রাজশাহীতে হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশনের দাবি আইনজীবীদের

আপডেট: জানুয়ারি ২৫, ২০১৭, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



উত্তরবঙ্গের মানুষের সুলভে বিচারপ্রাপ্তির জন্য রাজশাহীতে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন অনুষ্ঠিত করার দাবি জানিয়েছেন রাজশাহীর আইনজীবীরা। তারা বলছেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি রাজশাহীতে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য অনূকুল পরিবেশ আছে। এর ফলে উত্তরবঙ্গের ছয় কোটি মানুষের বিচার প্রাপ্তির আশা পূরণ হওয়া সম্ভব।’
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহী আইনজীবী সমিতির হলরুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান রাজশাহী আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দ। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান বিচারপতির কাছে এই দাবি জানান।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী আইনজীবী সমিতির সভাপতি নাজমুস সাদাত, সাধারণ সম্পাদক আফতাবুর রহমান, সমিতির প্রবীণ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী, এসএম এমদাদুর রহমান, আবুল কাসেম, মোজাম্মেল হক, হামিদুল হক, একরামূল হক, লোকমান আলী, এনামুল হক, মকবুল হোসেন, কামরুল মনির, এরশাদ আলী ঈশা, হেলাল উদ্দিন, জমসেদ আলী, আব্দুস সাত্তার, আব্দুল মোত্তালেব প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে আইনজীবী সমিতির সভাপতি নাজমুস সাদাত বলেন, আইয়ুব খানের শাসনামলে রাজশাহীতে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ স্থাপনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল এবং এজন্য সরকার রাজশাহীতে হাইকোর্ট বিল্ডিং নির্মাণের জন্য জমি অধিগ্রহণ করেছিলেন। পরবর্তীতে জটিলতার কারণে এই সিদ্ধান্ত বাতিল হয়। রাষ্ট্রপতি হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদের আমলে রাজশাহী বিভাগের জন্য হাইকোর্টের যে বেঞ্চ হয়েছিল সেটি রংপুরে স্থাপিত হয়েছিল। বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে এক রায়ের মাধ্যমে রাজশাহী বিভাগসহ বাংলাদেশের অন্যান্য বিভাগে প্রতিষ্ঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চগুলো বাতিল হয়ে যায়। তবে সংবিধানের নির্দেশনার আলোকে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বিভাগের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হতে কোনো বাধা নেই। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে হাইকোর্টের অধিবেশন অনুষ্ঠিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। প্রধান বিচারপতি সিলেটে আইনজীবীদের এক সমাবেশে সিলেটেও হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, প্রকৃতপক্ষে বাংলাদেশের জনসংখ্যা এবং মামলার পাহাড় জমে ওঠায় বিচারপ্রার্থী জনসাধারণের বিচার প্রাপ্তি এবং ন্যায়বিচার পাওয়ার আকাক্সক্ষা জীবিতকালে পূরণ  হয় না। তদুপরি বিচার প্রাপ্তির জন্য ব্যয়ের বিবরণ দেয়া বাহুল্য। উত্তরবঙ্গে প্রায় ছয়কোটি লোক বসবাস করেন। রাজশাহী উত্তরবঙ্গের প্রশাসনিক কেন্দ্র হিসেবে প্রশাসনিক, বিচার কার্যে প্রধান শহর বিবেচিত হয়েছে। দীর্ঘকাল থেকে বিভাগীয় বিচারালয়গুলি রাজশাহীতে অবস্থিত হওয়ার কারণে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে রাজশাহীর কোর্ট কাচারিতে আসা এই অঞ্চলের মানুষের স্বভাবজাত। আমরা বিশ্বাস করি রাজশাহীতে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য অনূকুল পরিবেশ আছে। আমরা রাজশাহী আইনজীবী সমিতির সদস্যগণ রাজশাহীতে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন অনুষ্ঠিত করার দাবি জানাচ্ছি। এর ফলে ছয় কোটি মানুষের বিচার প্রাপ্তির আশা পূরণ হওয়া সম্ভব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ