ পারভেজ জানান, ওই তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে এবং শরিয়তকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ