রাজশাহীতে বিশ্ব হার্ট দিবস পালিত

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২২, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


বিশ্ব হার্ট দিবস উপলক্ষ্যে জনসাধারণের সচেতনতা বৃদ্ধিতে শহরের বিভিন্ন স্থানে ফেস্টুন ব্যবহারসহ ৭ হাজার লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ২৯ (সেপ্টেম্বর) ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন রাজশাহী এই কর্মসূচি পালন করেছে।

গণসচেতনতা বৃদ্ধিতে লক্ষ্মীপুর মোড় হতে লক্ষ্মীপুর বাকির মোড়ে ফাউন্ডেশনের নিজস্ব ভবন পর্যন্ত বর্ণাঢ্য র‌্যালি এবং ভবনে সেমিনার ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। হার্ট দিবস উপলক্ষ্যে হৃদরোগ বিভাগ, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল’র সহযোগিতায় ফাউন্ডেশন দিনব্যাপি একটি সুবিশাল হার্ট ক্যাম্পের আয়োজনের মাধ্যমে ৬০ এর অধিক পেসমেকার ইমপ্লান্ট সার্জারি রোগি এবং অ্যারিথমিয়া ও হার্ট ফেইলর রোগীকে সেবা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও ১৫০ জন হৃদরোগী যারা বিভিন্ন কারণে হৃদরোগে ভুগছেন তাদের চেক আপ, চিকিৎসা ও পরামর্শ প্রদান করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন, রাজশাহী ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ-এর একটি অধিভুক্ত সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান। রাজশাহীর কতিপয় বরেণ্য ও দানশীল ব্যক্তিবর্গের আর্থিক সহায়তা এবং উদ্যোগে ১৯৮৪ সালে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম শুরু হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই প্রতিষ্ঠানটি রাজশাহী শহরসহ উত্তরাঞ্চলের জনসাধারণকে হৃদরোগ চিকিৎসাসেবা দানের পাশাপাশি হৃদরোগ প্রতিরোধে গণসচেতনতা সৃষ্টিতে বিভিন্ন কর্মশালা-সেমিনার ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করে যাচ্ছে।

রাজশাহীর বিশিষ্ট শিক্ষক ও সমাজসেবক ডা. আব্দুল খালেকের ১৯৯৪ সালে দানকৃত ৩১.৪৫ শতক জমির উপর সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বে (Public-Private Partnership) সমাজসেবা অধিদপ্তর ও ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন, রাজশাহীর অর্থায়নে “এস্টাবলিশমেন্ট অব ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হসপিটাল, রাজশাহী”- প্রকল্পের আওতায় ১২০ শয্যার একটি সুদৃশ্য ০৫ তলা ভবন ইতিমধ্যে নির্মিত হয়েছে। জুন ২০২৩ এর মধ্যেই ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন, রাজশাহী’র নির্মিত ভবনে সর্বাধুনিক একটি ক্যাথ ল্যাব, যা দ্বারা হার্টের ব্লক নির্ণয়সহ স্টেইনিং করা যাবে। ৮ টি আইসিইউ (ওঈট) বেড, ১০ টি সিসিইউ (CCU) বেড, ৬ টি এইচডিইউ (ICU) বেড, ৬ টি পিসিসিইউ (PCCU) বেড, ০৬ টি ওয়ার্ডে ৫৩ টি জেনারেল বেড, ১৭ টি কেবিন এবং ইমার্জেন্সি বিভাগসহ অত্যাধুনিক মেডিক্যাল যন্ত্রপাতি ও দ্রব্যাদি সংযোজনের মাধ্যমে রাজশাহী অঞ্চলের ধনী-গরীব এবং আর্থিকভাবে অসহায় ও দুঃস্থ মানুষের দীর্ঘ দিনের প্রত্যাশা এই কার্ডিয়াক হাসপাতালটি পূরণ করবে।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন, রাজশাহী লক্ষ্মীপুর মোড়ের হাজী হোটেলের বিপরীতে একটি অস্থায়ী কার্যালয় হতে স্বল্পমূল্যে হৃদরোগ চিকিৎসাসহ সব ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও বিভিন্ন সেবা প্রদান করছে। প্রতি শুক্রবার বিকেল ৫ টা হতে মাত্র ১০০ টাকার বিনিময়ে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দ্বারা চিকিৎসা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

অসহায় ও সহায় সম্বলহীন হৃদরোগীদের জন্য বিনামূল্যে ও বিভিন্ন ছাড়মূল্যে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। জানুয়ারি ২০২১ থেকে ডিসেম্বর ২০২১ পর্যন্ত বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ১৯০২ জন রোগীকে গড়ে ৩০% এবং ৩১৪ জন রোগীকে ১০০% ছাড়ে চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়েছে। জানুয়ারি ২০২২ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ পর্যন্ত ২৮১০ জন রোগীকে ৩০% এবং ১১৭২ জন রোগীকে ১০০% ছাড়ে চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়েছে। তাছাড়া বর্তমানে সকল প্রকার রোগীর জন্য ৩০% এবং ৬৫ বছর ও তদুর্ধ্ব রোগীর জন্য ৪০% ছাড়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

করোনা মহাদুর্যোগে প্রতিষ্ঠানটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসা সেবা এবং অক্সিজেন সিলেন্ডার সরবরাহ করেছে। বলাবাহুল্য বিভিন্ন সংস্থা, সমাজ ও রাষ্ট্রের বিভিন্ন দানশীল ব্যক্তির আর্থিক অনুদান প্রতিষ্ঠানটির আয়ের উৎস। স্বল্প ব্যয়ে এতদাঞ্চলের মানুষের চিকিৎসার জন্য এই কার্ডিয়াক হাসপাতালটির কার্যক্রমের প্রচার ও প্রসারের জন্য আপনার মূল্যবান পরামর্শ ও সহযোগিতা কামনা করছি।

ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলজ:
রাজশাহীতে “বিশ্ব হার্ট দিবস” উপলক্ষে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। শিশু বিভাগের সহকারী রেজিষ্ট্রার ডা. আলী মুস্তাফিজ’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের ল্যাব মেডিসিন এন্ড রেফারাল ল্যাব এর প্রধান প্রফেসর ডা. তারিক-আল-নাসির। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ মোঃ ছানাউল হক মিয়া। “হৃদয়‎‎‎ দিয়ে হোক হৃদয়ের যতœ” শিরোনামে অনুষ্ঠানে শবু key note speaker হিসেবে পুরো সেমিনার পরিচালনা করেন কার্ডিওলোজী বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডাঃ মোঃ আব্দুল খালেক, অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত প্রফেসর ডা. মো. আবু বকর সিদ্দিক, প্রফেসর ডাঃ সাইদ আহমেদ, প্রফেসর ডাঃ মোঃ সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া, প্রফেসর ডাঃ নাজমা আরা, প্রফেসর ডাঃ মো: মতিউর রহমান, প্রফেসর ডাঃ একেএম গোলাম কিবরিয়া ডন, প্রফেসর ডাঃ সুজন আল হাসান, প্রফেসর ডাঃ লায়লা আক্তার, এ ছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন ইন্টার্নী চিকিৎসক ও হাসপাতালের নার্স সহ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের প্রধান সমন্বয়ক প্রফেসর ডাঃ আব্দুল খালেক মানুষের হার্টকে স্বাভাবিক ও সচল রাখতে এবং হৃদরোগ প্রতিরোধে ও তার ঝুঁকি কমাতে সেমিনারে এক গুরুত্বপূর্ন নিবন্ধন উস্থাপন করেন এবং প্রেজেন্টেশন শেষে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন। অনুষ্ঠনের সভাপতি ও কলেজের অধ্যক্ষ উপস্থিত সকলকে বিশ্ব হার্ট দিবসের সেমিনার থেকে মূল শিক্ষা সকলের জীবনে বাস্তবায়ন করতে আহবান জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ