রাজশাহীতে হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন || যৌক্তিক ও সময়োপযোগী দাবিকে স্বাগত জানাই

আপডেট: জানুয়ারি ২৬, ২০১৭, ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ

রাজশাহী আইনজীবী সমিতি সুলভে বিচারপ্রাপ্তির জন্য রাজশাহীতে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন অনুষ্ঠিত করার দাবি জানিয়েছে। সমিতির মতে রাজশাহীতে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য অনূকুল পরিবেশ আছে। এর ফলে উত্তরবঙ্গের ছয় কোটি মানুষের বিচার প্রাপ্তির আশা পূরণ করা সম্ভব।
মঙ্গলবার সমিতির হলরুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। এই সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবেদন দৈনিক সোনার দেশসহ দেশের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়, আইয়ুব খানের শাসনামলে রাজশাহীতে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ স্থাপনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল এবং এজন্য সরকার রাজশাহীতে হাইকোর্ট বিল্ডিং নির্মাণের জন্য জমি অধিগ্রহণ করেছিলেন। পরবর্তীতে জটিলতার কারণে এই সিদ্ধান্ত বাতিল হয়। এরশাদ আমলে রাজশাহী বিভাগের জন্য হাইকোর্টের যে বেঞ্চ হয়েছিল সেটি রংপুরে স্থাপিত হয়েছিল। বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে এক রায়ের মাধ্যমে রাজশাহী বিভাগসহ বাংলাদেশের অন্যান্য বিভাগে প্রতিষ্ঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চগুলো বাতিল হয়ে যায়। তবে সংবিধানের নির্দেশনার আলোকে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বিভাগের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হতে কোনো বাধা নেই। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে হাইকোর্টের অধিবেশন অনুষ্ঠিত করার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে।
রাজশাহী আইনজীবী সমিতির এই দাবি অত্যন্ত যৌক্তিক ও সময়োপযোগী। দরিদ্র মানুষের কাছে বিচার পৌঁছে দেয়ার ক্ষেত্রে এই দাবির গুরুত্ব অপরিসীম। এটা অস্বীকার করা যায় না যে, বিচারের একটি পর্যায় অর্থাৎ উচ্চ আদালতে শরণাপন্ন হওয়া বিচারপ্রার্থী দরিদ্র মানুষের জন্য একরকম অসম্ভব। শুধু তাই নয়- ভিটে-মাটি বিক্রি করে কেউ এ ঝুঁকি নিলেও ওই ব্যক্তি নিঃস্ব হয়ে যায়। রাজধানী কেন্দ্রিক উচ্চ আদালতে গিয়ে বিচার চাইতে না পেরে অসংখ্য মানুষ ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে সেই একই কথার প্রতিধ্বনী উঠেছে। বাংলাদেশের জনসংখ্যা এবং মামলার পাহাড় জমে ওঠায় বিচারপ্রার্থী জনসাধারণের বিচার প্রাপ্তি এবং ন্যায়বিচার পাওয়ার আকাক্সক্ষা জীবিতকালে পূরণ  হয় না। তদুপরি বিচার প্রাপ্তির জন্য ব্যয়ের বিবরণ দেয়া বাহুল্য। উত্তরবঙ্গে প্রায় ছয়কোটি লোক বসবাস করেন। রাজশাহী উত্তরবঙ্গের প্রশাসনিক কেন্দ্র হিসেবে প্রশাসনিক, বিচার কার্যে প্রধান শহর বিবেচিত হয়েছে। দীর্ঘকাল থেকে বিভাগীয় বিচারালয়গুলি রাজশাহীতে অবস্থিত হওয়ার কারণে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে রাজশাহীর কোর্ট কাচারিতে আসা এই অঞ্চলের মানুষের স্বভাবজাত।
রাজশাহী আইনজীবী সমিতির রাজশাহীতে এক বা একাধিক হাইকোর্ট বেঞ্চের অধিবেশন অনুষ্ঠানের দাবির সাথে আমরাও একমত।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ