মোহনপুরে স্ত্রীকে নির্যাতনের পর মেয়েকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা, বাবা গ্রেফতার

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৭, ১২:৩২ পূর্বাহ্ণ

মোহনপুর পৌর প্রতিনিধি


রাজশাহীর মোহনপুরে থানাহাজত থেকে ছাড়া পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন মায়ের কাছ থেকে জোর করে মেয়েকে ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে শাফিকুল ইসলাম বেলালকে (৩৮) আবারো গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে গৃহবধূর বাবা আবু বাক্কার সিদ্দিক বাদি হয়ে মোহনপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, মোহনপুর উপজেলার পাকুড়িয়া গ্রামের মৃত লুৎফর রহমানের ছেলে শাফিকুল ইসলাম বেলালের সঙ্গে ৯ বছর পূর্বে একই উপজেলার সিংহমারা গ্রামের আবু বাক্কার সিদ্দিকের মেয়ে শিউলী বেগমের (৩০) বিয়ে হয়। তাদের ৯ বছরের একটি মেয়ে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে স্বামী শাফিকুল ইসলাম বেলাল নেশা করে প্রতিদিনই মারপিট, মানসিক ও শারিরিক নির্যাতন করে আসছিল। সংসার করা অবস্থায় শাফিকুল ইসলাম বেলাল আবারও দ্বিতীয় বিয়ে করেন। ওই পক্ষের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। শুক্রবার রাতে স্বামী শাফিকুল ইসলাম বেলাল নেশা করে বাড়িতে ফিরে গৃহবধূ শিউলী বেগমকে বেদম মারপিট করে। স্থানীয়রা গৃহবধূ শিউলী বেগমকে উদ্ধার করে মোহনপুর স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করান। মোহনপুর থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ রাতেই শাফিকুল ইসলাম বেলালকে গ্রেফতার করে। সারারাত থানাহাজতে থাকার পর সকালে জোর তদবিরে পুলিশের কাছ থেকে ছাড়া পান শাফিকুল ইসলাম বেলাল।
এরপর গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার সময় শাফিকুল ইসলাম বেলাল তার লোকজন নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন মায়ের কাছ থেকে মেয়েকে জোর করে ছিনিয়ে নেয়ার সময় রোগির অভিভাবকরা তাকে আটক করে। মোহনপুর থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে পুনরায় শাফিকুল ইসলাম বেলালকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে মোহনপুর থানায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম মাসুদ পারভেজ জানান, অসুস্থতার কারণে চিকিৎসার জন্য শাফিকুল ইসলাম বেলালকে পরিবারের জিম্মায় দেয়া হয়েছিল। কিন্তু মেয়ে ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে তাকে পুনরায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ