যমুনায় পৃথক রেলসেতু হবে : রেলমন্ত্রী ।। ‘কপোতাক্ষ এক্সপ্রেসের’ নতুন কোচ উদ্বোধন

আপডেট: মার্চ ২০, ২০১৭, ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



রাজশাহীতে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেছেন, যমুনা সেতুর ওপর যে রেলব্রিজ আছে তার সঙ্গে প্যারালাল করে আরেকটি রেলব্রিজ নির্মাণ করা হবে। এর নাম হবে বঙ্গবন্ধু রেলব্রিজ। বিএনপিনেত্রী খালেদা জিয়া রেলে আগুন দিয়ে জ্বালাওপোড়াও করেন, আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে রেলের উন্নয়নে পর্যাপ্ত বাজেট বরাদ্দ দেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রেলের উন্নয়নে বাজেট ৫০০ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকা করেছেন।
গতকাল রোববার দুপুরে ভারত থেকে আমদানিকৃত অত্যাধুনিক বগি সংবলিত আন্তঃনগর ‘কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস’ ট্রেনের নতুন কোচ উদ্বোধন উপলক্ষে রাজশাহী রেলস্টেশনে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
রেলমন্ত্রী আরো বলেন, আগামি মাসে দুর্ঘাটনারোধে ৬৫০টি লেভেল ক্রসিঙের উন্নয়ন ঘটিয়ে ১৮০০ লোকবল নিয়োগ দেয়া হবে। বর্তমানে রেলের উন্নয়নে যে প্রকল্পগুলো চালু আছে তা বাস্তবায়িত হলে রেলের উন্নয়নে যুগান্তকারী বিপ্লব ঘটবে।
নির্বাচন প্রসঙ্গে রেলমন্ত্রী বলেন, বিএনপির নেত্রী ক্ষমতায় এসে দেশের ধ্বংস করেন আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়ন ঘটায়। তাই আগামি নির্বাচন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের বিজয় হবে।
উদ্বোধনী সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী মহানগর সভাপতি এএএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরের সাংসদ আব্দুল ওদুদ, রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন, রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার, পশ্চিমাঞ্চলীয় রেলের জেনারেল ম্যানেজার খায়রুল আলম, রাজশাহীর জেলা প্রশাসক কাজী আশরাফ উদ্দিন, জেলা পুলিশ সুপার মোয়াজ্জেম হোসেন ভূঁইঞা, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, সহসভাপতি মীর ইকবাল প্রমুখ।
বক্তব্যে আওয়ামী লীগ নেতা এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন রাজশাহী থেকে কলকাতার সঙ্গে সরাসরি ট্রেন চালুর দাবি জানান। খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। শুধু রেলওয়ে শাখায় না, প্রতিটি সেক্টরেই সরকারের সাফল্য অভূতপূর্ব। শিক্ষা, চিকিৎসা, স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অগ্রগতির সূচক সন্তোষজনক।
খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, জঙ্গিরা আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠার চেষ্টা করছে। কিন্তু জনতা ও পুলিশ-প্রশাসনের কাছে তারা পরাস্ত হচ্ছে। জনতা তাদের রুখে দিচ্ছে। জনগণ এখন শান্তি চায়। এদেশে জঙ্গিবাদের কোনো স্থান নাই।
খায়রুজ্জামান লিটনের দাবির বিষয়ে রেলমন্ত্রী বলেন, পর্যায়ক্রমে সব দাবি পূরণ করা হবে।
এরপর রেলমন্ত্রী আন্তঃনগর ‘কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস’ ট্রেনের নতুন কোচের উদ্বোধন করেন। পরে বিকেল ৩টায় রেলভবনের জিএম চত্বরে রেলওয়ে শ্রমিকলীগের পশ্চিমাঞ্চলীয় সদর দফতর রাজশাহীর দলীয় কার্যালয়ের উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী। এরপর মহান স¦াধীনতা দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য ও নগর সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন । বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। সভাপতিত্ব করেন, রেলওয়ে শ্রমিকলীগের সদর দফতর শাখার সভাপতি মোতাহার হোসেন। সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন, রেলওয়ে শ্রমিক লীগের ওপেন লাইন শাখার সভাপতি জহুরুল ইসলাম।