যে ৫টি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে না দেওয়াই ভালো

আপডেট: নভেম্বর ৩০, ২০১৬, ১০:৪১ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



সামাজিক মাধ্যম হয়তো অনেকের জন্য বিপজ্জনক জায়গা বিশেষ করে রক্ষণশীল সমাজের নারীদের জন্য। পশ্চিমা সমাজের একজন নারী হয়তো অনেক ছবি সহজেই ফেসবুক, টুইটারের মতো সামাজিক মাধ্যমে তুলে দেবেন। কিন্তু সেই ছবি উত্তর আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য বা দক্ষিণ এশিয়ার একজন নারীর জন্য অনেক সমস্যা তৈরি করতে পারে। খবর বিসিসি বাংলার।
১. জড়িয়ে ধরা : পরস্পরকে জড়িয়ে ধরা ছবি পশ্চিমা দেশগুলো বা অনেক দেশেই হয়তো খুবই স্বাভাবিক একটি ছবি। কিন্তু বিয়ে হয় নি, রক্ষণশীল সমাজের এমন কোনও নারী ছবিটি তার ফেসবুক বা টুইটারে কখনও পোস্ট করবেন না। সম্পর্কটি যদি শেষ পর্যন্ত না টেকে, তাহলে এই ছবিটিই হয়তো তার জন্য লজ্জা এবং হয়রানির কারণ হবে। আবার তার বন্ধু তালিকায় থাকা পরিবারের সদস্য, প্রতিবেশী বা স্বজনদের কাছে ছবিটি গ্রহণযোগ্য নাও হতে পারে।
২. বিয়েতে নাচ : পাকিস্তানের একটি বিয়েতে ছেলে-মেয়েদের একত্রে নাচের ছবি ছড়িয়ে পড়ার পর সামাজিকভাবে তাদের বিচার করে শাস্তি দেয়া হয়। অনেক দেশেই এরকম নাচ হয়ে থাকে। কিন্তু নাচের ছবি বা ভিডিও যখন সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে যায় তখন তাদের জন্য বিশেষ করে নারীদের জন্য বিব্রতকর হয়ে দাঁড়ায়। বিশেষ করে পর্দা প্রথার চল আছে এমন দেশগুলোতে এরকম কোনও নাচের ঘটনা অনেক সময় শাস্তির কারণ হয়ে যায়।
৩. সম্পর্কে আছে : সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করেন রক্ষণশীল দেশগুলোতে এমন অনেকেই কোনও সম্পর্কে জড়িয়ে পড়লেও তারা প্রকাশ্যে তাদের স্ট্যাটাস পরিবর্তন করেন না। এমনকি ইরানের মতো অনেক দেশে এখন বিয়ের আগে একত্রে থাকার চল বাড়লেও প্রকাশ্যে তারা তা ঘোষণা দিতে চান না। এমনকি মধ্যপ্রাচ্য বা দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে অনেকেই এ বিষয়টি পরিবর্তন করেন না, কারণ তারা পরিবারের সদস্যদের জানতে দিতে চান না যে, তারা কোনও সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন।
৪. সূচালো মুখের ছবি : অনেক দেশেই এমন ছবি স্বাভাবিকভাবে গ্রহণ করা হয় না। যারা এমন ছবি পোস্ট করেন তাদের খুব সম্মানের চোখে দেখা হয় না।
৫. যৌন আবেদনময়ী ছবি : রক্ষণশীল সমাজের দেশগুলোতে এমন ছবি সামাজিক মাধ্যমে দেওয়ার ঘটনা খুবই বিরল। আফগানিস্তান বা পাকিস্তানের মতো অনেক এলাকায় এমন ছবির কারণে শাস্তিও পেতে হতে পারে। এমনকি মধুচন্দ্রিমা, দেশে বা বিদেশে সমুদ্রের তীরে বেড়াতে গিয়ে স্বল্প কাপড় পরলেও সেসব ছবি সামাজিক মাধ্যমে তোলা হয় না। কোনও নারী এসব ছবি সামাজিক মাধ্যমে দিলে তিনি সবার আলোচনার বিষয় হয়ে ওঠেন।
এমনকি অনেক রক্ষণশীল দেশে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারী নারীরা তাদের প্রোফাইল পিক হিসেবে নিজের ছবিও ব্যবহার করেন না। অনেকে পর্দা প্রথার কথা চিন্তা করে নিজের ছবি দেন না। আবার অনেকে নিজের ছবি দেওয়া থেকে বিরত থাকেন। কারণ অনেক সময় এসব ছবিও বিকৃত করা হয় বা তার জন্য নানা সমস্যার কারণ হয়ে ওঠে।-বাংলা ট্রিবিউন