রাজশাহীর আশেপাশে যথাযোগ্য মার্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালন

আপডেট: ডিসেম্বর ১৮, ২০১৬, ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



রাজশাহীর আশেপাশে যথাযথ মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। গত শুক্রবার দিবসটি উপলক্ষে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, জাতীয় পতাকা উত্তোলন, মিলাদ মাহফিল, চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতা, আলোচনাসভা, বধ্যভূমি পরিদর্শন, খেলাধুলাসহ নানা কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি উদযাপন করা হয়। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-
বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় দিবসটি উপলক্ষে সকাল ৮টায় প্রথমে উপজেলার আড়ানী মনোমোহীনি উচ্চবিদ্যালয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে শহীদ মিনারে পু®পস্তবক অর্পণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হামিদুল ইসলাম, বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ আলী মাহমুদ, আড়ানী পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি শহীদুজ্জামান শাহীদ, সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন মতি, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান নিপন, পৌর যুবলীগের সভাপতি কামরুল হাসান জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক আবদুল হাকিম টুটুল, ছাত্রলীগ সভাপতি রিবন আহম্মেদ বাপ্পি, সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান খান নাইমসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক। পরে সকাল সাড়ে ৮টায় বাঘা উপজেলা পরিষদ চত্বরে জাতীয় পতাকা উত্তোলন শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পু®পমাল্য করেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড , প্রেসক্লাব, বিজয় দিবস উদযাপন পরিষদ কমিটির সদস্য, উপজেলা, পৌর, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড পর্যায়ের আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জাসদসহ রাজনৈতিক দল এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যবসায়ী, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন, এনজিও। বিকেলে বাঘা হাইস্কুল মাঠে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সভাপতিত্বে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সন্ধ্যায় একই মঞ্চে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। অপরদিকে বাঘা উপজেলা সেচ্ছাসেবক দল ও পৌর ছাত্রদলের আয়োজনে শহীদ মিনারে পু®পমাল্য অর্পণ করেন। পরে বাঘা শাহদৌলা ডিগ্রী কলেজ মাঠে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
মোহনপুর : উপজেলা প্রশাসন, থানা প্রশাসন, কেশরহাট পৌর প্রশাসন, মোহনপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন, জাতীয়তাবাদী দল ও অঙ্গসংগঠন, মোহনপুর প্রেসক্লাব, কেশরহাট পৌর আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ, কেশরহাট ডিগ্রি কলেজ, কেশরহাট উচ্চবিদ্যালয়সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন। এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী ৩ (পবা-মোহানপুর) আসনের সাংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, মোহনপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলমগীর কবির, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাসুদ পারভেজ, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম, কেশরহাট পৌর মেয়র শহিদুজ্জামান শহিদ, কেশরহাট ডিগ্রিকলেজের অধ্যক্ষক গিয়াস উদ্দিন, মোহনপুর প্রেসক্লাবের আহবায়ক মোস্তফা কামাল প্রমুখ।
গোদাগাড়ী : দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন আলোচনাসভা, খেলাধুলা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেন। দিবসের প্রথম প্রহরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রাজশাহী ১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরী। এসময় উপস্থিত ছিলেন গোদাগাড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইসহাক আলী বিশ্বাস, পৌর মেয়র মনিরুল ইসলাম বাবু, উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা জাহিদ নেওয়াজ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনির হোসেন, কৃষি কর্মকর্তা তৌফিকুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বদিউজ্জামান, পৌর সভাপতি অয়েজ উদ্দীন বিশ্বাস প্রমুখ। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা পরিষদসহ সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান আলোকসজ্জা ও সকালে বেলায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
চারঘাট : দিবসটির শুরুতে রাত ১২টা ১মিনিটে ৩১ বার তোপধ্বনীর মাধ্যমে মহান বিজয় দিবসে শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। সকাল ৮টায় পরিষদ চত্বর থেকে সর্বস্তরের জনসাধারণ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রী বিজয় র‌্যালি বের করে। জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিকসহ দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির অংশ হিসেবে চারঘাট উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বেলা সাড়ে এগারোটায় পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে বীরশহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সংর্বধনা ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইউএনও আবদুস সামাদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। উপজেলায় ২৭৬ জন বীরশহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারদের মাঝে ফুল ও বিশেষ পুরস্কার সংর্বধনা তাদের হাতে তুলে দেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে ছোট মনি ও ছাত্রছাত্রীদের শারীরিক কসরত প্রদর্শনী ও সালাম গ্রহণ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সাইদ চাঁদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন রামেকের অব. অধ্যাপক ডা. রফিকুল আলম, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাকিউল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহমিনা খাতুন, মেয়র জাকিরুল ইসলাম বিকুল, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মিজানুর রহমান আলমাসসহ ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যানগণ এবং সাংবাদিকবৃন্দ।
বাগমারা : উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আ’লীগ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও এনজিও গুলো মহান বিজয় দিবস পালন করে। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে গত শুক্রবার সকাল থেকেই ভবানীগঞ্জ সরকারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আলোচনাসভা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, কুজকাওয়াজ ও সাংস্কৃতিক অনুুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাছরিন আক্তারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন রাজশাহী ৪ বাগমারা আসনের সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম সান্টু, উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মতিউর রহমান টুকু, বাগমারা থানার ওসি সেলিম হোসেন। আলোচনা সভায় মুক্তিযোদ্ধা ও শিক্ষকেরা অংশগ্রহণ করেন এবং মুক্তিযোদ্ধাদের বিশেষ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। অপরদিকে বিভিন্ন ইউনিয়নেও আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দিবসটি উদযাপন করা হয়। এছাড়া সন্ধ্যায় উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিজয় সন্ধায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
নাটোর : দিবসটি উপলক্ষে এদিন সকালে শহরের মাদ্রাসা মোড় স্মৃতি সৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান নাটোর আসনের সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুল, জেলা প্রশাসক সাহিনা খাতুন, পুলিশ সুপার বিজয় বিপ্লব তালুকদার, জেলা পরিষদ ও জেলা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন। পরে নাটোর শংকর গোবিন্দ চৌধুরী স্টেডিয়াম মাঠে নাটোর জেলা প্রশাসনরে আয়োজনে দিনব্যাপী ক্রীড়া ও সাংস্কৃকিত অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।
বড়াইগ্রাম : নাটোরের বড়াইগ্রামে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীরমুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ইউএনও ইশরাত ফারজানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুস। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কৃষি কর্মকর্তা ইকবাল আহমেদ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বনপাড়া পৌর মেয়র জাকির হোসেন, ওসি শাহরিয়ার খান, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শামসুল হক, শিক্ষাবিদ গৌরপদ মন্ডল, শিক্ষা অফিসার সিরাজুম মনিরা।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ : ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। সূর্যদয়ের সঙ্গে সঙ্গে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নামফলক সম্বিলিত স্মৃতিস্তম্ভে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামজিক সংগঠন ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান শহীদদের স্মরনে পুস্পার্ঘ অর্পণ করে। এসময় ১ মিনিট নীরবতা পালন ও দোয়া করা হয়। পরে সরকারি কলেজ মোড়ে বঙ্গবন্ধু উন্মূক্ত মঞ্চে জাতির পিতার মূর‌্যাল প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এসব কর্মসূচিতে সাংসদ আবদুল ওদুদ, জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান, পুলিশ সুপার টিএম মোজাহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মঈনুদ্দীন মন্ডলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের কর্মকর্তা ও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এরপর জেলা স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসক আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ পরিদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সংগঠনের কুশলীরা মনোজ্ঞ ডিসপ্লে প্রদর্শন করে। এ ছাড়াও দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ অডিটোরিয়ামে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, যুদ্ধাহত ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধণা, বিভিন্ন উপাসনালয়ে বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনা, জেলা প্রশাসন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা একাদশের মধ্যে ফুটবল প্রতিযোগিতা। বিকেলে হরিমোহন সরকারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আয়োজন করা হয় প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী, আলোচনাসভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালার।
শিবগঞ্জ : উপজেলা পরিষদ চত্বরের অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন সাংসদ মোহা. গোলাম রাব্বানী, এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সফিকুল ইসলাম ও ওসি (তদন্ত) সারওয়ার রহমান উপস্থিত ছিলেন। সকাল ৯টায় শিবগঞ্জ স্টেডিয়ামে সাংসদ গোলাম রাব্বানী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম, ওসি সারোয়ার আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের অভিবাদন গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন। কুচকাওয়াজ শেষে স্টেডিয়াম মাঠে বিভিন্ন ধরণের প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। বেলা সাড়ে ১১টায় শিবগঞ্জ সরকারি মডেল হাইস্কুল প্রাঙ্গণে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, যুদ্ধাহত ও বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। এছাড়া বিভিন্ন ধর্মের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ দোয়া প্রার্থনা। অন্যদিকে উপজেলা প্রশাসন, বিভিন্ন ইউনিয়নের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে, রাজনৈতিক দলসহ বিভিন্ন সংগঠনের আয়োজনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক আলোচনাসভা, র‌্যালি, চিত্রাঙ্কণ, দেশাত্মবোধক সংগীত ও রচনা প্রতিযোগিতাসহ নানা কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ (শিবগঞ্জ) ১ আসনের সাংসদ গোলাম রাব্বানী। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আতাউর রহমান, পৌর মেয়র ও পৌরঃ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এআরএম আজরি কারিবুল হক রাজিন প্রমুখ।
গোমস্তাপুর : দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন, রহনপুর পৌরসভা, গোমস্তাপুর উপজেলা ও রহনপুর পৌর আওয়ামী লীগ, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ডাসকোসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচি পালন করে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল দিনের শুরুতে তোপধ্বনীর মাধ্যমে দিবসের সূচনা, উপজেলা চত্ত্বরস্থ মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পার্ঘ অর্পণ, সর্বত্র জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শণী, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন, বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও শহীদ পরিবারবর্গকে বিশেষ উপহার, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সকালে রহনপুর এবি সরকারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে উপজেরা প্রশাসন আয়োজিত নানা কর্মসূচিতে অংশ নেয় স্থানীয় সাংসদ গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বাইরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার কেএম আলমগীর কবীর, রহনপুর পৌর মেয়র তারিক আহমদ, সহকারী পুলিশ সুপার, গোমস্তাপুর সার্কেল এটিএম মাইনুল ইসলাম, গোমস্তাপুর থানার ওসি শেখ শাহীন কামাল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন্নেসা বাবলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান সাজাহান আনসারী মামলত, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোস্তফা কামাল প্রমুখ। সন্ধ্যায় উপজেলা অডিটোরিয়ামে বিজয় দিবসের আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
নাচোল : উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে সূর্যদয়ের সঙ্গে সঙ্গে নাচোল সরকারি কলেজ স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ, প্রত্যুষে নাচোল থানায় ৩১বার তোপধ্বনি, সকল সরকারি ও বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল সাড়ে ৮টায় উপজেলা পরিষদ মাঠে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে প্রদর্শণ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাংসদ মু. গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস। এছাড়াও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, নাচোল সরকারি ডিগ্রি কলেজের (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) হাফিজুর রহমান, মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ওবাইদুর রহমান, পৌর মেয়র আবদুর রশিদ খান ঝালু, নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ ফাছির উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান, ও জান্নাতুন নাইম মুন্নী উপস্থিত ছিলেন। এদিন বেলা সাড়ে ১০টায় মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারবর্গের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। দুপুরে নাচোল হাসপাতাল ও এতিমখানায় উন্নতমানের খাবার পরিবেশন, বাদ যোহর ও জাতির শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কামনা করে সকল মসজিদ, মন্দির, গীর্জায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। সন্ধা ৬টায় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়। এদিকে ডিসপ্লে প্রদর্শনীতে প্রথম স্থান অধিকারী খুরশেদ মোল্লা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও দ্বিতীয় স্থান অধিকারী পাঠশালা এবং ১নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে স্থানীয় সাংসদের পক্ষ থেকে ৩ হাজার টাকা করে ৬ হাজার টাকার প্রাইজমানি প্রদান করা হয়।
নওগাঁ : দিবসের প্রথম প্রহর রাত ১২টা ১ মিনিটে ৩১ বার তপোধ্বনির পর শহীদ স্মৃতি স্তম্ভে পু®পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। জেলা প্রশাসক ড. মো. আমিনুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. মোজাম্মেল হক বিপিএম, পিপিএম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার আফজাল হোসেন, নওগাঁ পৌর মেয়র নাজমুল হক সনি, জেলা পরিষদের প্রশাসক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, জেলা চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি ইকবাল শাহরিয়ার রাসেল, জেলা প্রেসক্লাব, জেলা মডেল প্রেসক্লাব, নওগাঁ সরকারি কলেজ, বিএমসি সরকারি মহিলা কলেজ, জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলালীগ, জেলা বিএনপি, জেলা যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, ছাত্রদল, প্রবাহ সংসদ, নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) জেলা কমিটি, সুজন সুশাসনের জন্য নাগরিক জেলা কমিটি, সড়ক ও জনপথ, এলজিইডি, গনপূর্ত বিভাগ, গ্রাম থিয়েটার, আইন ও সালিশ কেন্দ্র, এডাব, বরেন্দ্র রেডিও, চকএনায়েত যুবক সমিতি, জুয়েলারী সমিতি, সেবাশ্রম, রোটারিয়র ক্লাব অব পাহাড়পুরসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দল শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। সকালে নওগাঁ স্টেডিয়ামে স্বেচ্ছায় রক্তদান, কুচকাওয়াজ, ছালাম গ্রহণ, ডিসপ্লে¬ প্রদর্শন করেন। বিজয়ী ও বিজিতদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। পরে বিকেলে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে নওগাঁ স্টেডিয়ামে প্রীতি ফুটবল অনুষ্ঠিত হয়, মুক্তির মোড় মুক্তমঞ্চে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয় ও গভীর রাত পর্যন্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নৃত্য পরিবেশিত হয়।
মান্দা : নওগাঁর মান্দায় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনাসভা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে মহান বিজয় দিবস পালন করা হয়েছে। দিবসের শুরুতে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামীলীগ, বিএনপি, মান্দা প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন উপজেলাস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। এদিন সকালে উপজেলার কেকে উচ্চবিদ্যালয় মাঠে কুচকাওয়াজ, সালাম গ্রহণ, শারীরিক কসরত প্রদর্শন, আলোচনা সভা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। বিকেলে একই মাঠে মুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা প্রশাসনের মধ্যে প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদ মাঠে স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মঞ্চস্থ হয়েছে। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ ইসলামিক ফাউন্ডেশন পরিচালিত বিদ্যালয়গুলোতে নানা কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। এদিকে গতকাল শনিবার বিকেলে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় থেকে একটি বিজয় র‌্যালি বের হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার জসিম উদ্দিন, সহসভাপতি ব্রহানী সুলতান গামা, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ জহুরুল ইসলাম, দফতর সম্পাদক অনুপ কুমার মহন্ত, সহদপ্তর সম্পাদক আবদুল জব্বার, সদস্য এবিএম হাসান রিপু, প্রভাষক আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।
মহাদেবপুর : রাত ১২টা ১মিনিটে ৩১বার তোপধ্বনির মাধ্যমে সূচনার পর সাংসদ, উপজেলা পরিষদ, প্রশাসন, থানা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, প্রেসক্লাব, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাপাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও দোয়া মাহফিলে অংশগ্রহণ করেন। ডাকবাংলো মাঠে এক বিজয় দিবসের উদ্বোধনী আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন মহাদেবপুর ও বদলগাছী আসনের সাংসদ ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম। উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেবুন নাহার। আলোচনা সভার আগে শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং পায়রা অবমুক্ত করা হয়। দুপুরে উপজেলা হলরুমে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বীর মুক্তিযোদ্ধা,যুদ্ধাহত ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানদের এক সংবধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সাংসদ ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেবুন নাহারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুস সাত্তার নান্নু, মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সাবের রেজা আহম্মেদ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের কমান্ড এসএম মহাসীন আলী, বীরমুক্তিযোদ্ধা ময়নূল ইসলাম মকুল, গোলাম নূরানী আলাল, অজিত মন্ডল প্রমুখ। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী এবং মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারের সদস্যদের মাঝে প্রধান অতিথি পুরস্কার তুলে দেন।
পতœীতলা : নওগাঁর পতœীতলায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে নজিপুর মডেল উচ্চবিদ্যালয় মাঠে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালন করা হয়। রাত ১২টা ১মিনিটে শহিদ মিনারে থানা পুলিশের ৩১ তপধ্বণির মধ্যদিয়ে সাথে সাথে পুষ্পমাল্য অর্পণ এর মাধ্যমে শুরু হয় প্রথম প্রহর। কর্মসূচির মধ্যে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ, শরীরচর্চা প্রদর্শনী, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, আলোচনাসভা, পুরুস্কার বিতরণী এবং উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে এক মনঙ্গ সাংস্কৃতিক সন্ধ্য অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেকের সভাপতিত্ত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন পতœীতলা-ধামইরহাট এলাকার সাংসদ ও জাতীয় সংসদের হুইপ মো. শহিদুজ্জামান সরকার (বাবলু)। বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আ’লীগ সভাপতি ইছাহাক হোসেন, উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহসভাপতি বাবু নির্মল কুমার ঘোষ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শহিদুল ইসলাম, থানা ওসি আজিম উদ্দীন, উপজেলা আ’লীগের সহসভাপতি আবদুল খালেক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবদুল গাফফার, নজিপুর পৌরসভার মেয়র মো. রেজাউল কবির চৌধুরী, নজিপুর পৌর আ’লীগের সভাপতি শহিদুল আলম বেন্টু ও সাধারণ সম্পাদক মিল্টন উদ্দিন প্রমুখ। নজিপুর প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শ্রদ্ধাঞ্জলী প্রদান করা হয়েছে।
নিয়ামতপুর : মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে  উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এনামুল হক ও নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে সাংসদ, উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসন ফুল দিয়ে বীর শহীদদের শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর উপজেলা আওয়ামীলীগ, উপজেলা প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন রাজৗনতিক, সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে বীর শহীদদের শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন কর্মসূচি পালন করেন। বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আলোকসজ্জা করা হয়। সকাল সাড়ে ৯টায় নওগাঁ ১ আসনের সাংসদ সাধন চন্দ্র মজুমদার প্রধান অতিথি হিসাবে জাতীয় পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে উত্তোলন, বিজয় দিবসের কর্মসূচি পায়রা অবমুক্ত করার মধ্য দিয়ে সূচনা করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এনামুল হক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহিন রেজা ও অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম খান। এছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তাবক অর্পণ করা হয়। উপজেলা বিএনপির আহবায়ক ও ভাবিচা ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। নিয়ামতপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন এর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এছাড়া হাজিনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, চন্দননগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, ভাবিচা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, নিয়ামতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, শ্রীমন্তপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ পৃথকভাবে মহান বিজয় দিবস পালন করেন।
রাণীনগর : দিবসটি উপলক্ষে নওগাঁর রাণীনগরে একডালা ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক ও সমাজ সেবক রুহুল আমিনের ব্যক্তিগত উদ্যোগে ৫ শতাধিক শীতার্ত ও দুস্থ্য মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। একডালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক আবদুছ ছামাদ মাস্টারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন স্থানীয় সাংসদ ইসরাফিল আলম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন একডালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন, নওগাঁ জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সুজিত কুমার সাহা, কালীগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বাবলু, আবাদপুকুর উচ্চবিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক শ্রী প্রদ্যুৎ কুমার চৌধুরী, বর্তমান প্রধান শিক্ষক আবদুছ ছোবহান প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন একডালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মো. হাফিজার রহমান।
সাঁথিয়া : দিবসটি পালন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন,বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন দিনব্যাপি কর্মসূচির মধ্যে ছিল সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, স্মৃতিসৌধে পুষ্প স্তবক অর্পন, বিজয় র‌্যালি, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাড. শামসুল হক টুক, উপজেলা চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম, পৌরসভার মেয়র মিরাজুল ইসলাম প্রামানিক, থানার অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দিন, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আবদুল্লাহ আল মাহমুদ দেলোয়ার, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আ. লতিফ, আ’লীগ নেতা হাসান আলী খান, রবিউল করিম হিরু, পৌর আ’লীগের সভাপতি আবুল কাশেম, অধ্যাপক আবদুদ দাইন, অধ্যাপক আশরাফুল আলম মজনু প্রমুখ।