রাজশাহীতে একদিনের ব্যবধানে কমলো চার ডিগ্রি তাপমাত্রা

আপডেট: জানুয়ারি ২০, ২০২৪, ১:১৫ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক :


উত্তরের হিমেল হাওয়ায় রাজশাহীতে একদিনে তাপমাত্রা কমেছে চার ডিগ্রি সেলসিয়াস। শুক্রবার আকাশে সূর্যের দেখা পাওয়া গেলেও শনিবার ৯২০ জানুয়ারি) থেকে আবারও আগের রূপে ফিরেছে।

শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) রাজশাহীতে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগের দিন বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) তাপমাত্রা ছিল ১০ দশমিক ৬ ডিগ্রি। শনিবার (২০ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ভোর ছয়টায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সকাল আটটার দিকে রোদের মুখ দেখা গেলেও তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। কুয়াশা আবারও চারিদিকে ঘিরে ফেলে। ঘন কুয়াশা না থাকলেও বইছে হিমেল বাতাস। বেলা ১১টা পর্যন্ত সূর্য দেখা যায়নি। ফলে বেড়েছে শীতের তীব্রতা।

শীতের প্রকোপ বাড়তে থাকায় এ অঞ্চলের জনজীবনে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে। এর আগে, মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল গত ৪ জানুয়ারি ১০ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর গত ৩ জানুয়ারি রাজশাহীতে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিলো ১০ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ১৩ জানুয়ারি রাজশাহী মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল। সেদিন ৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি রেকর্ড করা হয়েছে।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক আবদুস সালাম বলেন, শুক্রবার তাপমাত্রা বাড়লেও শনিবারে তা হঠাৎ করে কমতে থাকে। হিমেল বাতাসের কারণে এমনটা হচ্ছে। বাতাসের আর্দ্রতা আছে শতভাগ। গতিবেগ আছে ৪ নটিক্যাল মাইল। দুয়েকদিনের মধ্যে তাপমাত্রা আবারও স্বাভাবিক হয়ে আসবে। তবে এখন এটাকে মৃদ্যু শৈত্যপ্রবাহ বলা যায়।

তাপমাত্রা আট থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয় তবে সেটাকে ধরা হয় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। তাপমাত্রা এরচেয়ে কমে ছয় থেকে আট ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামলে হয় মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ আর চার থেকে ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে সেটাকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ ধরা হয়। তাপমাত্রা চার ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেলে সেটা হয় অতি তীব্র শৈত্যপ্রবাহ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ