রাজশাহীতে কৃষিপঞ্জিকার মোড়ক উন্মোচন

আপডেট: জুলাই ২২, ২০২০, ১২:৪১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


‘আমাদের দেশের চাষের জমির ওপরে পৃথিবীর জ্ঞানের আলো ফেলার দিন এসেছে’-রবি ঠাকুরের এই কথা দিয়েই শুরু হয়েছে কৃষিপঞ্জিকার প্রথম পাতার লেখা। রাজশাহীতে মঙ্গলবার সেই কৃষিপঞ্জিকার মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।
পঞ্জিকাটি প্রকাশ করেছে নওগাঁর শাহ্ কৃষিতথ্য পাঠাগার ও জাদুঘর। এর লেখক প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ও রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের শিক্ষক মো. জাহাঙ্গীর শাহ্। মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, দেশে এর আগেও কৃষি পঞ্জিকা প্রকাশিত হয়েছে তবে তা ছিল দপ্তরভিত্তিক। এবার একটি পুর্নাঙ্গ কৃষিপঞ্জিকা প্রকাশিত হলো।
রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের সভাকক্ষে সামাজিক দূরত্ব মেনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত পরিসংখ্যান বিভাগের সাবেক অধ্যাপক পি. কে. মতিউর রহমান। অনুষ্ঠানের শুরুতেই জাহাঙ্গীর শাহ্ পঞ্জিকাটি সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা দেন। অনুষ্ঠানের অন্যান্য বক্তারা বলেন, শুধু কৃষক নয়, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কৃষিবিজ্ঞানি-সবারই এই কৃষিপঞ্জিকার পাঠ করা প্রয়োজন। একজন কৃষককে গবাদি পশুপালন, জমিতে ফসল ফলানো ও মৎস্য চাষের জন্য কখন কোন কাজটি করতে হবে-এই বইয়ে তার সচিত্র বিবরণ রয়েছে। আমাদের আদিম চাষ পদ্ধতি ধাপে ধাপে কীভাবে আধুনিক হয়েছে। এমকি চাষবাসের সর্বশেষ অ্যাপসভিত্তিক প্রযুক্তির ব্যবহারও তুলে ধরা হয়েছে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবিদ তসিকুল ইসলাম, রাজশাহী আঞ্চলিক কৃষি তথ্য কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল কাফি, তানোরের স্বশিক্ষিত কৃষিবিজ্ঞানী নূর মোহাম্মদ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিমেল সায়েন্সেস বিভাগের উপ-প্রধান ভেটেনারি অফিসার হেমায়েতুল ইসলাম, পবা উপজেলার সাবেক প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন, কলেজিয়েট স্কুলের প্রধান শিক্ষক নূর জাহান বেগম, রাজশাহী বেতারের অঞ্চলিক পরিচালক হাসান আখতার, জেলা ক্রীড়া কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামান, জেলা পরিবার পরিকল্পনার সহকারী পরিচালক তসিকুল ইসলাম, শাহ কৃষি তথ্যপাঠাগার ও জাদুঘরের উপদেষ্টা আব্দুর রোকন প্রমুখ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ