রাজশাহীর আশেপাশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বই উৎসব

আপডেট: জানুয়ারি ২, ২০১৭, ১২:২১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



বছরের প্রথম দিনে রাজশাহীর আশেপাশের সকল প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার স্কুলে স্কুলে এ বই উৎসবে মেতে ওঠেন শিক্ষার্থীরা। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-
বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের ২২২টি বিদ্যালয়ের ৪৪ হাজার শিক্ষার্থীর মাঝে এ বই বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ৪৪টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১০ ভোকেশনাল বিদ্যালয়, ৯টি দাখিল মাদ্রাসাসহ মোট ৬৩টি প্রতিষ্ঠানের ১৮ হাজার শিক্ষার্থীদের মাঝে ১৮ হাজার সেট নতুন বই বিতরণ করা হয়েছে। অপরদিকে ৭৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১০টি কেজি স্কুল, ৫৯টি আনন্দ স্কুল, ব্র্যাক স্কুল ১০টি সহ মোট ১৫৯ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২৬ হাজার শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা হামিদুল ইসলাম আড়ানী মনোমোহীনি উচ্চবিদ্যালয়ে বই বিতরণের উদ্বোধন করেন। বই বিতরণ অনুষ্ঠানে আড়ানী মনোমোহীনি উচ্চবিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মতিউর রহমান মতির সভাপতিত্বে ও সহকারী শিক্ষক কামরুল হাসান জুয়েলের পরিচালনায় বক্তব্য দেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ইয়াকুব আলী, মাধ্যমিক শিক্ষকা কর্মকর্তা আরিফুর রহমান, প্রধান শিক্ষক সঞ্জয় কুমার দাস। পরে আড়ানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি শহীদুজ্জামান শাহীদের সভাপতিত্বে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাড়ে সাত শতাধিক শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রধান শিক্ষক নার্গিস সুলতানাসহ সহকারি সকল শিক্ষকরা।
বাগমারা : বাগমারার স্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মধ্যে নতুন বছরের বই বিতরণের মাধ্যমে বই উৎসবের উদ্বোধন করা হয়েছে। সকালে উপজেলার ভবানীগঞ্জ পৌরসভার চাঁনপাড়াস্থ বঙ্গবন্ধু জাদুঘর কমপ্লেক্স এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রধান অতিথি থেকে স্থানীয় সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক উৎসবের উদ্বোধন করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাছরিন আক্তারের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাকিরুল ইসলাম সান্টু। উপজেলা অ্যাকাডেমিক সুপারভাইজার মুহম্মদ আবদুল মুমীতের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য দেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মীর মস্তাফিজুর রহমান। অনুষ্ঠানে মাধ্যমিক, মাদ্রাসা, এবতেদায়ী, কারিগরি ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে আট লাখ বই বিতরণ করা হয়েছে। বই বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংসদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী গ্রামাঞ্চলে মেধাবী হতদরিদ্র শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষিত করে গড়ে তোলার জন্যই বিনামূল্যে বই বিতরণ কর্মসূচি চালু করেছেন। পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে এই পরিমান বই বিনামূল্যে বিতরণ করা হয় না। কেবলমাত্র শেখ হাসিনার জন্যই সম্ভব হয়েছে।
কেশরহাট : কেশরহাট পৌর এলাকায় এদিন সকালে এ উপলক্ষে কেশরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বই বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুর্শিদা খাতুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান শেষে শিক্ষার্থীদের হাতে এসব বই তুলে দেন প্রধান অতিথি বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও কেশরহাট পৌরসভার প্যানেল মেয়র রুস্তম আলী প্রামাণিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেশরহাট পৌরসভার সংরক্ষিত আসনের নারী কাউন্সিলর মোমেনা বেগম, এক নম্বর ওয়ার্ডের  সাবেক কাউন্সিলর বুলবুল হোসেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য সাহিন আলম, সহকারী শিক্ষক রানা আহম্মেদ, আবদুল জব্বারসহ সকল শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন। অন্যদিকে কেশরহাট উচ্চবিদ্যালয়, বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, ফুলশো উচ্চবিদ্যালয়সহ সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই বিতরণ করা হয়। নতুন বই পেয়ে শিক্ষার্থীরা আনন্দে উল্লসিত হয়ে উঠে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে নতুন পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বই উৎসবে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন, জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল হাসান। এই উপলক্ষে মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি অ্যাড. আনোয়ার হোসেন ডলারের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নবনির্বাচিত জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঈনুদ্দিন মন্ডল, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোখলেসুর রহমান আকন্দ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবদুল কাদেরসহ অন্যরা। এসময় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শামীম আহমেদ খানসহ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  অনুষ্ঠান শেষে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বছরের বই তুলে দেন অতিথিরা। জেলায় এ বছর প্রাথমিক পর্যায়ে জেলায় ১০ লাখ ৮ হাজার ৯৯টি বই ও মাধ্যমিক পর্যায়ে মোট ২৫ লাখ ৭ হাজার ৬শ ৪১টি বই বিতরণ করা হয়েছে।
গোমস্তাপুর : গোমস্তাপুরে ইংরেজি নববর্ষের ১ম দিনে উপজেলার স্কুলগুলোতে বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা সদর রহনপুরের ৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন স্থানীয় সাংসদ গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফেরদৌসী বেগম, উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবদুল গাফফারসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ। উপজেলার ৪৫টি মাধ্যমিক স্কুলের ২৪ হাজার ৪শ জন ও ২৫টি মাদ্রাসার ১৪ হাজার ৩শ জন এবং ১৫০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩৫ হাজার ৪৭ জন শিক্ষার্থী এবার নতুন বই পাবে।
শিবগঞ্জ : শিবগঞ্জে বিনামূল্যে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে বই উৎসব ২০১৭’র উদ্বোধন করেন সাংসদ মোহা. গোলাম রাব্বানী। শিবগঞ্জ সরকারি মডেল হাই স্কুল মাঠে আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন। উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা কল্যাণ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আতাউর রহমান, ভারপ্রাপ্ত প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রিয়াজুল ইসলাম, অ্যাকাডেমিক সুপারভাইজার আবদুল মান্নান, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, আবদুল মজিদ, আবদুল মান্নান, আবু বক্কর সিদ্দিক, মডেল স্কুলের প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান, সিরাজউদ্দৌলা প্রমূখ। উলে¬খ্য, এবছর উপজেলার ৬৩৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়।
ভোলাহাট : ভোলাহাটে এ উপলক্ষে প্রথমেই উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন তেলীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতিনিধি হিসেবে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা ছাত্রছাত্রীদের মাঝে বই বিতরণের উদ্বোধন করেন। এ ছাড়াও উপজেলার তাঁতীপাড়া, কানারহাট মডেল, মুন্সিগঞ্জ, বজরাটেক, খালেআলমপুর, গোহালবাড়ী, পোল্লাডাঙ্গা, ইমামনগরসহ মোট ৪৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় একই সময়ে ছাত্রছাত্রীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রভাষক আনোয়ারুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ডা. লোকমান আলী, নবনির্বাচিত জেলা পরিষদের সদস্য পিয়ারজাহান ও মহিলা সদস্য হোসনে আরা পাখি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডা. আশরাফুল হক চুনু, ইউপি চেয়ারম্যান ইয়াজদানী জর্জ, আবদুল কাদের, মাজহারুল ইসলাম পুতুল ও মশফিকুল ইসলাম তারাসহ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক এবং অবিভাবকরা।
নাচোল : চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে নতুন বছরের শুরুতেই শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যের দুই লাখ ৫৮ হাজার বই তুলে দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৯৩হাজার প্রাথমিক ও ১ লাখ ৬৫ হাজার মাধ্যমিক স্কুল, মাদরাসা পর্যায়ে বিনামূল্যে এসব নতুন বই বিতরণ করা হয়। উপজেলার ৮৭টি প্রাথমিক, ৩০টি মাধ্যমিক, ৫টি নি¤œœমাধ্যমিক ও ১৬টি মাদরাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে ২০১৭ শিক্ষাবর্ষের বিনামূল্যের বই আনুষ্ঠানিকভাবে বিতরণের মধ্য দিয়ে বই উৎসব পালিত হয়েছে। সকাল ১০টায় উপজেলার বেগম মহসিন ফাজিল মাদরাসা, মুন্সী হযরত আলী উচ্চবিদ্যালয়, পাইলট উচ্চবিদ্যালয়, খুরশেদ মোল্লা উচ্চবিদ্যালয়, নাচোল ১নম্বর সরকারি প্রাথমিক ও গুঠইল মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পৃথক পৃথক আয়োজনের মধ্য দিয়ে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষার্থীদের মাঝে ২০১৭ শিক্ষাবর্ষের বিনামূল্যের নতুন বই দেয়া হয়েছে। বই উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল কাদের। অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাশেদ ওয়াসিফ, পৌর মেয়র আবদুর রশিদ খান, ভাইস চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সিদ্দীকুর রহমান, উপজেলা সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দুলাল উদ্দিন খান, অ্যাকাডেমিক সুপারভাইজার গোলাম কিবরিয়া, অধ্যক্ষ মাওলানা ইসাহাক আলী, সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফজলুর রহমান, প্রভাষক মসিউর রহমান, প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম ও সাদিকুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বাইরুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক রাকিবা বেগম, প্রধান শিক্ষক সুফিয়া খাতুন।
নওগাঁ : নওগাঁয় মোট ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ২৯৬টি বই বিতরণের লক্ষমাত্রা নিয়ে বই উৎসব পালিত হয়েছে। এদিন সকালে শহরের ৩টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মাধ্যমিক পর্যায়ে এবং ১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক পর্যায়ের নতুন বই বিতরনের মধ্যে দিয়ে পাঠ্যপুস্তক দিবস উৎসব পালিত হয়। নওগাঁ সদর আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল মালেক নওগাঁ জিলা স্কুল, সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, কেডি সরকারি উচ্চবিদ্যালয় এবং চকএনায়েত মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে বিভিন্ন শ্রেণির নতুন পাঠ্যপুস্তক বিতরণের উদ্ধোধন করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক ড. মো. আমিনুর রহমান এবং চকএনায়েত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার একেএম আমিরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশিদুল হক, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল বারী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল হোসেন, সদর উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার দুলাল আলম, জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম, সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিরঞ্জন কুমার মন্ডল, কেডি স্কুলের প্রধান শিক্ষক নাসরিন বানু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। পরে প্রধান অতিথি ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে নতুন বই উপহার দেন। নওগাঁ জেলার জেলা শিক্ষা অফিসার সিদ্দিকুল ইসলাম জানান, এ বছর জেলায় মাধ্যমিক পর্যায়ে ৪৪ লাখ ৪৭ হাজার ৯২৯টি, দাখিল পর্যায়ে ৬ লাখ ৬৮ হাজার ৪৮০টি, এবতেদায়ী পর্যায়ে ৩ লাখ ১৫ হাজার ৭৭০টি, এসএসসি ভোকেশনাল পর্যায়ে ৫৮ হাজার ৩শটি, দাখিল ভোকেশনাল পর্যায়ে ৩ হাজার ৫০টি এবং ইংরেজি ভার্সন পর্যায়ে ১ হাজার ৪৭৩টি বিতরন করা হবে। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার একেএম আমিরুল ইসলাম জানান, জেলায় প্রাথমিক পর্যায়ে মোট ১৪ লাখ ২ হাজার ২৯৪টি বই বিতরণ করা হবে।
মান্দা : আলোচনা সভা ও উৎসব মুখর পরিবেশে বই উৎসব পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল সকাল ১০টায় মান্দা থানা আদর্শ বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নুরুজ্জামান। কলেজ অধ্যক্ষ আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুস সালাম, প্রেসক্লাব সভাপতি নজরুল ইসলাম, সহকারী প্রধান শিক্ষক অনুপ কুমার মহন্ত, প্রভাষক আমিনুল ইসলাম মন্টু, প্রভাষক আসাদুজ্জামান পিন্টু প্রমুখ। এছাড়া প্রসাদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রেবা আখতার আলিম মাদরাসা, গোটগাড়ী শহীদ মামুন হাইস্কুল ও কলেজ, বুড়িদহ উচ্চ বিদ্যালয়, গাইহানা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইনডেক্স কিন্টার গার্ডেনসহ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বই উৎসব পালন করা হয়েছে। অন্যদিকে ইসলামিক ফাউন্ডেশন পরিচালিত মসজিদ ভিত্তিক প্রাকপ্রাথমিক ও কোরআন শিক্ষা কেন্দ্রগুলোতেও পালিত হয়েছে বই উৎসব।
মহাদেবপুর : বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় একটি ছেলে মেয়েকে শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত করা হবে না। মহাদেবপুরে গতকাল রোববার পাঠ্যপুস্তক বিতরণী উৎসবে সংসদীয় শিক্ষা বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সদস্য ও মহাদেবপুর ও বদলগাছী আসনের সাংসদ ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। সর্বমঙ্গলা (পাইলট) উচ্চবিদ্যালয়ে পাঠ্যপুস্তক বিতরণী উৎসবে বিদ্যালয়ের সভাপতি ও মহাদেবপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান ধলুর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) উম্মুল বানীন দ্যুতি, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আতাউর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একাডেমিক সুপার ভাইজার ফরিদুল ইসলাম, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোশারফ হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক গোলাম নূরানী আলাল ও অজিত কুমার মন্ডল, সাবেক সম্পাদক শহিদুল ইসলামসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, অবিভাবক, ছাত্র-ছাত্রী ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
রাণীনগর : রাণীনগরে বিনামূল্যে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বছরের প্রথম দিন নতুন বই তুলে দেয়া হয়েছে। এ দিন সকালে রাণীনগর বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে এই উৎসবের উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া বিনতে তাবিবের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাংসদ মো. ইসরাফিল আলম। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম আল ফারুক জেমস, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা শহিদুল্লাহ মিঞা, সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হারুনুর রশিদ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শেখ মো. আবদুল্লাহ আল মামুন, সদর ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান পিন্টু প্রমুখ।
বদলগাছী : বদলগাছীতে নতুন বছরের প্রথম দিনে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসব পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল বদলগাছী মডেল পাইল্ট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে বেলা সাড়ে ১১ টায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুরেশ সিংহের সভাপতিত্বে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হুসাইন শওকত ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে নতুন বছরের নতুন বই তুলে দেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ওয়াসির রহমান, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ছানাউল হাবীব, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা ইবুনে সাব্বির আহাম্মেদ, সাংবাদিক এমদাদুল হক দুলু ও সানজাদ রয়েল সাগরসহ স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষিকাবৃন্দ।
ধামইরহাট : এদিন সকাল ১০টায় প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণের আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করেন ইউপি সদস্য গোলাম মোস্তফা। উত্তর চকরহমত দ্বিমুখী দাখিল মাদ্রাসা, কালুপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ধামইরহাট বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে বই বিতরণ করা হয়। ইউপি সদস্য গোলাম মোস্তফা উপজেলার কালুপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খেলূন সরদার ইউপি সদস্য কামাল হোসেন, সহকারী শিক্ষক কামরুন নাহার, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য শাহানাজ বেগম, অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হায়দার আলী, বীরমুক্তিযোদ্ধা রইচ উদ্দিন, দিলদার, বকুল, সাংবাদিক আবদুল্লাহ হেল বাকীসহ বিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ।
ঈশ্বরদী : ভূমিমন্ত্রীর স্ত্রী মিসেস কামরুন্নাহার শরীফ ঈশ্বরদী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্বটেংরি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় ও সাঁড়াগোপালপুর উচ্চবিদ্যালয়ে এই বই বিতরণের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। সাঁড়া ইউনিয়নের সাঁড়া ঝাউদিয়া উচ্চবিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বছরের প্রথম দিনেই বিনামূল্যের বই তুলে দেয়া হয়। বই বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সাঁড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমদাদুল হক রানা সরদার। পাবনা জজ কোর্টের পিপি ও ওই স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট আক্তারুজ্জামান মুক্তা’র সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন পাবনা জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত সদস্য শফিউল আলম বিশ্বাস, সাংবাদিক সেলিম সরদার, স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবদুর রহমান প্রমুখ।
সাঁথিয়া : অ্যাড. সাংসদ শামসুল হক টুকু বলেছেন, নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানাতে হবে। যাতে তারা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস ধারণ করে জ্ঞান সমৃদ্ধ দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে পারে। শিক্ষিত জাতি গড়ার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ সরকারই সর্বপ্রথম শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছে। শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, শিক্ষা সফরকালে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীকে সাঁথিয়ার মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত স্থানগুলিতে নিয়ে যেতে এবং মুক্তিযুদ্ধ কালে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর নির্যাতনের নৃশংস ইতিহাস বর্ণনা করতে। গতকাল পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বই বিতরণ কালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, পৌর মেয়র মিরাজুল ইসলাম প্রামানিক, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান, শিক্ষা কর্মকর্তা আমির হোসেন, আ’লীগ নেতা রবিউল করিম হিরু, আবুল কাশেমসহ শিক্ষক মন্ডলী উপস্থিত ছিলেন। নতুন বছরের প্রথম দিন পাবনার সাঁথিয়া উপজেলায় ২৭৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫৩ হাজার শিক্ষার্থীর মধ্যে ২ লাখ ৭৬ হাজার ৩শ বই এবং ৭১টি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৪৫ হাজার ৬শ শিক্ষার্থীর মধ্যে ৫ লাখ ৯৭ হাজার, ৬শ বই বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়।