‘মৌমাছি দাড়ি’তে কিন্তু দিব্যি আছেন যুবক

আপডেট: ডিসেম্বর ৮, ২০১৬, ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



গত নভেম্বর গোটা বিশ্বে চালু হয়েছিল একটি নতুন ট্রেন্ড ‘নো শেভ নভেম্বর’। নভেম্বর গিয়ে এখন ডিসেম্বর। ট্রেন্ড শেষ। কিন্তু দাড়ি নিয়ে কারুকার্যের শেষ নেই। যার মধ্যে নতুন সংযোজন মৌমাছি দাড়ি। মৌমাছিরা আদতে খুব একটা বিপজ্জনক নয়, তাদের ক্ষতি না করলে মানুষেরও ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। নিজের এই বক্তব্যের সমর্থনে মিশরের এক যুবক নিজের গালে বানিয়ে ফেলেছেন ‘মৌমাছি দাড়ি’। পেশায় ইঞ্জিনিয়ার ৩১ বছরের মহম্মদ হাগরাস থাকেন মিশরের মেনোউফিয়ার নীল ডেল্টা প্রদেশের শিবিন এল কম অঞ্চলে। সেখানেই নিজের বাড়িতে মৌমাছির চাষও করেন হারগাস। এই প্রাণীরা সাধারণত মানুষের কোনও ক্ষতি করে না। মিশরবাসীদের সেটা বোঝাতেই এই অভিনব উদ্যোগ। কিন্তু কীভাবে সম্ভব করলেন এই অসাধ্য কাজ?  এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, একটি মৌমাছির দলের প্রধান হল রানী মৌমাছি। আর তাঁকে ঘিরেই তৈরি হয় মৌমাছিদের দল। তাই একটি মৃত রানী মৌমাছির হরমোন বাক্সে ভরে নিজের চিবুকে লাগিয়ে রাখেন হারগাস। আর সেই বাক্সটিকেই ঘিরে থাকে তারই পোষা মৌমাছিদের ঝাঁক। যেটিকে দেখতে দাড়ির মতোই লাগে। গোটা বিশ্বে শরীরে মৌমাছি নিয়ে রাখার প্রতিযোগিতাও হয়। একবার এক কানাডার মডেলের শরীরে মৌমাছির ঝাঁক বসানো দেখেই উদ্বুদ্ধ হন মহম্মদ। যদি শরীরে মৌমাছির ঝাঁক রাখার বিশ্বরেকর্ডটি রয়েছে চিনের এক নাগরিকের কাছে। যিনি নিজের পুরো শরীর মৌমাছি দিয়ে ঢেকে ২০১৫ সালে রেকর্ডটি তৈরি করেন।- আজকাল