যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক হামলায় আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চার কর্মকর্তা নিহত

আপডেট: এপ্রিল ৩০, ২০২৪, ১২:৫৯ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যের শার্লটে বন্দুকধারীদের হামলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চার কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন আরও চারজন। স্থানীয় সময় সোমবার (২৯ এপ্রিল) সন্ধ্যায় শার্লট শহরের একটি বাড়িতে গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে গেলে হামলার ঘটনা ঘটে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে। স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, বন্দুক হামলার পর সন্দেহভাজন এক হামলাকারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে তারা। হামলার ঘটনায় দুই সন্দেহভাজন জড়িত ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। কয়েক দশকের মধ্যে মার্কিন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার উপর সবচেয়ে মারাত্মক হামলার একটি এটি। শার্লট-মেকলেনবার্গ পুলিশ প্রধান জনি জেনিংস এক সংবাদ সম্মেলনে জানন, ওই কর্মকর্তারা ইউএস মার্শাল সার্ভিস-নেতৃত্বাধীন টাস্ক ফোর্সের সদস্য ছিল। বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তাদের নিয়ে এই টাস্কফোর্স ঘটনা করা হয়।

তিনি বলেন, বন্দুকযুদ্ধ শুরু হওয়ার আগে অবৈধভাবে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার জন্য একজন অপরাধীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে ওই বাড়িতে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন নিহত ওই কর্মকর্তারা। সন্দেহভাজন এক ব্যক্তি ওই বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে-এমন খবর পেয়ে সেখানে যান তারা। এ সময় বাড়ির ভেতর থেকে কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় বন্দুকধারীরা। পরে তাদেরকে লক্ষ্য করে কর্মকর্তারাও গুলি চালান।

গোলাগুলির এ ঘটনা প্রায় তিন ঘণ্টা স্থায়ী ছিল বলেও দাবি করেন জেনি। গুলি এবং পালটা গুলির শব্দ শুনে সোয়াটের একটি দল সেখানে যায়। এ সময় বাড়ির ভেতরে থাকা এক নারী ও ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরকে নিজেদের হেফাজতে নেন। পুলিশ কর্মকর্তা জনি জেনিংস জানান, তাদের মধ্যে অন্তত একজন পুলিশ কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাড়ির ভেতর থেকে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি রাইফেল পাওয়া গেছে। জনি জেনিংস আরও বলেন, আজ আমরা কিছু বীরকে হারালাম যারা আমাদের সবাইকে নিরাপদ রাখতে কাজ করছিল। আহত চার কর্মকর্তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর।

গোলাগুলির সময় আশপাশের বেশ কয়েকটি স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। এলাকাবাসীদের নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় নিতে বলা হয়েছিল। নিহত কর্মকর্তাদের একজন মার্কিন মর্শাল সার্ভিসের কর্মকর্তা ছিলেন। দুইজন ছিলেন অ্যাডাল্ট কারেকশন ডিপার্টমেন্টের সদস্য।- বাংলাট্রিবিউন