রাজশাহীতে শরৎকুমার রায়- এঁর ১৪৭তম জন্মবার্ষিকী পালিত

আপডেট: এপ্রিল ২৩, ২০২৪, ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক:


বরেন্দ্র-অনুসন্ধান-সমিতি ও বরেন্দ্র রিসার্চ মিউজিয়ামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বরেন্দ্র ভূমির কৃতিপুরুষ কুমার শরৎকুমার রায়-এঁর ১৪৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (২২ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় রাজশাহী বাতিঘরে এ সভা অনুষ্ঠিন হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা কবি রুহুল আমিন প্রামাণিক। সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপ-রেজিস্ট্রার এবং লেখক ও গবেষক মো. সফিকুল ইসলাম।
এসময় রাজশাহী বাতিঘরের উপদেষ্টা মো. তাজমুল হোসেন তোজামের সঞ্চালনায় মূখ্য আলোচক ছিলেন, ইতিহাসবিদ ড. তসিকুল ইসলাম রাজা।

এসময় উপস্থিত বক্তারা বলেন, নাটোরের বর্তমান উত্তরা গণভবন ছিল সে সময়ের দিঘাপতিয়ার জমিদার বাড়ি। এই বাড়িতেই শরৎকুমার রায় জন্মগ্রহণ করেন ১৮৭৬ সালের ২২ এপ্রিল। কুমার শরৎকুমার রায় ছিলেন, নাটোরের দিঘাপতিয়ার জমিদার বংশের সন্তান ও দয়ারামপুরের খ্যাতিমান রাজা। তিনি নিজে ও তার বংশের রাজা-মহারাজা-জমিদাররা ছিলেন, ভীষণ বিদ্যানুরাগী ও প্রজাহিতৈষী। তিনি বাংলার ইতিহাস-সংস্কৃতি, বিশেষ করে বরেন্দ্র অঞ্চলের লুপ্ত ইতিহাস-ঐতিহ্য পুনরুদ্ধার ও বিকাশে রেখেছেন কৃতিত্বপূর্ণ অবদান। ‘রাজশাহী অ্যাসোসিয়েশন’, ‘রাজশাহী কলেজ’, ‘রাজশাহী সাধারণ পুস্তকালয়’ (বর্তমান রাজশাহী পাবলিক লাইব্রেরি) ও ‘বরেন্দ্র রিসার্চ মিউজিয়াম’র এই চারটি বুনিয়াদি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তাদের নাম জড়িয়ে আছে নিবিড়ভাবে।

বক্তারা আরো বলেন, রাজশাহীর ‘বরেন্দ্র রিসার্চ মিউজিয়াম’র প্রতিষ্ঠাতা কুমার শরৎকুমার রায় বাংলার ইতিহাসচর্চার এই শ্রেষ্ঠ পাদপীঠ প্রতিষ্ঠা করে ইতিহাসে অমর হয়ে আছেন। বাংলার ইতিহাসের মহান সেবক শরৎকুমার রায় ১৯৪৫ সালের ১২ এপ্রিল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসারত অবস্থায় কলকাতায় মারা যান। তিনি যতদিন বেঁচে ছিলেন, ততদিন তার জীবন আবর্তিত হয়েছিল মিউজিয়ামটিকে ঘিরেই। শরৎকুমারের গড়া এই মিউজিয়ামের বিপুল প্রত্নসম্পদ অতীত বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Exit mobile version