বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

রাজশাহীতে কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত

আপডেট: October 7, 2019, 1:24 am

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীতে কুমারী পূজা পালন করা হয়-সোনার দেশ

দেবী দুর্গার আরেক নাম কুমারী। সব নারীর মধ্যে মাতৃভাব উপলব্ধি করার জন্যই মহাঅষ্টমীতে কুমারী পূজার আয়োজন করা হয়। শারদীয় দুর্গোৎসবের মহাষ্টমীতে দুর্গাপূজার সবচেয়ে আকর্ষণীয় কুমারীপূজা। একইদিন সন্ধিপূজার মধ্যে দিয়ে দিনটি পালন করছেন সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। দেবী শক্তির বন্দনা ও অসুর বধে অশুভ শক্তি খণ্ডনের প্রত্যয়ে শারদীয় দুর্গোৎসবের এ মহাঅষ্টমী পালিত হচ্ছে রাজশাহীতে।
মহাষ্টমীতে ঢাক-ঢোল বাজছে বিরামহীনভাবে। থেমে থেমে বেজে ওঠছে কাঁসর আর ঘণ্টার শব্দ। রয়েছে মা-মাসিদের ভক্তিধরা উলুধ্বনি। এরইমধ্যে দুপর ১২টার দিকে মণ্ডপে অধিষ্ঠিত হয় ‘কুমারী মা’। তবে সকাল থেকেই নগরের পূজামণ্ডপগুলোয় অঞ্জলি দেয়ার ভিড় লেগেছে ভক্তদের। গতকাল রোববার ভক্তরা উপবাস থেকে মন্দিরে ও মণ্ডপে মণ্ডপে পূজা দেন। সবস্থানেই অভিন্ন চিত্র দেখা যায়।
মহানগরের সাগরপাড়া এলাকার ত্রিনয়নী পূজামণ্ডপে দুপুরে কুমারীপূজা অনুষ্ঠিত হয়। চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী ঐন্দ্রিলা সরকারকে (১১) কুমারী পূজার জন্য মনোনয়ন করা হয়। পরে ভক্তরা পূজা করে। ১৬ বছর ধরে এ মণ্ডপে কুমারীপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এছাড়া নগরের ৪৩৭টি মণ্ডপে এবার শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রত্যাশা, দেবী মর্ত্যে এসেছেন সবার মঙ্গলের জন্য। তিনি জগৎ সংসারের প্রতিটি প্রাণীর মঙ্গল করবেন। এ উৎসবকে নিয়ে তাই হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে আনন্দ ও উদ্দীপনা বিরাজ করছে। অষ্টমীর পূজা শেষে মণ্ডপে মণ্ডপে চলছে পুষ্পাঞ্জলি, উদাত্ত কণ্ঠে স্তোত্রপাঠ। বেলা গড়ালেই সন্ধিপূজা অনুষ্ঠিত হবে। আজ সোমবার মহানবমী। আগামীকাল মঙ্গলবার দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে দুর্গোৎসব।