রাজশাহীতে কোভিড রোগি ৭৭, সুস্থতা হয়েছেন ১৮ জন

আপডেট: জুন ৮, ২০২০, ১:৪১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগির সংখ্যা ৭ জুন পর্যন্ত ৭৭ জন। এ পর্যন্ত ১৮ রোগি সুস্থতা লাভ করেছে। এ পর্যন্ত ৫৮ জন আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছেন। ১ মার্চ থেকে ৭ জুন পর্যন্ত সময়ে রাজশাহীতে করোনা আক্রান্ত ৩ রোগির মৃত্যু হয়েছে। এদের একজন নওগাঁয় শনাক্ত, রাজশাহী মিশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
সোমবার (৮ জুন ) রাজশাহী সিভিল সার্জন কার্যালয় কর্তৃক প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান হয়।
সূত্র মতে, রাজশাহীতে সবচেয়ে বেশি করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকা ও তানোর উপজেলায়। রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকায় ১৯ জন করোনা রোগি শনাক্ত হয়েছেÑ এর মধ্যে হোম আইসোলেশনে আছেন ১৬ জন এবং প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে মিশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২ জন। সিটি করপোরেশ এলাকায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত একজন নওগাঁয় শনাক্ত হয়ে রাজশাহী মিশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
তানোরেও ১৩ জন কোভিট-১৯ রোগি শনাক্ত হয়েছে। ১ জন সুস্থ হয়েছেন এবং বাকি ১২ জন আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছেন। এরপর পুঠিয়া উপজেলায় ১০ জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। পুঠিয়ায় ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৫ জন এবং বাকি ৫ জন হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছেন। মোহনপুরে ও চারঘাটে ৭ জন করে এবং বাঘায় ৬ জন ও বাগমারায় ৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মোহনপুরে ৪ জন ইতোমধ্যেই সুস্থ হয়েছেন এবং বাকি ৩ জন চিকিৎসাধীন আছেন। চারঘাটের ৮ জনই হোম আইসোলেশনে আছে। এদের ১ জন ঈশ্বরদী, পাবনায় শনাক্ত্ হয়েছে। বাঘায় ১ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং বাকিরা চিকিৎসাধীন আছেন। বাগমারা উপজেলার ৫ জন চিকিৎসাধীন আছেন ও ১ জন ইতোমধ্যেই সুস্থ হয়েছেন। ৫ জন করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে পবা উপজেলায়। পবায় ২ জন সুস্থ হয়েছেন এবং ৪ জন চিকিৎসাধীন আছেন। চিকিৎসাধীন একজন ঢাকা থেকে শনাক্ত হয়েছেন। দুর্গাপুর উপজেলায় ৩ জন কোভিড রোগি শনাক্ত হয়েছে। তিনজনই চিকিৎসাধীন আছেন। গোদাগাড়ী উপজেলায় ১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তিনি চিকিৎসাধীন আছে।
সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্যমতে, এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইন এর সংখ্যা ১ হাজার ৯৪৭ জন এবং ছাড়পত্র পেয়েছেন ১ হাজার ৯১৩ জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৩৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় নতুন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ২ জন। এরা সকলেই রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকায় আছেন। নেত্রকোণা থেকে ২ জন এসেছেন।