রাজশাহীতে বজ্রপাতসহ বৃষ্টি এক সপ্তাহে ৭৭ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত

আপডেট: মে ৭, ২০২১, ৯:৩৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


বৈশাখের তাপদাহের মধ্যেই স্বস্তির বৃষ্টির দেখা মিলছে রাজশাহীতে। রমজান মাস হওয়ায় রোজাদারদের মধ্যেও কিছুটা প্রশান্তি ফিরেছে। শুক্রবার (৭ মে) সন্ধ্যার পর বজ্রপাতসহ বৃষ্টির দেখা মিলেছে। স্বস্তির বৃষ্টিতে দাবদাহে থেকে যেন হাফ ছেড়ে বাঁচছেন রাজশাহীবাসী। তবে রাজশাহীর বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টি হলেও তেমন কোনো বৃষ্টিই হয়নি আবহওয়া অফিস এলাকায়। ফলে রাজশাহীতে বৃষ্টি হয়নি। এদিনের বৃষ্টিপাতের পরিমাণ মাপা যায় নি।
আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে, রাজশাহীর ওপর দিয়ে বয়ে চলা মৃদু তাপপ্রবাহের মধ্যে গত এক সপ্তাহের প্রায় ৭৭ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। রাজশাহীর তাপমাত্রার পারদ ওঠেছিলো ৪০ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। এমন পরিস্থিতিতে বৃষ্টির জন্য হাহাকার পড়ে গিয়েছিল। অবশেষে বৃষ্টির দেখা মিলছে। তবে শুক্রবার আবহওয়া অফিস এলাকায় তেমন বৃষ্টি হয় নি।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক এএফএম গাউসুজ্জামান জানান, শুক্রবার ইফতারের আগে থেকেই মেঘের গর্জন ছিলো। সন্ধ্যার পর নগরীর বেশকিছু এলাকায় ভালোই বৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু আবহওয়া অফিস এলাকায় তেমন বৃষ্টি হয় নি। দু-এক ফোঁটা বৃষ্টি দেখা গেছে। যেটা সর্বোচ্চ হয়তো ১ মিলিমিটার।
শুক্রবার রাজশাহীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৫ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনি¤œ তাপমাত্রা ছিল ২২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
এদিকে, বৈশাখের এ বৃষ্টিতে আম, লিচুসহ ফলের ব্যাপক উপকার হবে বলে জানাচ্ছেন কৃষি অফিস। বৃষ্টির কারণে আম, লিচু দ্রুত বড় হবে এবং ঝরে পড়া বন্ধ হবে। রাজশাহী আঞ্চলিক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক সিরাজুল ইসলাম জানান, খরার কারণে আম ঝরে পড়ছিল। আবার আম বড় হওয়ার সময় এখন। আজকের (০৭ মে) বৃষ্টি আমের জন্য খুবই উপকারী। এতে আম দ্রুত বাড়বে এবং ঝরে পড়া বন্ধ হবে। এছাড়া রোগবালাই থেকেও রক্ষা হবে।
তিনি আরো জানান, বোর ধান যেগুলো পেকেছে সেগুলো হয়তো কয়েকদিন পরে কাটতে হবে। কিন্তু এখন উফশী ধান লাগানো হচ্ছে। এই বৃষ্টিতে ধানের উপকার হয়েছে। আম, পাট, তিল ও ভুট্টাসহ অন্যান্য সবজি জাতীয় ফসলের চাষিরাও উপকার পাবেন।