রাজশাহীতে হিজড়া জনগোষ্ঠীর জীবন মানোন্নয়নে কাজ করার প্রত্যয়

আপডেট: ডিসেম্বর ৪, ২০২৩, ১১:৪২ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক:


হিজড়া জনগোষ্ঠীর জীবন মানোন্নয়নে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন- বন্ধু মিডিয়া ফোরামের সদস্যরা। সোমবার (৪ ডিসেম্বর) নগরীর হোটেল ওয়ারিশানের কনফারেন্স রুমে বন্ধু মিডিয়া ফোরাম বিভাগীয় কমিটির এক সভায় এই প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়।

ইউএসএইড এর ‘সমতা’ প্রোজেক্টের আওতায় রাজশাহীতে মিডিয়া ফোরামের এই বিভাগীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি বিভাগীয় এই সভার আয়োজন করে।

সভায় লিঙ্গ বৈচিত্র্যময় এই জনগোষ্ঠীর মানুষের সামাজিক অন্তর্ভুক্তি ও ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে গণমাধ্যমকর্মীদের ভূমিকা নিয়েও আলোচনা করা হয়।
এসময় উপস্থিত বক্তারা বলেন, তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে রাজশাহীতেও ‘ইউএসএইড সমতা প্রকল্প’ যাত্রা শুরু করেছে, এটা নি:সন্দেহে এই অঞ্চলের হিজড়া সম্প্রদায়ের মানুষের জন্য সৌভাগ্য। কেননা, এই জনগোষ্ঠীর সদস্যরা প্রতিনিয়ত সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে চরম বৈষম্যের শিকার। অবহেলা ও অবজ্ঞাই তাদের ভাগ্য। সরকার হিজড়া জনগোষ্ঠীকে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠী হিসেবে স্বীকৃতি দিলেও তারা বহুলাংশেই মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত।

তবে তারাও সবার সমাজে মত বাঁচার অধিকার চায়, ফিরতে চায় সমাজের মূল স্রোতধারায়। এজন্য রাজশাহীতে সমতা প্রকল্প বাস্তবায়নে এক সাথে কাজ করতে চায় গণমাধ্যমকর্মীরাও। এ সময় হিজড়া সংস্কৃতি পরিবর্তনে ও তাদের শিক্ষা, কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কার্যকর ও সহায়ক ভূমিকা রাখার প্রতিশ্রুতিও দেন ফোরামের সংবাদকর্মীরা।

সভায় হিজড়া সম্প্রদায়ের মানুষকে সমাজের মূল স্রোতধারায় ফেরাতে এবং তাদের নাগরিক অধিকার নিশ্চিতে বন্ধু’র ভূমিকা ও অর্জনসমূহ তুলে ধরেন, সমতা প্রজেক্টের সিনিয়র প্রজেক্ট ম্যানেজার মশিউর রহমান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন- বন্ধু মিডিয়া ফোরামের রাজশাহী বিভাগীয় কমিটির আহ্বায়ক শরীফ সুমন।

এতে বাঁচার আশা সাংস্কৃতিক সংগঠনের সভাপতি মোস্তফা সরকার বিজলীসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া বন্ধু মিডিয়া ফোরামের সাংবাদিকরা সভায় উপস্থিত থেকে তাদের মতামত তুলে ধরে বক্তব্য দেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ