রাজশাহীতে এসেছে করোনার টিকা প্রথম ধাপে টিকা পাবেন ৭ লাখ ২০ হাজার মানুষ

আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০২১, ৮:৫৫ অপরাহ্ণ

তারেক মাহমুদ:


রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় প্রথম ধাপে টিকা পাবেন ৭ লাখ ২০ হাজার মানুষ। এই টিকা প্রয়োগের জন্য জেলায় জেলায় কেন্দ্র ও টিকার বুথগুলো প্রস্তুত করা হয়েছে। এছাড়াও টিকা প্রয়োগের পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে করণীয় বিষয়গুলো মাথায় নিয়ে প্রস্তুতি নিয়েছে রাজশাহী স্বাস্থ্য বিভাগ। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে বিভাগের আট জেলায় একযোগে টিকা প্রয়োগের কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) বিভাগের সব জেলায় টিকা পৌঁছে গেছে করোনার টিকা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাবিবুল আহসান তালুকদার।
বৃহস্পতিবার সোনার দেশকে তিনি বলেন, ‘প্রথম পর্যায়ে রাজশাহী বিভাগের আট জেলার জন্য ৭ লাখ ২০ হাজার ডোজ টিকা বরাদ্দ হয়েছে। শুক্রবার সব জেলায় টিকা পৌঁছে গেছে। সিভিল সার্জন কার্যালয়ের অধিনস্থ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ইপিআই স্টোরে এই টিকা রাখা হয়েছে।’
ডা. হাবিবুল বলেন, ‘আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি বিভাগের আট জেলায় এক সাথে টিকা প্রয়োগ কার্যক্রম চালুর প্রস্তুতি চলছে। তবে সব কেন্দ্র এক সাথে চালু করা হবে না। প্রথম পর্যয়ে জেলা শহরে ও দ্বিতীয় পর্যয়ে উপজেলায় দেয়া হবে। তিনি বলেন, যারা টিকা গ্রহণ করবেন তাদের তালিকা করা হয়েছে। এছাড়াও যারা টিকা প্রয়োগ করবেন ও তাদের সাথে যেসব স্বেচ্ছাসেবী থাকবেন তাদেরও তালিকা হয়েছে। টিকা প্রদানকারি স্বাস্থ্য কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের এক দিনের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। প্রতিটি কেন্দ্রে চারটি বুথে টিকা দেয়া হবে। প্রতিটি বুথে দুইজন স্বাস্থ্যকর্মী ও চারজন স্বেচ্ছাসেবী থাকবে। ডা.হাবিবুল আহসান বলেন, প্রথম ধাপে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা পাবেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। এর পর সাংবাদিক, পুলিশ, আনসার, বিজিবি ও ষাটোর্ধ ব্যক্তিদের টিকা দেয়া হবে। সুরক্ষা অ্যাপসের মাধ্যমে টিকা প্রয়োগের জন্য নির্বাচিত ব্যক্তিকে তার কেন্দ্রের নাম, বুথ, ক্রমিক, তারিখ এবং সময় জানিয়ে দেওয়া হবে।
এদিকে, রাজশাহীর জন্য বরাদ্দ হয়েছে ১৯ কার্টন ভ্যাকসিন। এর মধ্যে জেলার জন্য ১৫ কার্টন ও সিটি করপোরেশন এলাকার জন্য চার কার্টন। প্রতিটি কার্টনে ১২শ ভায়াল থাকবে। একটি ভায়ালে ১০ জনকে টিকা দেয়া হবে। সে হিসেবে রাজশাহীতে প্রথম ধাপে ২ লাখ ২৮ জনকে টিকা দেয়া হবে বলে জানান রাজশাহীর সিভিল সার্জন ডা. কাউয়ুম তালুকদার। তিনি বলেন, শুক্রবার সকালে রাজশাহীতে ১৯ কার্টন ভ্যাকসিন এসে পৌঁছেছে। সেগুলো জেলা ইপিআই স্টোরে রাখা হয়েছে। ডা. কাউয়ুম বলেন, রাজশাহী নগরে চারটি কেন্দ্রে ১৬টি বুথে টিকা প্রয়োগের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। কেন্দ্রগুলো হলো, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সিটি করপোরেশনের নগর ভবন, রাজশাহী পুলিশ লাইন্স হাসপাতাল ও রাজশাহী সেনানিবাস হাসপাতাল।
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বলেন,‘রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে টিকা প্রয়োগের জন্য একটি কেন্দ্র প্রস্তুত করা হয়েছে। চারটি বুথ রেখে সেখানে টিকা দেয়া হবে। এখানে প্রথমে চিকিৎসক ও নার্সসহ স্বাস্থ্য কর্মীদের টিকা প্রয়োগ করা হবে। তাদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তিনি বলেন, টিকা প্রয়োগের পর যদি পাশ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় তাদের চিকিৎসার জন্য রাজশাহী সংক্রমক ব্যাধি হাসপাতাল প্রস্তুত করা হয়েছে। এছাড়াও তাদের চিকিৎসার জন্য রাজশাহীর মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার থেকে নগরীর হোটেল ওয়ারিশনের কনফারেন্স হলে স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। মেডিসিন বিভাগের ২০ জন চিকিৎসক এই টিকার বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিয়েছে। আশা করছি কোনো সমস্যা ছাড়াই আমরা এই টিকা প্রদান কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবো।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ