বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

যে কারণে বিমানের আসনের রঙ নীল হয়

আপডেট: January 12, 2020, 1:36 am

সোনার দেশ ডেস্ক


যারা নিয়মিত বিমানযাত্রা করেন তারা নিশ্চয়ই খেয়াল করে থাকবেন বেশিরভাগ বিমানের সিটের রঙ সাধারণত নীল হয়। যে প্রতিষ্ঠানের বিমানই হোক না কেন, বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই আসনগুলোর রং কিন্তু একই থাকে। কিন্তু এর কারণ কি জানা আছে আপনার? বিষয়টি কিন্তু মোটেই কাকতালীয় নয়। এর পেছনে রয়েছে সুনির্দিষ্ট কারণ।
বিমানযাত্রা যতটা সুবিধাজনক, ঠিক ততোটা বিপজ্জনকও। মাঝ আকাশে যাতে কোনোধরনের দুর্ঘটনা যাতে না ঘটে, সেজন্য নিরাপত্তার খুঁটিনাটি খতিয়ে দেখা হয়।
বিমানের আকার কেমন হবে, কোন ধাতু দিয়ে গড়া হবে, এমনকি বিমানের ভিতরের ছোট ছোট অংশগুলো তৈরির সময়েও বিজ্ঞানকে মাথায় রাখা হয়। সে রকমই একটা হলো বিমানের আসনের সিটের রঙ।
বিমানে উঠলে প্রায় সবাই-ই কম-বেশি মানসিক চাপ অনুভব করেন। কারণ আকাশপথে অনাকাঙ্খিত যান্ত্রিক গোলযোগ বা দুর্ঘটনা ঘটলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কারোই কিছু করার থাকে না। এই মানসিক চাপ থেকে যাত্রীদের পরিত্রাণ দিতেই আসনের রঙ নীল করা হয়।
কিন্তু নীল-ই কেন? এই রঙটিকে শান্তির প্রতীক বলা হয়। গবেষণায় দেখা গেছে, মানসিক অস্থিরতা কমাতে সাহায্য করে এই নীল রঙ। সেজন্যই বিমানের আসনের রং সাধারণত নীল করা হয়।
রঙ বিশেষজ্ঞ এবং ৩০ বছর ধরে বিভিন্ন এয়ারওয়েজের বিমানের ইন্টেরিয়ার ডেকারেটিংয়ের কাজ করে এমন একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা নিগেল গোডি বলেন, “আমাদের কাজ আকাশেও যাত্রীদের সুখ স্বাচ্ছন্দ্যের দিকে খেয়াল রাখা। মাঝ আকাশে ওড়ার সময় যাতে যাত্রীরা যাতে কোনো ধরনের মানসিক চাপ অনুভব না করেন সে বিষয়েও নজর রাখতে হয় আমাদের। যাত্রীকে নিরাপত্তা দেওয়া আমাদের কাজ।”
এছাড়াও নীল এমন একটি রঙ যা সহজে নোংরা হয় না। সাদা তো বটেই, অন্য যে কোনো গাঢ় রঙও সহজে নোংরা হয়ে যায়। নীলের ক্ষেত্রে সেটা বোঝা যায় না। নীল রঙের আসন ব্যবহার করার এটিও একটা কারণ।
তবে সব এয়ারলাইন্সই যে নীল রঙের আসন ব্যবহার করে, বিষয়টি ঠিক তেমন নয়। কিছু এয়ারলাইন্স যেমন আবার তাদের আসনের রঙ লাল রাখে। তবে তাদের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে অনেক কম।