ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী চাঁপাই-রাজশাহীর ৫ হাজার ৯৭৪ কেজি আম গেলো ঢাকায়

আপডেট: মে ২৭, ২০২১, ৯:৪৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:


এবছরও ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন আম নিয়ে গেলো ঢাকায়। সেই লক্ষে বৃহস্পতিবার এই স্পেশাল ট্রেনের উদ্বোধন করা হয়। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেনের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। এসময় রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন যুক্ত ছিলেন ভিডিও কনফারেন্সে।
পরে ট্রেন সার্ভিসের পতাকা ও বাঁশি বাজিয়ে উদ্বোধন করেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় তিনি বলেন, ‘আমের মৌসুম শুরু হওয়ায় চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসীকে উপহার হিসেবে এ ট্রেন দিলাম।’ পরে মালবাহী ট্রেনটিতে আম উঠিয়ে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। এর আগে উদ্বোধন উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেল স্টেশনকে নতুন সাজে সাজানো হয়।
পশ্চিম রেলওয়ের প্রধান বুকিং সহকারী আব্দুল মোমিন জানান- এবার প্রথম দিনে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেনে এবার চাঁপাই-রাজশাহীর ৫ হাজার ৯৭৪ কেজি আম গেছে ঢাকায়। চাপাঁইনবাবগঞ্জ থেকে ৯২৫ কেজি, রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ২ হাজার ৪১৯ কেজি ও বাঘার আড়ানী স্টেশন থেকে ২ হাজার ৬৩০ কেজি আম নিয়ে ঢাকা উদ্দ্যেশে ছেড়ে গেছে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন। এছাড়া বিকেল ৪ টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ট্রেনটি রাজশাহীতে আসে। আর রাজশাহী থেকে ৬টায় ঢাকার উদ্দ্যেশে ছেড়ে যায়। পথে আড়ানীতে যাত্রা বিরতি করে আম উঠানো হয়। এই ট্রেনটি সপ্তাহের ৭দিন মাল বহন করবে। ট্রেনটির ৫টি ওয়াগনে আম, শাক-সবজিসহ যে কোনো ধরনের পার্সেল মালামাল বহন করা যাবে।
জানা গেছে, ব্যবসায়ীরা আম ঢাকায় পাঠাচ্ছেন। কুরিয়ারের তুলনায় ট্রেনে অল্প খরচে পাঠানো সম্ভব হচ্ছে। ট্রেনটিতে চাঁপাই থেকে প্রতিকেজি ১ : ৩০ পয়সা ও রাজশাহী থেকে ১:১৭ পয়সা দরে আম নেওয়া হচ্ছে। যেখানে কুরিয়ার সার্ভিসগুলো রাজশাহী থেকে ১০ থেকে ১৫ টাকা দরে ঢাকায় আম পাঠাতে পারছে গ্রাহকরা।
ব্যবসায়ীরা জানান, আম ট্রেনে পাঠালে একদিকে বাঁচবে টাকা, অপরদিকে আম নষ্ট হওয়ার ঝুঁকি কম হবে। ফলে আম বিক্রি করতে সমস্যা হয় না।
বাঘার আম ব্যবসায়ী আবু হানিফ প্রথমদিনে আম পাঠিয়েছেন সাড়ে ৩০০ কেজি। তিনি জানান, কুরিয়ারে আম পাঠালে গাদাগাদিতে নষ্টের সম্ভাবনা থাকে। কুরিয়ারে অনেক সময় আমের উপরে ও ভেতরে দাগ হয়ে যায়। ফলে ক্রেতারা কিনতে চান না। কোনো কারণে পাকা আম পাঠালে সেগুলো কাভার্ড ভ্যানের গরমে নষ্ট বা পেচে যায়। এতে করে লোকসান হয় তাদের। ট্রেনে আম পাঠালে খরচও কম। আবার আমও ভালো থাকে বলে তিনি জানান।
এর আগে চাঁপাই-এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন শিমুল, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসি ইসলাম জেসী, পশ্চিমাঞ্চল জোনের মহাব্যবস্থাপক মিহির কান্তি গুহ, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) সরদার শাহাদাত আলী, জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ, পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মঈনুদ্দিন মন্ডল, সিনিয়র সহ-সভাপতি সাবেক এমপি মুহা. জিয়াউর রহমান, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রুহুল আমীন, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি মো. আব্দুল ওদুদ, চীফ কমার্শিয়াল ম্যানেজার (পশ্চিম) মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ ভুঁঞা, চীফ অপারেটিং সুপারিনটেনডেন্ট মো. শহিদুল ইসলাম, প্রধান যান্ত্রিক প্রকৌশলী কুদরত-ই-খুদা।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলওয়ের সহকারি স্টেশন মাস্টার মো. ওবাইদুল্লাহ জানান, প্রচ- বৃষ্টি হচ্ছে। তাই আম ব্যবসায়ীরা তেমন আসেত পারেনি, তাই স্টেশন থেকে বুক করা হয়। ট্রেন ছাড়ার আঁধা ঘণ্টার আগে বুকিং নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ