রাজশাহীতে দশ তারিখ পর্যন্ত বিএনপির কর্মসূচি স্থগিত নবগঠিত কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্ব

আপডেট: জানুয়ারি ৫, ২০১৭, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



নবগঠিত কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বের কারণে কেন্দ্র ঘোষিত ৫ জানুয়ারির কর্মসূচি পালিত হচ্ছে না রাজশাহীতে। এছাড়া কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বের কারণে রাজশাহীতে ১০ তারিখ পর্যন্ত সমস্ত কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। বিএনপির একাংশের নেতাকর্মীরা বলছেন, তৃণমূল পর্যায়ে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠিত না হওয়া পর্যন্ত এই আন্দোলন চলতে থাকবে। আপাতত আলোচনার মাধ্যমে ১০ তারিখ পর্যন্ত কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। তবে নবগঠিত কমিটির দায়িত্বে থাকা নেতৃবৃন্দ বলছেন, কর্মসূচি পালনের অনুমতি পাওয়া যাচ্ছে না। অনুমতি পেলেই কর্মসূচি পালন করা হবে।
গত ২৭ ডিসেম্বর সাত বছর পর কেন্দ্রীয়ভাবে রাজশাহী নগর ও জেলা বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির শীর্ষ চারটি পদের তিনটিতেই নতুন তিনজন দায়িত্ব পান। নগর বিএনপির সভাপতির পদ থেকে কেন্দ্রীয় বিএনপির উপদেষ্টা ও সাবেক যুগ্ম-মহাসচিব মিজানুর রহমান মিনুকে বাদ দিয়ে কেন্দ্রীয় বিএনপির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের বরখাস্ত হওয়া মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলকে দায়িত্ব দেয়া হয়। জেলায় সাবেক সাংসদ ও জেলা সভাপতি নাদিম মোস্তফাকে বাদ দিয়ে দায়িত্ব দেয়া হয় জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তপুকে। নগর কমিটিতে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়, কেন্দ্রীয় বিএনপির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক শফিকুল হক মিলনকে। তিনি আগের কমিটিতেও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। জেলায় সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয় সাবেক কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মতিউর রহমান মন্টুকে।
এই কমিটি গঠনের পর থেকেই রাজশাহীর বিএনপির দ্বন্দ্ব প্রকট আকার ধারণ করে। কমিটি বাতিলের দাবিতে বিএনপির একাংশ দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝোলানো থেকে শুরু করে চেয়ারপারসন বরাবর চিঠি লেখা হয়। এতে স্বাক্ষর করেন বিএনপির একাংশের নেতাকর্মী ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের বিএনপিপন্থী কাউন্সিলরা। তারা সবাই বিদায়ী সভাপতি মিজানুর রহমান মিনুর ঘনিষ্ঠজন বলে পরিচিত। এরপর কমিটি বাতিলের দাবিতে রাজশাহী বিএনপি রক্ষা কমিটি গঠন করা হয়। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার কমিটি বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলনের ডাক দেয় রাজশাহী বিএনপি রক্ষা কমিটি। কিন্তু তার আগেই সোমবার দিবাগত রাতে নবগঠিত কমিটির নগর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে বিএনপি রক্ষা কমিটির রাতভর বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই বৈঠকে উভয় পক্ষের সিদ্ধান্তে ১০ তারিখ পর্যন্ত কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করা হয়।
বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সভাপতি ও রাজশাহী বিএনপি রক্ষা কমিটির সদস্য সচিব সাইদুর রহমান পিন্টু বলেন, কমিটি নিয়ে ঝামেলার কারণে ১০ তারিখ পর্যন্ত সকল কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে। নবগঠিত কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে আলোচনা করেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাই ৫ জানুয়ারির কর্মসূচি পালিত হচ্ছে না।
বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, কর্মসূচি পালন করার অনুমতি দেয়নি পুলিশ। অনুমতি পেলেই কর্মসূচি পালন করবো। এটা সাত তারিখে পেলে সাত তারিখে কর্মসূচি পালন করা হবে, নয় তারিখে পেলে ৯ তারিখেই কর্মসূচি পালন করা হবে।’ ১০ তারিখ পর্যন্ত কর্মসূচি স্থগিত করার বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, এটা গেট টুগেদারের মতো। ভাইয়ে ভাইয়ে সম্পর্কের অবনতি হলে যেমন গেট টুগেদার করা হয় ওই রকম। আত্মিক সম্পর্ক বাড়ানোর জন্যই বিষয়টি বলা হয়েছে। এটা লিখিত কোনো কথা না।
জেলা বিএনপির সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তপুও বলেন, পুলিশের অনুমতির জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে। অনুমতি পেলে কর্মসূচি পালন করব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ