রাজশাহীতে যথাযথ মর্যাদায় বঙ্গমাতার ৯২তম জন্মবার্ষিকী পালিত রত্নগর্ভা বঙ্গমাতা না থাকলেও রেখে গেছেন দেশরত্ন ‘শেখ হাসিনা’

আপডেট: আগস্ট ৯, ২০২২, ১২:৪১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহীতে নানা আয়োজনে বঙ্গমাতার ৯২তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে। দিনব্যাপি আয়োজনের মধ্যে ছিলো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ, আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল।

আলোচনা সভায় বঙ্গমাতার স্মৃতিচারণ করে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে বঙ্গমাতার নাম স্বর্ণাক্ষরে লিখা রয়েছে। বঙ্গমাতার জন্ম না হলে হয়তো শেখ মুজিবের বঙ্গবন্ধু হয়ে ওঠা হয়ে হতো না, আমরা পেতাম না জাতির পিতা, স্বাধীন রাষ্ট্র, নিজস্ব পতাকা, নিজ ভুখ- ও মানচিত্র। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আজীবনের আন্দোলন, সংগ্রাম ও ত্যাগ-তিতীক্ষার অকুন্ঠ সমর্থক ও প্রেরণাদায়ী মহিয়সী নারীর ভূমিকা পালন করেছেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব।

বক্তারা আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর দর্শন ও আদর্শের সঙ্গে সবসময় একাত্ম ছিলেন মুক্তিযুদ্ধে প্রেরণাদাত্রী এই মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা। যিনি নতুন প্রজন্ম বিশেষ করে নারীদের কাছে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। রত্নগর্ভা বঙ্গমাতা না থাকলেও রেখে গেছেন একজন দেশরত্ন- শেখ হাসিনা। যিনি তার মায়ের আদর্শ, চেতনা ও প্রেরণা এবং অদম্য সাহস ধারণ করেই বাংলার মাটি ও জনগণকে ভালোবেসে নিজের সারাটি জীবন দেশের উন্নয়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। তার হাত ধরে দূরদর্শী ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় উন্নীত হয়েছে। শেখ হাসিনার অদম্য চেষ্টায় নিজেদের অর্থায়নে আমরা তৈরি করেছি স্বপ্নের পদ্মা সেতু। তার নেতৃত্বেই দেশ এগিয়ে চলেছে দূর্বার গতিত।

রাজশাহী জেলা প্রশাসন : সকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে রাজশাহী জেলা প্রশাসনের আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিভাগীয় কমিশনার জিএসএম জাফরউল্লাহ্ এনডিসি। এরা আগে জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

আলোচনা সভা শেষে, বঙ্গমাতার ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে রাজশাহীর ৯৫ জন দুস্থ নারীদের বিনামূল্যে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও ৩০ জন দুস্থ নারীর প্রত্যেকে দুই হাজার টাকা করে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়েছে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী রেঞ্জ ডিআইজি আব্দুল বাতেন, আরএমপি’র পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, বাংলাদেশ আওয়ামী রাজশাহী মহানগর সহ-সভাপতি শাহীন আকতার রেনী, রাজশাহী জাতীয় মহিলা পরিষদের চেয়ারম্যান বেগম মর্জিনা পারভিন, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শবনম শিরীন। উপস্থিত ছিলেন, সাবেক প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক জিনাতুন নেসা তালুকদার, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) আবু তাহের মো. মাসুদ রানা, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মো. জিয়াউল হক, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন ও আইসিটি) এএনএম মঈনুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার পরিচালক মো. এনামুল হক, উপ-পরিচালক (স্থানীয় সরকার) শাহানা আখতার জাহান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মুহাম্মদ শরিফুল হকসহ রাজশাহী জেলার বিভিন্ন দফতরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা-কর্মচারীরা।

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ : মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সকাল ১০টায় কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয়ের বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। সকাল ১০.৩০টায় দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন, নগর আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল। বক্তব্য রাখেন, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, ডা. তবিবুর রহমান শেখ, বদরুজ্জামান খায়ের। সঞ্চালনা করেন, উপ-প্রচার সম্পাদক সিদ্দিক আলম। আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল শেষে দুঃস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহীন আকতার রেনী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, রেজাউল ইসলাম বাবুল, যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, আহ্সানুল হক পিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. আসলাম সরকার, মীর ইসতিয়াক আহম্মেদ লিমন প্রমুখ।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ : জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে বেলা ১১ টায় দোয়া ও বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।
রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আমানুল হাসান দুদু’র সভাপতিত্বে সার্বিক পরিচালনা করেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আব্দুল ওয়াদুদ দারা। উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতিমন্ডলী আমানুল হাসান দুদু, অ্যাড. ইব্রাহিম হোসেন, অধ্যক্ষ (অবঃ) মো. আমজাদ হোসেন নবাব এবং জাকিরুল ইসলাম সান্টু প্রমুখ। এছাড়া জেলা আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। দোয়া পরিচালনা করেন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক রেজওয়ানুল হক পিনু মোল্লা।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন : রাজশাহী সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে সকাল সাড়ে ১০টায় নগর ভবন চত্বরে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। প্রথমে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের পক্ষ থেকে কাউন্সিলররা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা শ্রদ্ধা জানান।

এরআগে এক মিনিট নিরবতা পালন ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ও ১৫ই আগস্টের সকল শহিদ, জাতীয় চার নেতা মহান মুক্তিযুদ্ধে সকল শহিদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন, নগরভবন মসজিদের ইমাম হাফেজ আবুল খায়ের।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন, রাসিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আজমীর আহমেদ।

অনুষ্ঠানে রাসিকের প্যানেল মেয়র-৩ ও ১নং সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর তাহেরা খাতুন, ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামাল হোসেন, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম তজু, ১৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন আনার, ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল আলম পল্টু, ৮নং সংরক্ষিত সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর নাদিরা বেগম, ২নং সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর আয়েশা খাতুন, সচিব মশিউর রহমান, প্রধান প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ মোঃ নূর-ঈ সাঈদ, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ড. এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বেলা ১০:৩০ মিনিটে উপাচার্য প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা হলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষে বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। সেখানে অন্যদের মধ্যে উপ-উপাচার্য প্রফেসর মো. সুলতান-উল-ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর (অব.) মো. অবায়দুর রহমান প্রামানিক, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রদীপ কুমার পান্ডে প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পর প্রাধ্যক্ষ পরিষদ, অন্যান্য সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান সেখানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে এদিন সন্ধ্যায় বঙ্গমাতা হলে বঙ্গবন্ধু কর্ণার ‘হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু’ উদ্বোধন ও আলোচনা সভারও আয়োজন করা হয়।

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড : রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের উদ্যোগে সকাল ৯ টায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। সকাল সাড়ে ৯ টায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর হাবিবুর রহমান। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বঙ্গমাতার স্মৃতিচারণ করে বলেন, উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় অনেক দূর এগিয়েছি। তা আজ স্পষ্ট। এখন প্রয়োজনের নিরিক্ষে সামাজিক পটভূমির পরিবর্তন হয়েছে। সেই পরিবর্তনে বঙ্গমাতার ভূমিকা অগ্রগণ্য।

তিনি আরও বলেন, সেই সময়েই আধুনিকতাকে ধারণ করতেন বঙ্গমাতা। তার বাসায় বাদ্যযন্ত্র ছিলো। কলকাতার সঙ্গে যোগাযোগ ছিলো। আধুনিকতার চর্চা করতেন মহীয়সী নারী শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব। শ^াশত বাঙালি পরিবারের মায়ের প্রতিবিম্ব যেমন ছিলো বঙ্গমাতার মধ্যে। তেমনি ছিলো বলিষ্ঠ চেতনা। যা আগামী প্রজন্মের মায়েদের মধ্যে এই শক্তি গথিত করতে হবে। এখানে কোন ছাড় হবে না।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের সচিব হুমায়ুন কবীর, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আরিফুল ইসলাম, উপ-পরিচালক (শিক্ষা ও নিরীক্ষা) বাদশা হোসেন। এসময় বোর্ডের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন। পরবর্তীতে বাদ আছর রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড জামে মসজিদে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শাহাদত বরণকারী সকল শহিদ, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে শাহাদত বরণকারী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মহীয়সী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ সকল শহিদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়ার আয়োজন করা হয়।

বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ : বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) এর উদ্যোগে সকাল দশটায় রাজশাহী শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গণে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশীদ, অতি. প্রধান প্রকৌশলী ড. আবুল কাসেম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (চলতি দায়িত্ব) প্রকৌশলী শরীফুল হক, বিএমডিএ সচিব শরিফ আহম্মেদ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এ.টি.এম মাহফুজুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী শিবির আহমেদ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শহিদুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাক প্রমুখ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুপুর সোয়া ১২টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা ও সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খাঁনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. শংকর কুমার কুন্ডু, সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মনোয়ারা বেগম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এ এম ফজল-ই খুদা, বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষ্যে প্রতিটি পদক্ষেপ ও কার্যক্রম বাস্তবায়নে জাতির পিতার নেপথ্য শক্তি, সাহস ও বিচক্ষণ পরামর্শক ছিলেন বঙ্গমাতা। তিনি রাজনীতির সাথে জড়িত না থেকেও বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সাফল্যে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেন। তিনি ছিলেন দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ, রাজনীতি সচেতন এক মহীয়সী নারী এবং বঙ্গবন্ধুর বন্ধু, দার্শনিক ও পথ প্রদর্শক। বক্তারা আরো বলেন, বঙ্গমাতা কারাগারে বঙ্গবন্ধুর জন্য খাবার নিয়ে যেতেন, আর নেতা-কর্মী ও দলের জন্য নির্দেশনা নিয়ে এসে তাদের কাছে পৌঁছে দিতেন। কর্মী ও কারাবন্দি নেতাদের পরিবারের আর্থিক সহায়তা করতেন। বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে সকল মামলা নিজেই পরিচালনা করতেন। কঠিন সময়ে সংসার পরিচালনা, সন্তানদের লেখাপড়া ও সকল দায়িত্ব পালন করেছেন ধৈর্য এবং সাহসের সাথে।

আরো বলেন, তিনি ছিলেন দলের নেতাকর্মীদের পরম নির্ভরতা ও আস্থার শেষ আশ্রয়স্থল। বঙ্গমাতার জীবন-আদর্শ চর্চার মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম আরো বেশি দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হবে। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফফাত জাহান। এ অনুষ্ঠানে বঙ্গমাতার জীবনের ওপর একটি আলোকচিত্র প্রদর্শন করা হয়। পরে জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে কর্মক্ষম, অসহায় ও অস্বচ্ছল নারীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ১২ জনকে সেলাই মেশিন ও ৭ জনকে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়। অপরদিকে, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা শহরের পাঠানপাড়াস্থ শহিদ মনিমুল হক সড়কের আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনটির সভাপতি আব্দুল আওয়াল গনি জোহার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ফায়জার রহমান কনকের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. শরিফুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক আরিফুর রেজা ইমন, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ তোসিকুল আলম বাবুল, আওয়ামী লীগ নেতা জুবায়ের প্রমুখ। শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবসহ সকল শহিদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে সকালে কোরআনখানি অনুষ্ঠিত হয়।

নাটোর : নাটোর জেলা আওয়ামী-লীগ ও জেলা প্রশাসনের পৃথক কমসূচির মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও বঙ্গবন্ধুর পরিবারের জন্য বিশেষ মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। সংসদ সদস্য রতœা আহম্মেদ, সাবেক প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান ও পৌর মেয়র উমা চৌধুরি জলিসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে, নাটোর জেলা প্রশাসক আয়োজনে আলোচনা সভা ও সেলাই মেশিন বিতরণ করেছেন।

নওগাঁ : এ উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসন সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা, সেলাই মেশিন বিতরণ ও আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসানের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সিভিল সার্জন ডাক্তার আবু হেনা মোহাম্মদ রায়হানুজ্জামান সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কেএমএ মামুন খান চিশতি, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক উত্তম কুমার রায়, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ ইব্রাহীম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মিল্টন চন্দ্র রায়, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর্জা ইমাম উদ্দিন, জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি কায়েস উদ্দিন, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পারভীন আকতারসহ জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা, বিভিন্ন মহিলা সমিতির নেতা, নারী উদ্যোক্তা, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। জাতীয় অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ৮০টি সেলাই মেশিন এবং ৩০ জন মহিলার প্রত্যেককে ১ হাজারা টাকা করে মোট ৬০ হাজার টাকা উপায়-এর মাধ্যমে বিতরণ করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ